fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খকলকাতাশিক্ষা-কর্মজীবনহেডলাইন

খুলছে স্কুল, সংক্রমণ রুখতে নজিরবিহীন ব্যবস্থা নিচ্ছে কর্তৃপক্ষ

নিজস্ব প্রতিনিধি: অপেক্ষার অবসান, কলকাতা তথা রাজ্যের স্কুলগুলি খুলে যাচ্ছে মঙ্গলবার। স্বাভাবিকভাবে খুশিতে মেতে উঠেছে পড়ুয়ারা। সরকারি নির্দেশিকা অনুযায়ী নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র-ছাত্রীরা স্কুলে যাবে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় স্কুল খোলার কথা জানানোর পরে রাজ্যজুড়ে সাজ সাজ রব পড়ে যায়। জরুরি ভিত্তিতে প্রত্যেকটি স্কুলকে জীবাণুমুক্ত করার কাজ শুরু হয়। অর্থাৎ পড়ুয়ারা যাতে করোনায় সংক্রমিত না হয়, তার জন্য উপযুক্ত ব্যবস্থা নিয়েছে প্রত্যেকটি স্কুল।

যে ছবি দেখা গেল শহরের একটি স্কুলে গিয়ে। কলকাতার নাকতলা অঞ্চলের মহাঋষি বিদ্যামন্দির স্কুল কর্তৃপক্ষ পড়ুয়াদের সুরক্ষায় বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ব্যবস্থা নিয়েছে। এ সম্পর্কে স্কুলের প্রিন্সিপাল সুদেষ্ণা চক্রবর্তী জানিয়েছেন, স্কুলের মেন গেটে ঢোকার সময় পড়ুয়াদের শরীরের তাপমাত্রা মাপার জন্য থার্মাল স্ক্যানিং করা হবে। এরপর স্কুলে ঢোকার আগে একটি গেটের কাছে থাকছে ‘ ডিস ইনফেকশন ম্যাট’, এই ব্যবস্থায় জুতোর তলাটা সানিটাইজ করা যাবে। এরপর ক্লাস রুমে ঢোকার আগে একটি নির্দিষ্ট জায়গায় রাখা সেন্সরের নিচে পড়ুয়ারা হাত রাখলে হাতের তালু পুরোপুরি জীবাণুমুক্ত হবে।

এর পাশাপাশি পঠনপাঠনের সময় দূরত্ব বিধি মানা হচ্ছে স্কুলটিতে। একটি বেঞ্চে একজন করে বসবে। আর একেকটা ক্লাসকে দু’ভাগে ভাগ করা হয়েছে। প্রথম ভাগে অর্ধেক পড়ুয়া, আর দ্বিতীয় ভাগে বাকি পড়ুয়ারা ক্লাস করবে। অর্থাৎ একজন শিক্ষক বা শিক্ষিকা দুটি করে ক্লাস করবেন একই বিষয়ের উপর। এটা দূরত্ব বিধি ভালভাবে মানা যাবে বলে মনে করছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

শহরের বেশিরভাগ স্কুল একইভাবে করোনা প্রতিরোধে যাবতীয় ব্যবস্থা নিয়েছে। আর এতদিন পর পড়ুয়ারা স্কুলে যাওয়ায় উচ্ছ্বসিত শিক্ষক-শিক্ষিকারাও। খুশি অভিভাবকবৃন্দ। করোনা নিয়ে দুশ্চিন্তা থাকলেও তাঁদের ছেলেমেয়েরা স্কুলে যাচ্ছে ভেবে খুশি তাঁরা। এ প্রসঙ্গে এক অভিভাবক বলেন,” একটু চিন্তা হচ্ছে করোনার কারণে। আসলে ছেলেমেয়েদের টিকাকরণ হয়নি, সেটা একটু ভাবাচ্ছে। তা সত্ত্বেও বলছি, ছেলেমেয়েরা আবার স্কুল যাচ্ছে, এটা ভেবেই ভাল লাগছে। তাই নেগেটিভ চিন্তা মন থেকে উড়িয়ে দিয়েছি”‌। সব মিলিয়ে শহর তথা রাজ্যের প্রত্যেকটি স্কুল এখন পড়ুয়াদের অপেক্ষায়।

Related Articles

Back to top button
Close