fbpx
দেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চিন-ভারত সংঘর্ষে শহিদ জওয়ান রাজেশের স্মৃতিতে শহিদবেদী বানাতে চান সাঁইথিয়ার বিধায়ক

সুব্রত মুখোপাধ্যায়, সাঁইথিয়া : গলওয়ান উপত্যকায় সংঘর্ষে শহিদ জওয়ান রাজেশ ওরাংয়ের স্মৃতিতে তাঁরই গ্রামে শহিদবেদী বানাতে চান বলে জানালেন সাঁইথিয়া বিধানসভার বিধায়ক নীলাবতী সাহা।

 

আজ সকালে বিধানসভা এলাকার মহঃবাজারে গিয়ে শহীদ রাজেশের ছবিতে পুষ্পার্ঘ অর্পন করে শ্রদ্ধা জানান বিধায়ক এবং তাঁর স্বামী তৃনমুল কংগ্রেসের জেলা সম্পাদক দেবাশীষ সাহা। বিধায়ক নীলাবতী সাহা জানান, ‘পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী গতকাল সংঘর্ষে শহীদের পরিবারকে পাঁচলক্ষ টাকা এবং একটা চাকরী দেবার কথা ঘোষনা করেছেন। আমি দেশের সুরক্ষায় বীর জওয়ান রাজেশের আত্ম বলিদানের স্মৃতি হিসাবে একটি শহীদবেদী তৈরী করার পরিকল্পনা নিয়েছি। ‘

 

 

দুদিন আগে আকসাই চীনে বিহার রেজিমেন্টের অধীন রাজেশ ওরাং শেষ ফোন করে বাড়িতে জানিয়েছিল সে পাহাড়ে উঠছে। তারপর থেকে মহঃবাজারে তার পরিবারের সঙ্গে আর কোন যোগাযোগ হয়নি। গলওয়ান উপত্যকার তীব্র ঠান্ডায় রাত্রিবেলায় চীনা বাহিনীর ভারতীয় সীমানায় অতর্কিতে ঢুকে পেরেক লাগানো লোহার রড দিয়ে আক্রমনের জবাবও দিয়েছে ভারতীয় জওয়ানেরা। এক চীনা নাগরিকের বয়ান অনুযায়ী মোট তেষট্টি জন চিনা সৈন্যকে ঘায়েল করতে পেরেছে ভারতীয় বাহিনী। মারা যাবার আগে রাজেশরা যে বীরের মতো লড়াই করেছে তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

 

 

গত পরশু ক্যাম্প থেকে ফোন আসে রাজেশ সংঘর্ষে প্রান হারিয়েছেন। সমস্ত এলাকা দুদিন ধরে শোকগ্রস্ত। সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ কাল থেকে রাজেশের বাড়িতে শোকজ্ঞাপন করে আসছেন। ফিরে যাবার আগে বিধায়ক নীলাবতী সাহা রাজেশের মায়ের কাছে সমবেদনা জ্ঞাপন করেন উপস্হিত অন্যান্যদের সঙ্গে।

Related Articles

Back to top button
Close