fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

অবশেষে শুরু হতে চলেছে শ্য়ুটিং, নির্দেশিকা মেনে খুলবে শপিং মল-রেস্তোরাঁ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  করোনা আবহের মধ্যেই ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে শহর কলকাতা।  বাংলায় লকডাউনের মেয়াদ ২ সপ্তাহের জন্য় বাড়ানো হচ্ছে। আগামী ১৫ জুন পর্যন্ত লকডাউন চলবে বলে শনিবার নবান্নের তরফে এক নির্দেশিকায় জানানো হল। যে নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে তাতে ১ জুন ও ৮ জুন থেকে বিভিন্ন পরিষেবা চালু করার কথা জানানো হয়েছে। কনটেনমেন্টে জোনে সম্পূর্ণ লকডাউন চলবে। তবে, কনটেনমেন্ট জোনের বাইরে লকডাউন শিথিল করা হয়েছে। তবে রাজ্যে মোটের উপর লকডাউন বজায় থাকবে আরও ১৪ দিন। অর্থাৎ ১৫ জুন পর্যন্ত মোটের উপর লকডাউন জারি থাকবে রাজ্যজুড়ে।

দেখে নিন কী সেই নির্দেশিকা সেখানে কী কী বলা হয়েছে নবান্নের তরফ থেকে, সেটা দেখে নিন

  • সরকারি দফতরে ৮ জুন থেকে ৭০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ হবে। কিন্তু তা হবে একদিন অন্তর। অর্থাৎ একজন কর্মী সপ্তাহে তিন দিন আসবেন। বেসরকারি সংস্থাও ৮ তারিখ থেকে কাজ শুরু করতে পারবে। তবে কতজন কর্মী নিয়ে কাজ করবে তা তারাই ঠিক করবে। কিন্তু তা ৭০ শতাংশের বেশি হবে না। তবে বেসরকারি ক্ষেত্রে বাড়ি থেকে কাজ করাকেই সরকারি উৎসাহ দিচ্ছে।
  • রাজ্যের মধ্যে ও অন্য রাজ্যের মধ্যে সরকারি ও বেসরকারি বাস পরিষেবা চালু করা যাবে ১ জুন থেকে। তবে যতগুলি আসন, ততজন যাত্রীকেই নিয়ে বাস চালাতে হবে। কেউ বাসে দাঁড়িয়ে থাকতে পারবেন না। সকলকেই মাস্ক, গ্লাভস পড়তে হবে।
  • সব রকম হোটেল, রেস্তোরাঁ, শপিং মল ৮ জুন থেকে খুলে যাবে। তবে সেখানে সামাজিক দুরত্ববিধি কঠোরভাবে মানতে হবে সকলকেই।

আরও পড়ুন: লকডাউন: আগামী ৩০ জুন পর্যন্ত বাড়ল মেয়াদ

  • স্থানীয় থানার অনুমতি নিয়ে ১ জুন থেকে সব ধর্মীয় স্থান খুলে যাবে, তবে একসঙ্গে দশ জনের বেশি লোকের ভিড় করা যাবে না। করা যাবে না কোনও বড় অনুষ্ঠানও।
  • ১ জুন থেকে ৩৫ জনকে নিয়ে ইন্ডোর ও আউটডোর সবরকম শুটিং করা যাবে। তবে সেখানেও অবশ্যই সামাজিক দুরত্ববিধি মানতে হবে।
  • চা বাগান, পাটশিল্প এবং আবাসন ক্ষেত্রে ১ জুন থেকে ১০০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ করা যাবে।
  • খনিজ ক্ষেত্র ও বৃহৎ শিল্পসংস্থাগুলি ১ জুন থেকে ১০০ শতাংশ কর্মী নিয়েই কাজ করতে পারবে।
  • মাঝারি-ক্ষুদ্র-অতিক্ষুদ্র শিল্প সংস্থাগুলি ১ জুন থেকে ১০০ শতাংশ কর্মী নিয়ে কাজ করতে পারবে।

নবান্নের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, এই নিয়মের বাইরে কোনওভাবেই যাওয়া যাবে না। যদি নিয়ম ভাঙা হয়, তাহলে সেই সংস্থা কিংবা ব্যক্তির বিরুদ্ধে সরকার কঠোরভাবে আইনি পদক্ষেপ করবে।

Related Articles

Back to top button
Close