fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

পঠনপাঠন বন্ধ তবুও ফি নিচ্ছে স্কুল, কলেজ কর্তৃপক্ষ! আন্দোলনে নামল SFI

নিজস্ব সংবাদদাতা, দিনহাটা:  স্কুল, কলেজ সব বন্ধ থাকলেও দিনহাটা কলেজ কর্তৃপক্ষ  ছাত্র-ছাত্রীদের ভর্তির নামে সেমিস্টার ফি সহ বিভিন্ন রকম ফি নিচ্ছে বলে অভিযোগ তুলে আন্দোলনে নামল  সিপিএমের  ছাত্র সংগঠন এসএফআই।

সংগঠনের পক্ষ থেকে ইমেইল করে দিনহাটা মহকুমা শাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ জানিয়ে তার হস্তক্ষেপ দাবি করে অবিলম্বে তা বন্ধের আবেদন জানানো হয়। ছাত্র সংগঠনের পক্ষ থেকে ফি নেওয়া বন্ধ না হলে কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামার হুমকি দেয়া হয়। কলেজ কর্তৃপক্ষ অবশ্য বলেন  এই ভর্তি নতুন কোনো ব্যাপার নয়। জানুয়ারি, ফেব্রুয়ারি তে প্রায় ৬০ শতাংশ ছাত্রছাত্রী ভর্তি হয়েছে। এখনো যারা ভর্তি হয়নি তাদের কাছে মোবাইলে মেসেজ করে আবেদন জানানো হয়েছে। বাধ্যতামূলক কোন বিষয় নয়। তবে যারা ভর্তি না হবে তাদের কলেজ লিভিং হওয়ার পর বিভিন্ন রকম সমস্যা হতে পারে বলেও তিনি উল্লেখ করেন কর্তৃপক্ষ।

ছাত্র সংগঠন এসএফআইয়ের দিনহাটা কলেজ ইউনিটের পক্ষ থেকে মহকুমা শাসক শেখ আনসার আহমেদের কাছে  শুক্রবার ইমেইল করে দিনহাটা কলেজ কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ জানানো হয়। সংগঠনের কলেজ ইউনিট সম্পাদক আব্দুল মালেক পাটোয়ারী, সভাপতি সঞ্জীব কর্মকার বলেন দিনহাটা কলেজ থেকে কোনরকম অফিশিয়াল নোটিশ না দিয়ে অনলাইন পোর্টাল খুলে এডমিশন ফি নেওয়া শুরু হয়েছে। ছাত্র নেতৃত্ব  বলেন যেখানে কলকাতা হাইকোর্ট বলে দিয়েছে বর্তমানে  প্যানডেমিক  এই পরিস্থিতিতে কোনরকম স্কুল কলেজের ফি নেওয়া যাবে না । অথচ দিনহাটা কলেজ কর্তৃপক্ষ ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে ভর্তির  জন্য  সমস্ত রকম ফি নেওয়া নেওয়া শুরু করেছে। তাদের অভিযোগ বর্তমান এই পরিস্থিতিতে কোনরকম ক্লাস হয়নি। অথচ ভর্তির নামে লাইব্রেরি ফি, ফেস্টিভাল ফি, ল্যাবরেটরী ফি সব রকম ফ্রি নেওয়া হচ্ছে। লকডাউনের ফলে সাধারণ মানুষের জীবন-জীবিকা যখন বিপন্ন তখন দিনহাটা কলেজ কর্তৃপক্ষ অনলাইনে বিনা নোটিশে ভর্তির প্রক্রিয়া চালিয়ে ছাত্র ছাত্রীদের অভিভাবকদের সাথে নির্মম আচরণ করছেন বলেও তাদের অভিযোগ।

 

অবিলম্বে সেমিস্টার ফি নেওয়া বন্ধ করা না হলে এবং কলেজ যেহেতু হয়নি তাই কোন রকম ফ্রি না নিয়ে ছাত্রছাত্রীদের উত্তীর্ণ না করা হলে সংগঠনের পক্ষ থেকে বৃহত্তর আন্দোলনে নামার কথা ঘোষণা করা হয়। ছাত্র সংগঠনের রাজ্য কমিটির সদস্য শুভ্রালোক দাস বলেন গোটা দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসের থাবায় সাধারণ মানুষ আজ কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে চলছে। জীবন মরণ লড়াইয়ের  এই সময় কালে আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী ছাত্র-ছাত্রীরা যারা এখনো ভর্তি হয়নি তাদের অভিভাবকরা যাতে নিশ্চিন্তে কোন রকম ফি ছাড়া ছেলে মেয়েদের ভর্তি করাতে পারে তার জন্য তারা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ দাবি করেন। পাশাপাশি তাদের দাবি পত্র রাজ্যের রাজ্যপাল, ইউজিসির চেয়ারম্যান, কোচবিহার পঞ্চানন বর্মা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর, রাজ্যের উচ্চশিক্ষা মন্ত্রী থেকে শুরু করে বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়। ছাত্র-ছাত্রীদের ও তাদের অভিভাবকদের স্বার্থে কলেজ কর্তৃপক্ষ সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা  এবং প্রশাসন প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ না করলে দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

দিনহাটা কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ অমিতাভও দত্ত বলেন গত জানুয়ারি ফেব্রুয়ারি মাসে প্রায় ৬০ শতাংশ ছাত্র ছাত্রী ভর্তি হয়েছে। এখনো কিছু ছাত্রছাত্রী ভর্তি হয়নি।  যারা এখনো ভর্তি হয়নি তাদের কাছে মোবাইলে মেসেজ পাঠিয়ে ভর্তির আবেদন জানানো হয়েছে। ভর্তির অনলাইন পোর্টাল খোলা রয়েছে। যদি কেউ ভর্তি হতে চায় ভর্তি হতে পারে। এটা কোন বাধ্যতামূলক নয়। যদি কেউ ভর্তি না হয় তবে পরবর্তীতে কলেজ লিভিং কিংবা চাকরির ক্ষেত্রে সেই ছাত্র-ছাত্রী অসুবিধা হতে পারে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। এই ভর্তির আবেদন নরমাল প্রসেস বলেও তিনি উল্লেখ করেন। দিনহাটা মহকুমা শাসক শেখ আনসার আহমেদ বলেন ছাত্র সংগঠনের আবেদন পেয়েছি। এনিয়ে কলেজ কর্তৃপক্ষের সাথে তিনি কথা বলবেন।

Related Articles

Back to top button
Close