fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শ্যামাপ্রসাদের মূর্তি তৈরীকে ঘিরে বিবাদ, বিজেপি-তৃণমূল সংঘর্ষে উত্তপ্ত নোয়াপাড়া

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: উত্তর ২৪ পরগনার নোয়াপাড়ার মোহনপুরে বিজেপি ও তৃণমূল সংঘর্ষের ঘটনায় ব্যাপক উত্তেজনা ছড়াল উত্তর ২৪ পরগনার নোয়াপাড়ার মোহনপুরে। জানা গিয়েছে, নোয়াপাড়া বিধানসভার অন্তর্গত মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের লকগেট সংলগ্ন এলাকায় শ্যামা প্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি স্থাপনের জন্য বেদী তৈরী করছিল বিজেপি । সেই নির্মীয়মাণ বেদীটি ব্যারাকপুর কল্যাণী এক্সপ্রেসওয়ের উপরে তৈরী করা হচ্ছিল ।  এই ঘটনায় বিজেপির অভিযোগ, তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা ওই মূর্তি তৈরীর কংক্রিটের বেদী ভেঙে দিয়েছে । বিজেপির পক্ষ থেকে এই ঘটনার প্রতিবাদে মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের লোকগেট সেতু সংলগ্ন এলাকায় দীর্ঘক্ষণ পথ অবরোধ করা হয় ।

 

নোয়াপাড়ার বিজেপি বিধায়ক সুনীল সিংয়ের অভিযোগ, “তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা আমাদের কর্মীদের উপর হামলা করেছে । শ্যামা প্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের মূর্তি স্থাপনের জন্য আমরা কংক্রিটের বেদী তৈরী করছিলাম, সেটিও ভেঙে দিয়েছে । এমনকি আমার দলের সক্রিয় কর্মীর গাড়িতে স্বশস্ত্র তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা হামলা করে সেই গাড়ির কাঁচ ভাঙচুর করেছে, দলের ৩/৪ জন কর্মী শাসক দলের আশ্রিত গুন্ডা বাহিনীর হাতে আক্রান্ত হয়েছে । পুলিশকে জানিয়েও কোনও লাভ হয়নি। বাধ্য হয়ে আমরা আন্দোলনে নেমেছি । এছাড়া অন্য কোন পথ আমাদের সামনে খোলা নেই ।”

 

এদিকে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলার দায় সম্পূর্ণ অস্বীকার করেছে তৃণমূল । মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের তৃণমূল কংগ্রেসের উপপ্রধান নির্মল করের বক্তব্য, “বিজেপি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন অভিযোগ করছে । ওদের নেতা সুনীল সিংয়ের যে অভিযোগ ওর দলের কর্মীর গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে, তা কি করে সম্ভব ? সুনীলের সঙ্গে সি আর পি এফ থাকে সব সময় । যখন হামলা চালানো হয়েছে বলছে, তখন কি সি আর পি এফ ঘুমিয়ে ছিল ? সরকারি জায়গায় মূর্তি স্থাপন করতে গেলে সরকারের অনুমতি ছাড়া সেটা সম্ভব নয় বলে জানান নির্মল বাবু । এদিকে এই ঘটনায় মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় নতুন করে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়েছে । যে কোন ধরনের বড় গণ্ডগোল এড়াতে মোহনপুর গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকায় চলছে পুলিশি টহল ।

Related Articles

Back to top button
Close