fbpx
দেশহেডলাইন

শিখ-বিরোধী দাঙ্গা মামলায় এখনই স্বস্তি নয় সজ্জন কুমারের, হোলির পর শুনানি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: জেলেই থাকতে হচ্ছে প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা সজ্জন কুমারকে। শিখ-বিরোধী দাঙ্গা মামলায় আপাত স্বস্তি পেলেন না তিনি। পরবর্তী শুনানি হবে হোলির পরে। এমনটাই জানিয়েছে শীর্ষ আদালত।

১৯৮৪ শিখ-বিরোধী দাঙ্গা মামলায় জামিনের আবেদন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে যান প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা সজ্জন কুমার। এখনই সজ্জন কুমারের জামিনের আবেদনের শুনানি হবে না জানিয়ে দেয় সুপ্রিম কোর্টে। আদালতের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, হোলির ছুটির পরই সজ্জনের জামিনের আবেদনের শুনানি হবে।

আরও পড়ুন: নির্ভয়া মামলার শুনানি চলাকালীন আদালতেই জ্ঞান হারালেন বিচারপতি

প্রসঙ্গত, ১৯৮৪ শিখ-বিরোধী দাঙ্গা মামলায় জেলবন্দি প্রাক্তন কংগ্রেস নেতা সজ্জন কুমার। তাঁর আইনজীবী বিকাশ সিং ইতিমধ্যেই মুখবন্ধ খামে সুপিম কোর্টে মেডিক্যাল রিপোর্ট জমা দিয়েছেন। সেই রিপোর্টে জানানো হয়েছে, সজ্জন কুমার শারীরিকভাবে অসুস্থ। ওজন ১৩ কিলোগ্রাম কমে গিয়েছে। সজ্জনের আইনজীবীর বক্তব্য শোনার পর সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, হোলির ছুটির পরই জামিনের আবেদনের শুনানির দিন ধার্য হবে।

প্রসঙ্গত, এর আগেও সজ্জন কুমারকে জামিন দিতে অস্বীকার করেছিল সুপ্রিম কোর্ট। সিবিআই-ও সজ্জন কুমারের জামিনের আবেদনের বিরোধিতা করেছিল। সিবিআই জানিয়ে দেয়, সজ্জন কুমারের বিরুদ্ধে অপরাধ প্রমাণিত হয়েছে। ১৯৮৪ সালের ৩১ অক্টোবর প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধীকে খুন করে তাঁর শিখ দেহরক্ষীরা। তার পরেই দেশজুড়ে শিখ সম্প্রদায়ের উপরে হামলার ঘটনা হয়।

আরও পড়ুন: নিম্নকক্ষ লোকসভার স্পিকার ওম বিড়লার সঙ্গে দেখা করলেন বিপিন রাওয়াত

সজ্জন কুমার, জগদীশ টাইটলার-সহ একাধিক কংগ্রেস নেতা সেই হামলায় নেতৃত্ব দিয়েছিলেন বলে অভিযোগ ওঠে। পাশাপাশি
১৯৮৪ সালের ১ নভেম্বর দিল্লির রাজনগর এলাকায় একটি শিখ পরিবারের পাঁচজন সদস্যকে খুন করা ও একটি গুরুদ্বারে অগ্নিসংযোগের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগও আনা হয় সজ্জন কুমারের বিরুদ্ধে।

Related Articles

Back to top button
Close