fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শিলিগুড়ি কলেজের অধ্যাপক ও উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিরুদ্ধে ঘুষ নিয়ে পাশ করিয়ে দেওয়ার অভিযোগ

কৃষ্ণা দাস, শিলিগুড়ি: টাকা দিলেই পাওয়া যায় ডিগ্রি। পড়াশুনা না করেও শুধুমাত্র টাকার জোড়ে পরীক্ষার নম্বর বাড়িয়ে পাশ করিয়ে দেওয়া হয় এমনই চাঞ্চল্যকর অভিযোগ উঠল উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয় ও শিলিগুড়ি কলেজের এক অধ্যাপকের বিরুদ্ধে। শিলিগুড়ি কলেজের এক ছাত্রীর সাথে কলেজের অধ্যাপকের কথোপকথনের অডিও ক্লিপ ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। কলেজের অধ্যাপকের ছবি দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ছি ছি রব উঠে গিয়েছে। ইতিমধ্যেই ওই অধ্যাপকের নামে শিলিগুড়ি কলেজে মেল করে লিখিত অভিযোগ জানিয়েছে ওই ছাত্রী।

অভিযোগ পত্রের মেলটি উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফরোয়ার্ড করেও দিয়েছে কলেজ কর্তৃপক্ষ। মাটিগাড়া থানায় ওই অধ্যাপকের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ জানিয়ে পুলিশের পাশাপাশি বিশ্ববিদ্যালয় কতৃপক্ষও বিভাগীয় তদন্ত করে অভিযোগ প্রমাণিত হলে অধ্যাপক সহ বিশ্ববিদ্যালয়ের যে বিভাগের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে বলে জানা গিয়েছে। অভিযুক্ত শিক্ষক তার বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে পরপর তিনটি অডিও ক্লিপ ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। অডিওর কথোপকথন ইংরেজি ও হিন্দি ভাষায়। তাতে শোনা যাচ্ছে এক ছাত্রী টেলিফোন করে অধ্যাপককে তার নম্বর বাড়িয়ে দেওয়ার কথা বলছে। অধ্যাপক বলছে এই যে, উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের টাকার বিনিময়ে নাম্বার বাড়িয়ে দেওয়ার কাজ করে থাকে যারা তারা চাইছেন ১০ হাজার টাকা। টাকা পেলেই তারা পাশ করিয়ে দেবে। ১০ হাজার টাকা অ্যাডমিট কার্ডের প্রিন্ট আউট নিয়ে তার বাড়িতে আসতে বলেন ছাত্রীকে এরপর বিশ্ববিদ্যালয়ের যাওয়ার কথাও বলেন।

এদিকে অডিও ক্লিপে অধ্যাপক তার বাড়ির পুরো ঠিকানা ছাত্রীকে বলেন। অডিওর স্বর ও বাড়ির ঠিকানা শুনে শিলিগুড়ি বাসিরা বোঝেন এটি অমিতাভ কাঞ্জিলালের আওয়াজ। বামপন্থী মতাদর্শভাবাপন্ন হওয়ায় তৃণমূলে ও বিজেপির তরফে তার ছবি দিয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় নানান ভবে তাকে অপদস্ত করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে শিলিগুড়ি কলেজের প্রিন্সিপাল সুজিত ঘোষ জানান, বিষয়টি তিনি শুনেছেন। উনি এই কলেজের অধ্যাপক এটা দুর্ভাগ্যের বিষয়। উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশ মতো পদক্ষেপ নেওয়া হবে। শিলিগুড়ি কলেজের পরিচালন সমিতির সভাপতি জয়ন্ত কর জানান মেলের মাধ্যমে ছাত্রীটি অমিতাভ কাঞ্জিলালের নাম উল্লেখ করে লিখিত অভিযোগ জানায়েছে। সেই মেলটি বিশ্ববিদ্যালয় ফরোয়ার্ড করা হয়েছে। এছাড়া ১৪ তারিখ কলেজে একটা মিটিং হওয়ার এমনিতেই কথা রয়েছে সেখানে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করা হবে।

উত্তরবঙ্গ বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্টার দীলিপ সরকার বলেন যে, এদিন বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকায় মেলটা এসে থাকলেও দেখা হয়নি। বৃহস্পতিবার বিকেলে একটা অডিও পাই ভাইস চ্যান্সেলার অডিওটা ফরোয়ার্ড করে। তারপরই আমরা কন্ট্রোলার বিভাগকে সতর্ক করি ও কারা যুক্ত ও এই ঘটনার কতটা সত্যতা রয়েছে সব বিষয় জানার চেষ্টা করছি। তাছাড়া অভিযোগ পাওয়ার পর শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকার পরও প্রশাসনিক ভবন খোলা থাকবে এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করার জন্য।

এ বিষয়ে অমিতাভ কাঞ্জিলালা বলেন যে, শুধুমাত্র অডিও ক্লিপের ওপর ভিত্তি করে অভিযোগ। তাই আমি কোনো প্রতিক্রিয়া দিতে চাছি না।

Related Articles

Back to top button
Close