fbpx
আন্তর্জাতিকবাংলাদেশহেডলাইন

সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিজিবিকে ‘ত্রিমাত্রিক বাহিনী’ ঘোষণা করলেন শেখ হাসিনা

যুগশঙ্খ প্রতিবেদন, ঢাকা: বাংলাদেশের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে (বিজিবি) ‘ত্রিমাত্রিক বাহিনী’ হিসেবে ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রবিবার বিজিবিতে সংযোজন হওয়া অত্যাধুনিক দুটি হেলিকপ্টারের উদ্বোধন করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা মুজিববর্ষ উদযাপন করছি। এ মুজিববর্ষে বিজিবি দুটি হেলিকপ্টার পেল। এটি আসলেই গর্বের বিষয়। আমি বিজিবিকে ত্রিমাত্রিক বাহিনী হিসেবে ঘোষণা করছি; আজ থেকে বিজিবি একটি ত্রিমাত্রিক বাহিনী।’ তিনি বিজিবি সদস্যদের আন্তরিকতা ও বিশ্বাসের সঙ্গে দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে বাহিনীর সুনাম অক্ষুণ্ন রাখার আহ্বান জানান। ‘এ বাহিনীকে সর্বশ্রেষ্ঠ বাহিনী হিসেবে গড়ে তোলা হোক,’ বলেন তিনি।

বিজিবি দেশের সীমানা রক্ষা করে যা তাদের জন্য অনেক বড় দায়িত্ব উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এজন্য সরকার এ বাহিনীর জন্য যা যা প্রয়োজন তাই করবে।’ বিজিবিকে একটি আধুনিক ও সময়োপযোগী সীমান্তরক্ষী বাহিনী হিসেবে গড়ে তুলতে সরকার ব্যপক সংস্কার ও উন্নয়ন কর্মসূচি গ্রহণ করেছে বলেও জানান সরকার প্রধান। বিজিবিতে আরও জনবল বাড়াতে সরকারের পরিকল্পনার কথা তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এ বাহিনীতে আরও ১৫ হাজার জনবল বৃদ্ধির পরিকল্পনা করা হয়েছে যা তিনটি ধাপে বাস্তবায়ন করা হবে’।

আরও পড়ুন- আমেরিকার ঐতিহাসিক দিন… ভাইস প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত ভারতীয় বংশোদ্ভূত কমলা হ্যারিস, গর্বিত ভারত

তিনি জানান, ‘প্রথম ধাপে ৪ হাজার ২৮২ জন জনবলের সমন্বয়ে একটি রিজিয়ন সদরদপ্তর, একটি সেক্টর সদরদপ্তর এবং চারটি ব্যাটালিয়ন, একটি কে-নাইন ইউনিট, একটি রিজিয়ন ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো, একটি স্টেশন সদরদপ্তর ও একটি গার্ড পুলিশ ব্যাটালিয়ন সৃজনের কার্যক্রম প্রক্রিয়াধীন রয়েছে, যা ২০২২ সালের মধ্যে সম্পন্ন হবে’। দ্বিতীয় ধাপে মোট ৫ হাজার ৭৮২ জন জনবলের সমন্বয়ে একটি সেক্টর, পাঁচটি ব্যাটালিয়ন, একটি রিজার্ভ ব্যাটালিয়ন, একটি কে-নাইন ইউনিট অ্যান্ড ট্রেনিং সেন্টার এবং পাঁচটি বর্ডার গার্ড হাসপাতালের জনবল বৃদ্ধির জন্য প্রস্তাব বিবেচনাধীন রয়েছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close