fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রাস্তাঘাট শুনশান, করোনা আবহে রাজ্যের নির্দেশে চলছে লকডাউন

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা আবহে রাজ্যের সুরক্ষার কথা ভেবে ফের লকডাউনে পথে হাঁটল সরকার। ফলে আজ সরকারি, বেসরকারি সব অফিস বন্ধ থাকবে। এছাড়াও বন্ধ থাকছেচ পরিবহণ, বাজারদোকান, ব্যাঙ্ক, অফিস। তবে এর আওতা থেকে ছাড় পাবে অত্যাবশকীয় পরিষেবা। এ বিষয়ে নবান্নের তরফে বিশেষ নির্দেশিকাও জারি করা হয়েছে। সেই অনুযায়ী ভোর ৬টা থেকে রাত ১০ পর্যন্ত চলবে লকডাউন।

এবার থেকে প্রতি সপ্তাহে দুই দিন করে এই লকডাউন থাকবে। এদিন থেকেই শুরু হচ্ছে এই লকডাউন। এরপরে আবার লকডাউন থাকছে চলতি মাসের ২৫ ও ২৯ তারিখ। অর্থাৎ আগামী শনিবার ও বুধবার। তবে লকডাউনের জেরে বন্ধ থাকবে সব রাষ্ট্রায়ত্ত্ব ও বেসরকারি ব্যাঙ্কের শাখা। বন্ধ থাকছে সব ধরনের সরকারি ও বেসরকারি অফিস। বন্ধ থাকবে বাস, ট্যাক্সি, ট্রাম, ফেরির মতো গণপরিবহণ।

আরও পড়ুন:পশ্চিম তীর অধিগ্রহণের পরিকল্পনা আপাতত স্থগিত ইজরায়েলের

সামনের সপ্তাহে ফের কবে লকডাউন থাকবে তা আগে থেকে জানিয়ে দেওয়া হবে। তবে অত্যাবশ্যকীয় সামগ্রী বা পরিষেবা খোলা থাকবে। সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে রোগী নিয়ে যাওয়ার অ্যাম্বুল্যান্স পরিষেবা। খোলা থাকবে ওষুধ ও চিকিৎসা সামগ্রীর দোকান। একই সঙ্গে এর আওতায় আসবে না পুলিশ, আদালত, সংশোধনাগার, দমকল ও জরুরিকালীন পরিষেবা। চালু থাকবে বিদ্যুৎ ও জল পরিষেবাও। ইন হাউজ কর্মীদের নিয়ে চলতে পারে কলকারখানার শিল্পোৎপাদনও। ছাড় থাকছে রাজ্যের গ্রামীণ এলাকাগুলির কৃষিকাজ ও উত্তরবঙ্গের চা বাগানের কাজেও। চলবে আন্তঃরাজ্য পণ্য পরিবহণও।

আরও পড়ুন:বন্যায় বিপর্যস্ত অসম-বিহার, উত্তরপ্রদেশ ,মৃত শতাধিক, শোকপ্রকাশ পুতিনের

সেবির নির্দেশ মেনে ই-কমার্স, ক্যাপিটাল ও ডেবিট মার্কেটও খোলা থাকছে। ছাড় পাচ্ছে মুদ্রণ, বৈদ্যুতিন ও সোশ্যাল মিডিয়া। বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেওয়া যাবে রান্না করা খাবার। চলবে হোম ডেলিভারিও। খোলা থাকছে পেট্রল পাম্প।খোলা থাকছে দুধের দোকান।
ওষুধ, দুধ, গ্যাস বাদে সমস্ত দোকান বন্ধ থাকবে এই লকডাউনের দিনগুলিতে। বন্ধ থাকবে যে কোনও বাজার, সুপার মার্কেট, শপিং মল। বন্ধ থাকবে পোস্ট অফিস। সেই সঙ্গে বন্ধ থাকবে সমস্ত রকমের ধর্মীয় স্থান।

প্রতি সোমবার জানিয়ে দেওয়া সপ্তাহের কোন দুদিন লকডাউন থাকবে। গোটা আগস্ট মাসে এইভাবেই লকডাউন চালানো হবে বলে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। পরে আবার প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে রাজ্যের তরফে।গত সোমবারই রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায় ঘোষণা করেছিলেন, রাজ্যে সপ্তাহে দু’দিন করে সম্পূর্ণ লকডাউন হবে। সেই মতো মেনে চলছে লকডাউন পর্ব।

করোনার দাপটে গোষ্ঠী সংক্রমণ রুখতেই এই এই পদক্ষেপ নিয়েছে রাজ্য সরকার। করোনার থাবায় মৃত্যু ও সংক্রমণের হার উর্দ্ধমুখী। স্বস্তিতে নেই রাজ্যের মানুষ। প্রতি মুহূর্তে বাড়ছে সংক্রমণের আশঙ্কা। সেই অবস্থা নিয়ন্ত্রণে ফের লকডাউনের সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার।

Related Articles

Back to top button
Close