fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

যৌন নির্যাতন, শ্বাসরোধ করে খুন নাবালিকা, আলিপুর কাণ্ডে আটক মা ও মায়ের প্রেমিক

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: নিউ আলিপুরের ই-ব্লকের নাবালিকা মৃত্যুর পরে বাড়ির লোকেরা ভয় পেয়ে মৃত্যুর কথা বললেও বিষয়টি অস্বাভাবিক বলে প্রথমেই সন্দেহ হয়েছিল তদন্তকারী-সহ চিকিৎসকদের। সেই ওই নাবালিকার দেহের ময়নাতদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়। আর তাতেই উঠে এল চাঞ্চল্যকর তথ্য।

ময়নাতদন্তের রিপোর্টে উঠে আসছে, যৌন নির্যাতন করে তারপর শ্বাসরোধ খুন করা হয়েছে ওই নাবালিকাকে। মেয়েটির যৌনাঙ্গে ক্ষতচিহ্নও রয়েছে, ওই শিশুটির গলায় আঙুলের ছাপ রয়েছে। একই সঙ্গে এই ঘটনার তদন্তে মেয়েটির মায়ের বিবাহ-বহির্ভূত সম্পর্কের কথাও জানতে পেরেছে পুলিশ। এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার না করা হলেও নাবালিকার মা এবং তার সঙ্গে সম্পর্কিত ওই যুবককে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ।

গত রবিবার নিউ আলিপুরের অভিজাত পরিবারে বাড়ির বাথরুম থেকে স্বর্ণলিপি ভট্টাচার্য নামে ওই নাবালিকার দেহ উদ্ধার হয়। পরিবারের লোকেরা তাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত ঘোষণা করেন। কিন্তু কিছু অস্বাভাবিকতা লক্ষ্য করায় খবর দেওয়া হয় পুলিশকে।

পরিবার জানায়, বেশ কিছুদিন ধরেই ভূতের আতঙ্ক হয়ে কাঁটা হয়ে থাকতো ওই নাবালিকা। ওই দিনও আচমকা কিছু দেখে আতঙ্কিত হয়ে সে জ্ঞান হারায়। কিন্তু আপাত সরল এই বয়ান বিশ্বাস হয়নি পুলিশের। তাই ওই নাবালিকার ময়না তদন্তের নির্দেশ দেওয়া হয়। ঘটনার দিন ওই আবাসনেরই নিচের তলার অফিসের এক কর্মী পুলিশকে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দেন।

পুলিশ তদন্তে জানতে পেরেছে, সাহাপুর কলোনির এক যুবকের সঙ্গে মেয়েটির মায়ের বিবাহ বহির্ভূত সম্পর্ক ছিল। তাদের বাড়িতে নিত্য যাতায়াত ছিল ওই যুবকের। যেদিন নাবালিকা মেয়েটির মৃত্যু হয় অর্থাৎ গত রবিবারও ওই যুবক তাদের বাড়িতে ছিল। ওই যুবকের দাদা আবার কলকাতা পুলিশেরই এক কর্মী।  নাবালিকা মেয়েটির মৃত্যুর সঙ্গে ওই সাহাপুরের যুবকের কোন যোগ আছে কিনা তা ওই কিশোরীর মা এবং ওই যুবককে জেরা করে নিশ্চিত হতে চাইছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close