fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

ইসলামাবাদ নাক গলালে পাকিস্তানে গিয়ে রাম মন্দির গড়ব! হুমকি অযোধ্যার সন্তদের

রক্তিম দাশ, কলকাতা: রামমন্দির নির্মাণের বিরোধিতা করে পাক বিদেশ মন্ত্রকের টুইটে ব্যাপক ক্ষুব্দ হয়েছেন অযোধ্যার সাধু-সন্তরা। ইমরান সরকারকে পালটা হুমকি দিয়ে সন্তরা বলেছেন, ‘ইসলামাবাদ নাক গলালে আমরা পাকিস্তানে গিয়ে রাম মন্দির গড়ব!। অন্যদিকে এঘটনায় কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বিশ্ব হিন্দু পরিষদ বলেছে, ‘আমাদের দেশের উপর চোখ দেখালে, ওই চোখ উপড়ে দিতে আমরা জানি।’

 

 

বুধবারই পাকিস্তান বিদেশ মন্ত্রক উসকানি মূলক টুইট করে বলেছে,-‘ বিশ্ব যখন মারাত্বক কোভিড-১৯ এর সঙ্গে লড়াই করছে। সেই সময় আরএসএস-বিজেপি সম্মিলিতভাবে ‘হিন্দুত্ব’ কর্মসূচির এগিয়ে নিয়ে যেতে ব্যস্ত। বাবরি মসজিদস্থলে মন্দির নির্মাণের কাজ এই দিকের আরও এক পদক্ষেপ এবং পাকিস্তানের সরকার ও জনগণ কঠোর ভাষায় এর নিন্দা জানাচ্ছে।’

 

 

এই টুইট সামনে আসতে তীব্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে রামন্দির আন্দোলনের অন্যতম উদ্যোক্তা বিশ্ব হিন্দু পরিষদ সহ অযোধ্যার সাধু-সন্তদের মধ্যে। শুধু তাই নয় এঘটনায় ক্ষুব্দ বাবরি মসজিদের পক্ষে প্রধান মামলাকারি ইকবাল আনসারীও। আদালতের নির্দেশে নিয়োজিত রামমন্দিরে প্রধান পুরহিত আর্চায্য সত্যেন্দ্র দাস কড়া প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে বলেছেন, ‘পাকিস্তানে বেশ কয়েকটি মন্দির ছিল, দেশভাগের পরে সেগুলি ভেঙে দেওয়া হয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের রায় দেওয়ার পর আমরা আমাদের জমিতে রাম মন্দির তৈরি করছি। এই নির্মাণের  সময় এই বিষয়ে পাকিস্তানের প্রশ্ন করার কোন অধিকার নেই। যারা সীমান্তে আমাদের সৈন্যদের হত্যা করে ভারতের উচিত তাদের শিক্ষা দেওয়া।’

 

পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি বলেন, ‘পাকিস্তান তার সীমা যেন অতিক্রম না করে। যদি করে তাহলে আমরা ইসলামাবাদে গিয়ে রাম মন্দির নির্মান করে দিয়ে আসব।’ মহন্ত শশীকান্ত দাস বলেন, ‘হিন্দু হিসাবে আমাদের মন্দির নির্মাণ বা সংস্কারের স্বাধীনতা আছে এবং এই ক্ষেত্রে সুপ্রিম কোর্ট আমাদের মন্দির নির্মাণের অনুমতি দিয়েছে। পাকিস্তানের আমাদের বিষয়ে হস্তক্ষেপ করার কোন অধিকার নেই।’
অপরদিকে অযোধ্যা জমি নিয়ে মামলায় বাবরি মসজিদের পক্ষে প্রধান মামলাকারি অযোধ্যার বাসীন্দা ইকবাল আনসারী মনে করেন পাকিস্তান ভারতের আভ্যন্তরীন বিষয়ে নাক গলাচ্ছে। তিনি বলেন,‘’ভারতের মুসলমানরা রাম মন্দিরের বিষয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে সম্মান জানিয়ে রায় মেনে নিয়েছে। পাকিস্তানের এই বিষয় নিয়ে রাজনীতি করা এবং হিন্দু-মুসলমানদের মধ্যে বিভেদ তৈরির চেষ্টা বন্ধ করে উচিত। এটা আমাদের অভ্যন্তরীণ বিষয় এবং আমরা জানি কীভাবে এর মোকাবিলা করতে হবে। ভারতের অভ্যন্তরীণ বিষয়ে পাকিস্তানের হস্তক্ষেপ বন্ধ করা উচিত।’

 

 

এদিকে এঘটনা নিয়ে পাক সরকারের কড়া সমলোচনা করেছেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের পূর্ব ক্ষেত্রিয় সম্পাদক অমিয় সরকার। এদিন তিনি বলেন,‘ এই কঠিন পরিস্থিতি ইমরান আগে নিজের দেশ সামলান। বরাবরের মতোই এসময় এধরণের কথা বলে জেহাদিদের উৎসাহিত করছে পাক বিদেশ মন্ত্রক। আমাদের উপর চোখ দেখালে ওই চোখ আমরা উপড়ে নেব। এটা পাক সরকারের জানা উচিত।’

Related Articles

Back to top button
Close