fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

ফের পাকিস্তানে সংখ্যালঘু অত্যাচার, অপহরণ করে বিয়ের অভিযোগ শিখ তরুণীকে

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানে ফের হিন্দু তরুণীকে অপহরণের অভিযোগ উঠল। ঘটনার পর মেয়েটির পরিবারের তরফে স্থানীয় থানায় এফআইআর দায়ের করা হয়। কিন্তু কোনও ব্যবস্থা নেয়নি প্রশাসন। এর জেরে ফের প্রমানিত হয়ে গেল, আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারতের দাবি কতটা যুক্তিযুক্ত।পাকিস্তানে দিনের পর দিন সংখ্যালঘুদের উপর অত্যাচার বাড়ছে। একের পর এক সংখ্যালঘু মেয়েদের ধর্মান্তরিত করে বিয়ে করার অভিযোগ উঠছে মুসলিম ছেলেদের বিরুদ্ধে। এবার এক শিখ সম্প্রদায়ের ২২ বছরের তরুণীকে অপহরণের অভিযোগ উঠল। পাকিস্তান অধিকৃত পাঞ্জাবের অ্যাটক জেলার হাসানবদল শহরের বাসিন্দা ওই তরুণী। শিখদের বিখ্যাত ধর্মস্থান পাঞ্জা সাহিব গুরুদ্বারের কাছে একটি জায়গায় পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে থাকতেন ওই তরুণী।

জানা গিয়েছে, বাড়ি থেকে ময়লা ফেলতে বেড়িয়েছিলেন ওই তরুণী। এরপরেই নিখোঁজ হয়ে যায় সে। মেয়েটির পরিবারের তরফে অভিযোগ দায়ের করা হয় স্থানীয় থানায়। কিন্তু পুলিশের পক্ষ থেকে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ।এখনও পর্যন্ত কাউকে ফ্রেফতার করেনি পুলিশ।

[আরও পড়ুন- পাশবিক, পুত্র সন্তানের আশায় গর্ভবতী স্ত্রী’র পেট কেটে লিঙ্গ জানার চেষ্টা স্বামীর]

এই প্রসঙ্গে জেলা পুলিশের সাব ইন্সপেক্টর তাহির ইকবাল জানান যে, নিখোঁজ হওয়ার পর দিন ওই তরুণী তাঁর বাবাকে একটি মেসেজ পাঠায়। যেখানে সে জানায় যে, মেয়েটি নিজের ইচ্ছায় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে একটি মুসলিম যুবককে বিয়ে করেছে। ওই তরুণীর সন্ধানে তল্লাশি চালানো হচ্ছে। তাঁর খোঁজ পাওয়া গেলেই জবানবন্দি রেকর্ড করা হবে।

পাকিস্তান শিখ গুরুদ্বার প্রবন্ধক কমিটির সাধারণ সম্পাদক সর্দার অমর সিং বলেন যে, ওই তরুণী নিজের বাবার বাড়ির কাছ থেকে নিখোঁজ হয়ে যায়। তিনি আরও জানিয়েছেন যে, এই বিষয়ে মেয়েটির পরিবারের তরফে ধর্মীয় বিষয়ক মন্ত্রী নুরুল হোক কোয়াডরির সঙ্গে দেখা করা হয়েছে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন সংখ্যালঘু বিষয়ক মন্ত্রী আইজাজ আলম অগাস্টাইন।

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close