fbpx
কলকাতাহেডলাইন

যুব মোর্চার সভাপতি পদ থেকে ইস্তফার সিদ্ধান্ত বদল সৌমিত্রর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  বিজেপির যুব মোর্চার পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার ভাবনা বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁর  শনিবার সকালে দলের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপ ছাড়েন তিনি। তবে কিছুক্ষণের মধ্যেই ভোলবদল। দুপুরেই আবার ইস্তফা দেওয়ার সিদ্ধান্ত বদল করলেন সৌমিত্র খাঁ । গ্রুপে ফের যুক্ত হলেন তিনি।

শনিবার গ্রুপে ফিরে আসার পর সৌমিত্র খাঁ লিখেছেন, যুব মোর্চার জেলার কোনও কমিটিতে বদল হচ্ছে না। দিলীপ ঘোষ যে কমিটি শুক্রবার বাতিল করেছিলেন সেই কমিটিই বহাল থাকছে। এছাড়াও লেখেন, “তোমাদেরকে ছেড়ে থাকা সম্ভব নয়। তাই ফিরে এলাম। টিএমসিকে হঠানোর জন্য সব কিছু ত্যাগ করতে রাজি আছি। জয় শ্রীরাম। জয় মা দুর্গা। বিজেপি জিন্দাবাদ। মোদি জিন্দাবাদ।”

বিজেপি সূত্রে জানা গিয়েছে, দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের প্রতি সৌমিত্র খাঁয়ের অভিমানের কথা কানে পৌঁছেছে দলের কেন্দ্রীয় নেতাদের। কেন্দ্রীয় নেতৃত্বই তাঁকে যুব মোর্চার সভাপতি পদে থেকে যেতে পরামর্শ দিয়েছেন। সেই কারণেই ঘণ্টাখানেকের মধযেই সিদ্ধান্ত বদল করেছেন সৌমিত্র। শনিবার দুপুরেই যুব মোর্চার গ্রুপে ফের যুক্ত হন তিনি। হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হয়ে তিনি লেখেন, ”তোমাদের ছেড়ে থাকা অসম্ভব। তাই ফিরে এলাম। তৃণমূলকে সরাতে সব কিছু ত্যাগ করতে রাজি আছি। জয় শ্রীরাম। জয় মা দুর্গা।’

উল্লেখ্য, দিনকয়েক আগেই যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি নির্বাচিত হন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসা বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। এরপরই জেলায় জেলায় সংগঠন মজবুত করার লক্ষ্যে যুব মোর্চার কমিটি ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ নেন তিনি। জেলায় যুব মোর্চার সভাপতি বাছাই নিয়ে আগে থেকেই মতানৈক্য চলছিল। সেই অবস্থায় যুব মোর্চার জেলা সভাপতিদের নাম ঘোষণা করেন সংগঠনের রাজ্য সভাপতি সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। যা নিয়ে দলের অন্দরেই তীব্র বিতর্ক তৈরি হয়। তবে শুক্রবারই দলের যুব মোর্চার জেলা কমিটি বাতিল করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। জানান, অনিবার্য কারণবশত জেলার বিজেপির যুব মোর্চার পদ ও কমিটি বাতিল করা হল। যুব মোর্চার নয়া জেলা কমিটি ও সভাপতি নির্বাচন না হওয়া পর্যন্ত এই দায়িত্ব সামলাবেন বিজেপির জেলা সভাপতিরা। রাজ্য সভাপতির আচমকা এহেন সিদ্ধান্তের পর তা নিয়ে দলের অন্দরে বিতর্ক শুরু হয়।

Related Articles

Back to top button
Close