fbpx
আন্তর্জাতিকএকনজরে আজকের যুগশঙ্খগুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

ক্ষমতাশীল নারীর তালিকায় নির্মলা

নিউ ইয়র্ক: ফোর্বসের ১০০ ক্ষমতাশীল নারীর তালিকায় স্থান করে দিলেন মার্কিন উপরাষ্ট্রপতি কমলা হ্যারিস থেকে শুরু করে ভারতের কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। তালিকায় রয়েছেন আরও তিন ভারতীয় মহিলা- বায়োকনের প্রতিষ্ঠাতা কিরণ মজুমদার শো, এইচসিএল এন্টারপ্রাইজের সিইও রোশনি নাদার মালহোত্রা এবং ল্যান্ডমার্ক গ্রুপের প্রধান রেণুকে জগতিওয়ানি। বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এই তালিকায় জায়গা পেয়েছেন। তিনি রয়েছেন ৩৯তম স্থানে। তবে এবার বিশ্বের ১০০ ক্ষমতাশীল নারীর তালিকায় ঠাঁই করে নিতে ব্যর্থ হয়েছেন কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধী।

 

তালিকায় প্রথম নাম জার্মান চ্যান্সেলর অ্যাঞ্জেলা মার্কেলের। টানা ১০ বছর ধরেই ফোর্বসের সবচেয়ে ক্ষমতাশীল নারীর তালিকায় প্রথম স্থান ধরে রেখেছেন মার্কেল। দ্বিতীয় স্থানে ক্রিশ্চিনা লগার্দে। তিনিও টানা দু’বছর এই তালিকা দখল করলেন। তৃতীয় স্থানে হবু মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট কমলা হ্যারিস। তালিকায় নির্মলার স্থান ৪১ নম্বরে। রোশনির স্থান ৫৫ এবং কিরণ রয়েছেন ৬৮তম স্থানে। জগতিয়ানির স্থান ৯৮ নম্বরে।

 

ফোর্বস জানিয়েছে, বিশ্বের মোট ১০টি দেশের প্রধান এবং ৩৮ সংস্থার সিইও এই তালিকায় রয়েছেন। এঁদের সবার কাজের ক্ষেত্র আলাদা। কিন্তু সবাই নিজ ক্ষেত্রে অত্যন্ত প্রভাবশালী। সবচেয়ে ক্ষমতাশালী ভারতীয় মহিলাদের মধ্যে সবার উপরে স্থান অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামনের। ফোর্বস মনে করছে, বিশ্বের বৃহত্তম গণতন্ত্রের অর্থমন্ত্রীর পদে থাকার দরুন এমনিতেই চূড়ান্ত প্রভাবশালী নির্মলা। সেইসঙ্গে তিনি আবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আস্থাভাজন।

 

মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে সাফল্যের সুবাদে কমলা হ্যারিস এই প্রথমবার ফোর্বসের তালিকায় প্রথম ১০০ জনের মধ্যে জায়গা পেলেন। কমলাই মার্কিন মুলুকের প্রথম ১০০ জনের মধ্যে জায়গা পেলেন। কমলাই মার্কিন মুলুকের প্রথম মহিলা ভাইস প্রেসিডেন্ট হতে চলেছেন। স্বাভাবিকভাবেই প্রভাবশালীদের তালিকায় তিন নম্বরে তিনি। এবারের তালিকায় কোভিড পরিস্থিতির বিরুদ্ধে লড়াই করা মহিলারা গুরুত্বপূর্ণ স্থান দখল করেছেন বলে জানিয়েছে ফোর্বস। এতে অন্যতম উল্লেখযোগ্য নাম নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জেসিন্ডা আর্ডেন। আর্ডেন তাঁর দেশে করোনার প্রথম এবং দ্বিতীয় ঢেউ অত্যন্ত সাহসিকতার সঙ্গে বলিষ্ঠ হাতে মোকাবিলা করেছেন। তালিকায় ৩২ নম্বরে রয়েছেন তিনি। একইভাবে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইং-ওয়েনের বিচক্ষণতার ফলে ২৩ মিলিয়ন জনসংখ্যার মাত্র ৭ জন এই মারণ ভাইরাসে প্রাণ হারিয়েছেন। তাঁর এই কৃতিত্বের জন্য ফোর্বসের ১০০ ক্ষমতাশালী মহিলার তালিকায় তিনি রয়েছেন ৩৭ নম্বর স্থানে।

 

 

 

 

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close