fbpx
কলকাতাহেডলাইন

আমফানের ত্রাণে ‘দুর্নীতি’ রুখতে নয়া তদন্ত কমিটি গড়লেন শুভেন্দু অধিকারী

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:   আমফানের ত্রাণ বিলিতে ‘দুর্নীতি’ নিয়ে উত্তাল নিয়ে রাজ্য রাজনীতি। রাজ্যজুড়ে আমফানের টাকা বন্টন নিয়ে বিস্তর অভিযোগ শাসকদলের জেলা নেতৃত্বের বিরুদ্ধে। এনিয়ে সরব খোদ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। হুঁশিয়ারি দিয়েছেন জেলার নেতাদের। দুর্নীতি প্রমাণ হলে কড়া ব্যবস্থা।আমফানের ত্রাণে দুর্নীতির অভিযোগ নিয়ে  প্রথম থেকেই বেজায় ক্ষুব্ধ পরিবহণমন্ত্রী। কারণ, এতে ক্ষতিগ্রস্তরা যেমন ভুগছেন, তেমনই  দলের ভাবমূর্তি নষ্ট হচ্ছে। তাই এবার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পথে হেঁটে দুর্নীতি রুখতে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করলেন শুভেন্দু অধিকারী।

জানা গিয়েছে, ওই কমিটির সদস্যরা নন্দীগ্রামের ভেকুটিয়া ও কেন্দ্রেমারী-সহ আমফানে ক্ষতিগ্রস্ত বিভিন্ন এলাকা পরিদর্শন করবেন। কথা বলবেন ক্ষতিগ্রস্তদের সঙ্গে। চিহ্নিত করবেন প্রকৃত দুর্গতদের। এরপর ওই কমিটি খতিয়ে দেখবে যে, প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা ত্রাণ পেয়েছে কি না। যদি না পেয়ে থাকে সেক্ষেত্রে আবেদনে কোনও ত্রুটি ছিল কি না, প্রথমে তা খতিয়ে দেখা হবে। আবেদনে ত্রুটিপূর্ণ না হওয়া সত্ত্বেও যদি কেউ ত্রাণ পাননি বলে প্রমাণিত হয়, সেক্ষেত্রে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।এ প্রসঙ্গে পরিবহণমন্ত্রী জানিয়েছে, “আমফানের ত্রাণ বিলিতে দুর্নীতির সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে শাস্তি দেওয়া হবে। কেউ অন্যায়ভাবে টাকা আত্মসাত করেছে বলে প্রমাণিত হলে, তাঁকে টাকা ফেরত দিতে হবে।”

আরও পড়ুন: হরিগুরুচাঁদকে কটুক্তিতে ক্ষুব্ধ মতুয়ারা, প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি দুলালের

তদন্ত কমিটির প্রতিনিধিদের কথায়, “বিধায়ক তথা মন্ত্রীর নির্দেশ মোতাবেক আমরা কাজ শুরু করেছি। দ্রুতই রিপোর্ট জমা দেব।”শুভেন্দু অধিকারীর এই উদ্যোগে খুশি ক্ষতিগ্রস্তরা। তাঁদের বিশ্বাস, এবার হয়তো প্রাপ্য জুটবে। প্রসঙ্গত, সোমবারই নবান্ন থেকে ত্রাণে দুর্নীতির ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। বলেছিলেন, দ্রুত টাকা ও অন্যান্য সামগ্রী পাঠানোর কারণেই বেশ কিছু সমস্যা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close