fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নৈহাটির বড় মায়ের কালীপুজো এবার ভার্চুয়ালি দেখবেন ভক্তরা, প্রস্তুতি খতিয়ে দেখলেন ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার 

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর : করোনা সচেতনতায় এবার উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটির বড় মা কালীর পুজো ভার্চুয়ালি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন এই পুজোর প্রধান উদ্যোক্তারা । প্রশাসনের নির্দেশে নৈহাটির অরবিন্দ রোডে বড় মা কালীর পুজোয় চলতি বছরে ভক্তদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে, নেওয়া হবে না ভক্তদের পুজো, স্বশরীরে উপস্থিত থেকে মায়ের মূর্তির সামনে দাঁড়িয়ে দেওয়া যাবে না কালীপুজোর অঞ্জলি, দন্ডী কেটে মায়ের পুজো দিতে আসা যাবে না এবছর ।
করোনা পরিস্থিতিতে ভক্তদের সুবিধার্থে প্রশাসনের নির্দেশ মেনে এবছর বড় মা কালী পুজোর উদ্যোক্তারা মায়ের ভক্তদের কাছে অনলাইনে ভার্চুয়ালি মায়ের পুজো দেখার অনুরোধ করেছেন সকলের কাছে । তবে পুরনো ঐতিহ্য ও পরম্পরা মেনে নির্দিষ্ট নিয়মেই বড় মার পুজো অনুষ্ঠিত হবে নির্দিষ্ট স্থানেই। নৈহাটি বড় কালী পুজো সমিতির সম্পাদক তাপস ভট্টাচার্য্য বলেন, “করোনা সচেতনতার কারনে আমরা এবার ভক্তদের অনুরোধ করছি আপনারা ভার্চুয়ালি আমাদের পুজোতে শামিল হন, ভার্চুয়ালি অঞ্জলি দিন, পুজো দিন । আমরা ফেসবুক, ইউটিউবের মাধ্যমে, সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে সকলকে এবছর পুজো দেখানোর ব্যবস্থা করছি । প্রশাসনের নির্দেশ মেনে নিয়েছি আমরা । লক্ষ লক্ষ দর্শনার্থীদের ও ভক্তদের আমরা আগে থেকেই প্রচার করছি করোনা সচেতনতার কারনে এবছর আমরা রীতি মেনে মায়ের পুজো করলেও, ঘটনাস্থলে ভক্তদের প্রবেশ নিষিদ্ধ করা হয়েছে, ভক্তদের থেকে পুজো নেওয়া হবে না । অঞ্জলি দিতে পারবেন না ভক্তরা । তবে ভার্চুয়ালি প্রত্যেকেই আমাদের পুজোর সঙ্গে যুক্ত থেকে সুরক্ষিত থেকে নিজেদের মনস্কামনা মাকে জানতে পারেন, পুজো দিতে পারেন, অঞ্জলি দিতে পারবেন ।”
  উত্তর ২৪ পরগনার বিখ্যাত মা কালীর পুজো গুলির মধ্যে অন্যতম বড় ঐতিহ্যপূর্ণ পুজো হল নৈহাটির বড় মা কালীর পুজো । চলতি বছরে শতবর্ষে পদার্পণ করেছে বড় মা কালীর পুজো । প্রত্যেক বছরই এই পুজোয় দেশের বিভিন্ন রাজ্য থেকে এবং গোটা পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে মা কালীর ভক্তরা এখানে পুজো দিতে আসেন । লোকমুখে কথিত আছে বড় মায়ের কাছে মনস্কামনা নিয়ে পুজো দিলে কেউ খালি হাতে ফিরে যায় না । লক্ষ মানুষ ডন্ডি কেটে বড় মায়ের সামনে দাড়িয়ে পুজো ও অঞ্জলি দেন । প্রত্যেক বছরের মত এবছরও ২১ হাত অর্থাৎ ১৪ ফুট উচ্চতা বিশিষ্ট বড় মায়ের মূর্তি নির্মাণ করছেন মৃৎ শিল্পীরা । তবে এবছরটা অন্য রকম । করোনা সব কিছুর হিসেব পাল্টে দিয়েছে ।
প্রশাসনের পক্ষ থেকে পুজো উপলক্ষে জারি করা হয়েছে প্রশাসনের নির্দিষ্ট করোনা স্বাস্থ্য বিধি । বড় মায়ের পুজোর ব্যবস্থা কেমন, তা দেখতে বৃহস্পতিবার নৈহাটি অরবিন্দ রোডে বড় মায়ের পুজো মণ্ডপে এসে এখানকার নিরাপত্তা ব্যবস্থা খতিয়ে দেখেন ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা । ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের অন্যান্য পুলিশ আধিকারিকদের সঙ্গে নিয়ে এদিন নৈহাটিতে বড় মায়ের মণ্ডপ পরিদর্শন করে এখানকার পুজোর প্রধান উদ্যোক্তাদের সঙ্গে কথা বলেন ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা ।
এদিকে রাজ্যে কালী পুজো নিয়ে এখনো কোন সরকারী বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ না হলেও ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা সকলের উদ্দেশ্যে স্পষ্ট বার্তা দেন, “চলতি বছরে করোনা আবহে বাজি ফাটানো বা বাজি পোড়ানো থেকে যাতে সকলে দূরে থাকে, সেই অনুরোধ করা হচ্ছে । বাজি পোড়ালে দূষণ মাত্রা বেড়ে গেলে করোনা আক্রান্তদের স্বাস্থ্যের ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। তাই আমরা মহামান্য উচ্চ আদালতের নিয়ম মানব। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বড় মায়ের পুজো উপলক্ষে ভিড় নিয়ন্ত্রনে রাখার সব ধরনের ব্যবস্থা পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে করা হবে ।” তবে উদ্যোক্তারা এবছর বড় মার পুজোয় ভক্তদের প্রবেশ নিয়ন্ত্রন করবে বলে প্রশাসনকে জানিয়ে দিয়েছে ।

Related Articles

Back to top button
Close