fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

‘শুভেন্দু পার্টির মধ্যেই আছে, তিনি তৃণমূলের উজ্জ্বল মুখ’, দাবি সৌগতর

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: শুভেন্দু তৃণমূলের মুখ। দাবি করলেন বর্ষিয়ান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। সোমবার তৃণমূল ভবনে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনের আগে শুভেন্দু অধিকারীর দল ছাড়া প্রসঙ্গে তাকে প্রশ্ন করা হলে তিনি সবটাই এড়িয়ে গিয়ে শুধু এ কথা বলেন। সৌগত বলেন, ‘শুভেন্দু তৃণমূলের উজ্জ্বল মুখ।’ সৌগত রায় এ হেন বক্তব্যের মধ্যে অনেক তাৎপর্য রয়েছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশের যদিও শুভেন্দু অধিকারী অবস্থান সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা দেন নি সৌগত।
তিনি বলেন, ‘শুভেন্দু পার্টির মধ্যেই আছে। তৃণমূলের উচ্চতর কমিটির মধ্যে আছে। রাজ্যের তিনটি দফতরের মন্ত্রী তিনি।’
তার কাছে শুভেন্দু সম্পর্কে স্পষ্ট জানতে চাওয়া হলে সৌগত বলেন, ‘শুভেন্দু নিয়ে পার্টি যা ভাবছে সেটা আমি ওকে বলব। আবার শুভেন্দু যা ভাবছে তাও আমি পার্টিকে জানাবো। আমি শুধু বলব আর শুনবো। কারু মধ্যেকার আলোচনার কথা আমি সংবাদমাধ্যমে কখনোই প্রকাশ করব না। এটা অনুচিত।’ শুভেন্দুর সঙ্গে সমঝোতার রাস্তা খুলতে বর্ষীয়ান সাংসদ সৌগত রায় ও সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়কে দায়িত্ব দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তৃণমূলের সঙ্গে সমঝোতার পথ খুঁজে বার করতে সোমবার দ্বিতীয় দফায় সৌগত রায়ের সঙ্গে বৈঠকে বসছেন শুভেন্দু অধিকারী। এই বৈঠকেই শুভেন্দুর রাজনৈতিক ভবিষ্যতের ফয়সলা হতে পারে বলে মনে করছেন অনেকে। সোমবার বিকেলে কলকাতায় হবে এই বৈঠক। তবে বৈঠক কোথায় হবে তা জানায়নি কোনও পক্ষই।
তবে শুভেন্দুর সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ রাখছেন শুধুমাত্র সৌগতবাবু। ভাইফোঁটার দিন নিউ টাউনে প্রথম বৈঠক হয় দুপক্ষের। তাতে নিজের ‘বক্তব্য’ সৌগতবাবুর সামনে তুলে ধরেন শুভেন্দু। তা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে জানান সৌগতবাবু। সঙ্গে সুদীপবাবুর সঙ্গেও আলোচনা করেন এই নিয়ে। তার পরই সোমবার ফের বৈঠকে বসার সিদ্ধান্ত নেন দুজন।
তৃণমূল সূত্রের খবর, সোমবারের বৈঠকের আগে শুভেন্দুর মান ভাঙাতে নিজেদের মধ্যে বৈঠকে বসেছে তৃণমূলের শীর্ষনেতৃত্ব। দলের অন্দরে সিদ্ধান্ত হয়েছে, শুভেন্দু দল না ছাড়া পর্যন্ত তাঁকে বহিষ্কার করা হবে না। বরং দলের মধ্যেই তাঁকে একঘরে করে ফেলা হবে। তবে শুভেন্দুকে বুঝিয়ে ধরে রাখার আপ্রাণ চেষ্টা চলাচ্ছে তৃণমূল। এদিনের বৈঠকে শুভেন্দুর ‘বক্তব্য’ কতটা মেনে নেওয়া সম্ভব তা তাঁকে জানাবেন সৌগতবাবু। দলের নিজের দায়িত্ববৃদ্ধি ও জেলা পর্যবেক্ষক পদ ফেরানোর পক্ষে সওয়াল করেছিলেন শুভেন্দু। সেই পদ ফেরানো সম্ভব কি না তাও এদিন জানানো হতে পারে তাঁকে।

Related Articles

Back to top button
Close