fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মৃদু উপসর্গ, উপসর্গহীনদের জন্য স্যাটেলাইট হেলথ ফেসিলিটির ভাবনা স্বাস্থ্য দফতরের

প্রথম চালু পূর্ব বর্ধমানে

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: মৃদু উপসর্গ ও উপসর্গহীনদের জন্য এবার নয়া পরিকল্পনা রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের। সূত্রে খবর, এখন থেকে এদের জন্য চালু করা হচ্ছে ‘স্যাটেলাইট হেলথ ফেসিলিটি।’ এই নিয়ে রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের তরফে রাজ্যের সমস্ত বেসরকারি হাসপাতালগুলিকে প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, মৃদু উপসর্গ বা উপসর্গহীনদের ক্ষেত্রে সরাসরি কোভিড হাসপাতালে না পাঠিয়ে অন্তর্বর্তী ব্যবস্থা হিসেবে নিকটবর্তী অন্য নার্সিংহোম বা হোটেল ভাড়া নিয়ে পরিকাঠামো গড়ে তুলতে পারবে বেসরকারি হাসপাতালগুলি। তারপর হোটেলগুলিতেই পরিষেবা দেবে হাসপাতালগুলি। সূচনা হিসেবে পূর্ব বর্ধমান জেলায় এদিন প্রথম স্যাটেলাইট হেলথ ফেসিলিটি পরিষেবা চালু করা হয়েছে।

স্বাস্থ্য দফতরের তরফে জানানো হয়েছে, এর ফলে উপসর্গ কম বা একেবারেই উপসর্গ নেই এমন করোনা আক্রান্তদের সরাসরি কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য না পাঠিয়ে এভাবে অন্তর্বর্তী মাধ্যমে রেখে চিকিৎসা করানো যাবে। কোন কোন বেসরকারি হাসপাতাল বা নার্সিংহোম এই পরিষেবা দিতে প্রস্তুত, আবেদনের ভিত্তিতে তার তালিকা তৈরি করছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর৷

সেই আবেদনপত্র জমা পড়ার পর জেলা স্বাস্থ্য দফতর তার পরিকাঠামো খতিয়ে দেখছে। সেখানে আক্রান্তদের চিকিৎসার জন্য ভেন্টিলেটর, ডায়ালিসিস ও প্রয়োজনীয় সংখ্যক নার্স ডাক্তার স্বাস্থ্যকর্মী আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। এরপরই সেই নার্সিংহোমকে স্যাটেলাইট হেলথ ফেসিলিটির আওতায় নিয়ে আসা হচ্ছে। এতে সরাসরি কোভিড হাসপাতালের ওপর চাপ কমানো যাবে বলে দাবি স্বাস্থ্য দফতরের। এই সমস্ত নির্দেশ মেনে পূর্ব বর্ধমান জেলায় প্রথম স্যাটেলাইট হেলথ ফেসিলিটি চালু করা হয়েছে।এক্ষেত্রে করোনা আক্রান্তদের নার্সিংহোমে রেখে চিকিৎসা করানো হলেও রোগী বা তার পরিবারকে ব্যয় বহন করতে হবে না।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, করোনা আক্রান্তের চিকিৎসার ব্যয়ভার সরকার বহন করবে নার্সিংহোম স্বাস্থ্য দফতরের কাছ থেকে খরচ পাবে। রোগী বা রোগীর আত্মীয়দের কাছ থেকে কোনও অর্থ দাবি করা যাবে না। স্বাস্থ্য দফতরের এই নয়া উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়েছেন অনেক চিকিৎসকেরাই।

 

Related Articles

Back to top button
Close