fbpx
কলকাতাহেডলাইন

অমিত শাহ আগে নিজের পার্টি সামাল দিক, পরামর্শ সৌগত রায়ের

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের উপস্থিতি রাজ্যের শাসক দলের হৃদকম্পন বাড়িয়ে দিয়েছে তা বলাই বাহুল্য। রাজ্য পা দিতে না দিতেই তাই তৃণমূলের সব শীর্ষ নেতৃত্বই একে একে নিশানা করছেন আমিত শাহকে। বৃহস্পতিবার সেই আসরে যোগ দিলেন বর্ষীয়ান তৃণমূল কংগ্রেস নেতা তথা সাংসদ সৌগত রায়।

তিনিও কেন্দ্রীয় সরাষ্ট্র আক্রমণ শানিয়ে বলেন, ‘অমিত শাহ নিজের পার্টিকে সামলাক। ওরা যেভাবে নিজেদের মধ্যে লড়াই–ঝগড়া করছে, আগামী দিনে নিজেদের মধ্যেই খুনোখুনি লেগে যাবে।’

এদিন বাঁকুড়ায় পা রেখেই মুখ্যমন্ত্রীর নাম করেই রাজ্য সরকারকে হুঁশিয়ারি দেন অমিত শাহ। বলেন, ‘মমতা সরকারের মৃত্যুঘণ্টা বেজে গিয়েছে।’ পাশাপাশি আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে যে বিজেপি ক্ষমতায় আসতে চলেছে পশ্চিমবঙ্গে সে বিষয়ে নিশ্চয়তা প্রকাশ করেন তিনি। অমিত শাহের এই ঠিক মন্তব্যের পরেই কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ‘দিবা স্বপ্ন’ দেখছেন বলে কটাক্ষ করেন তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়।

পাল্টা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে তোপ দেগে সৌগত বাবু বলেন, ‘অমিত শাহ স্পষ্ট করে কী বললেন তাতে কিছু আসে যায় না। পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলকে সরিয়ে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি— ওঁর এই দিবাস্বপ্ন সফল হওয়ার কোনও সম্ভাবনা দেখা যাচ্ছে না। তিনি যে বলছেন যে দুই তৃতীয়াংশ আসনে জয়লাভ করে ক্ষমতায় আসবে বিজেপি, সেটাও তাঁর দিবাস্বপ্ন।’

এদিন চতুর্থীতে এক আদিবাসীর বাড়িতে মধ্যাহ্নভোজন সারেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এই বিষয়টিকে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি শাসক দল। এ প্রসঙ্গে সৌগত বাবুর বক্তব্য, ‘আজ মতুয়া, আদিবাসীদের বাড়িতে খাওয়াদাওয়া করে অমিত শাহ আসলে লোকদেখানো নাটক করছেন। আমাদের দলিত, আদিবাসীরা বোঝেন যে বিজেপি উচ্চবর্ণের পার্টি, বড়লোকদের পার্টি। ওরা গরিবদের নিয়ে মাথা ঘামায় না। ওরা আমবানি–আদানিদের নিয়ে মাথা ঘামায়। ওরা যদি সোনার বাংলাই করবে তবে সোনার উত্তরপ্রদেশ, সোনার গুজরাট করতে পারছেন না কেন।’

এদিন অমিত শাহ স্পষ্ট দাবি করেন আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে পশ্চিমবঙ্গের ক্ষমতায় আসবে বিজেপি। পাশাপাশি ক্ষমতায় এসে সোনার বাংলা গড়বে বিজেপি বলেও মন্তব্য করেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এই বিষয়ে সৌগত রায়ের কটাক্ষ, ‘ওঁরা ক্ষমতাই পাবেন না, সোনার বাংলা কী করে তৈরি করবেন।’ একইসঙ্গে তাঁর প্রশ্ন, ‘বিজেপি যে সব রাজ্যে ক্ষমতায় রয়েছে সেখানে কি সোনার রাজ্য তৈরি হয়েছে?’

পাশাপশি দলিত সম্প্রদায়ের পাশে মমতার সরকার সব সময়ের জন্য আছে বলে এদিন দাবি করে সৌগত রায় জানান, ‘পশ্চিমবঙ্গের মানুষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের সঙ্গে আছেন এবং থাকবেন। এখানে বিজেপি–র কোনও রাজনৈতিক গ্রহণযোগ্যতা হয়নি। অমিত শাহ যা বলেছেন তার কোনও রাজনৈতিক প্রভাবও পড়বে না। পশ্চিমবঙ্গে দলিত, আদিবাসী, গরিবদের স্বার্থ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার দেখছে এবং আগামীতেও দেখবেন।’

Related Articles

Back to top button
Close