fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

হাঁসখালি ও কৃষ্ণগঞ্জের বিজেপি সমর্থিত একাধিক কৃষকের ফসল নষ্ট, প্রতিবাদে পথ অবরোধ

শ্যামল কান্তি বিশ্বাস, কৃষ্ণনগর: হাঁসখালি ও কৃষ্ণগঞ্জ থানা এলাকায় বিজেপি সমর্থিত একাধিক কৃষকের জমির ফসল নষ্ট করে দেওয়ায় প্রতিবাদে ২০ নভেম্বর পথে নামল বিজেপি। অভিযোগের তীর তৃণমূল কংগ্রেসের দিকে। বেছে বেছে একের পর এক বিজেপি নেতা  এবং সমর্থকের কৃষি জমির ফসল যে হারে অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে নষ্ট করা হচ্ছে তা অত্যন্ত নিন্দনীয় এবং ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ বলে মনে করেন রাজ্য কিষাণ মোর্চার সভাপতি মহাদেব সরকার।

বিজেপির ৩৭ নং জেড পি-র মন্ডল সভাপতি তাপস ঘোষের অভিযোগ, এলাকার সুস্থ, স্বাভাবিক জনজীবনকে বিষাক্ত করে তুলেছে তৃনমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা এবং পরিকল্পিত ভাবে এই অপকর্মে লিপ্ত হয়েছে তারাএবং বার বার বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের দ্বারস্থ হওয়া সত্ত্বেও কোনও ব্যবস্থা নেওয়ায় সাধারণ মানুষের মধ্যে  স্থানীয় প্রশাসন সম্পর্কে ক্ষোভ বাড়ছে। এই অভিযোগে সরব এলাকার বিজেপি নেতৃত্ব। বিজেপি ৩৭ নং জেড পি-র মন্ডল সভাপতি তাপস ঘোষের অভিযোগ, ঘটনা পরিকল্পিত এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। হাঁসখালি এবং কৃষ্ণগঞ্জ থানা এলাকায় বিজেপির সাংগঠনিক বিস্তারে ভীত এবং সন্ত্রস্ত এলাকার তৃণমূল নেতৃত্ব।

বিজেপির অভাবনীয় সাফল্যে দিশেহারা তৃণমূল, এখন জনসমর্থন হারিয়ে ফেলার হতাশা থেকেই একের পর এক অসামাজিক কাজ সহ ধংস লীলায় লিপ্ত হয়েছে এবং তার ই জঘন্যতম নিদর্শন বেছে বেছে বিজেপি নেতা কর্মীদের চাষের জমির উপর এই অত্যাচার। তা না হলে সন্তান সম ধরন্ত গাছগুলি কেউ কি চিরতরে বিনাশ করতে পারে? ফলন্ত কলা বাগান,বেগুন এবং লঙ্কার জমি কেটে সাফ করতে ওদের বিবেকে বাঁধলো না ! আক্ষেপ, ৩৭ নং জেড পি’র মন্ডল সভাপতি তাপস ঘোষের।

রাতের অন্ধকারে হাঁসখালি থানার বেতনা ভোরের ঘাটে স্থানীয় বিজেপি সমর্থক গৌতম ঘোষের প্রায় ১০ কাঠা জমির ধরন্ত লঙ্কা এবং ৮ কাঠা জমির ধরন্ত বেগুন গাছ গোড়া থেকে কেটে দিয়েছে। ঠিক একই ধরনের ঘটনা গত সপ্তাহে কৃষ্ণগঞ্জ থানা এলাকা শিবনিবাসের বিজেপি নেতা বুদ্ধদেব ঘোষের প্রায় ১ বিঘা জমির কলা বাগানের পুরো কলাগাছ রাতের অন্ধকারে কে বা কারা কেটে রেখে যায়, ঘটনার বিস্তারিত বিবরণ সহ অভিযোগ স্থানীয় কৃষ্ণগঞ্জ থানায় লিখিত আকারে জানানো সত্বেও কেউ গ্ৰেপ্তার তো দূর অস্ত, ঘটনার পুলিশি তৎপরতায় খুশি নন এলাকাবাসী।  ১৯ নভেম্বর একই ধরনের ঘটনার পুনরাবৃত্তি ঘটায় ২০ নভেম্বর শুক্রবার  নতুন ভাবে প্রতিবাদ আন্দোলনে পথে নামলেন বিজেপি নেতৃত্ব।  ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়ে, ২০ নভেম্বর হাঁসখালি বিডিও অফিস সংলগ্ন রানাঘাট-কৃষ্ণনগর ৯ নং বাসরুটে বিজেপি কর্মী সমর্থকেরা পথ অবরোধ সহ বিক্ষোভ কর্মসূচিতে সামিল হয়। বিজেপি ৩৭ নং জেড পির উদ্দোগে আয়োজিত এই কর্মসূচিতে নেতৃত্ব দেন ৮৮ নং বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক আশীষ কুমার বিশ্বাস ও ৩৭ নং জেড পি-র মন্ডল সভাপতি তাপস ঘোষ। সকাল ১১ টা থেকে ৪৫ মিনিট পর্যন্ত চলে এই অবরোধ। স্থানীয় বিডিও সহ হাঁসখালি থানার ওসি’র আশ্বাসের ভিত্তিতে আন্দোলনকারীরা অবশেষে অবরোধ তুলে নেয়।

আরও পড়ুন: আমেরিকা শপিং মলের সামনে বন্দুকবাজের অতর্কিতে হামলা, আহত বহু, তদন্তে পুলিশ

বিজেপি নেতা তাপস বাবুর অভিযোগ, বেছে বেছে এবং ধারাবাহিকভাবে বেশ কয়েকদিন যাবৎ রাতের অন্ধকারে কে বা কারা হাঁসখালি এবং কৃষ্ণগঞ্জ থানা এলাকার বিজেপি পরিবারভুক্ত কৃষকদের জমির ফসলের উপর এই অত্যাচার কেন? বৃহস্পতিবার গৌতম বাবুর লঙ্কা ও বেগুনের জমির ফসল নষ্টের প্রতিবাদে ২০ নভেম্বর হাঁসখালি বিডিও অফিসের সামনে পথ অবরোধের সময় বিজেপি কর্মীরা ক্ষতিগ্রস্ত লঙ্কা গাছ, বেগুন গাছ সহ কলাগাছ ও কলার মোচা সমেত বিক্ষোভ দেখান এবং বিক্ষোভ শেষে ক্ষতিগ্রস্ত কৃষক গৌতম ঘোষ হাঁসখালি থানায় একটি লিখিত অভিযোগ ও দায়ের করেন।

Related Articles

Back to top button
Close