fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

রাজ্যেই দক্ষতা অনুযায়ী কাজ দিতে পরিযায়ী শ্রমিকদের ‘স্কিল ম্যাপিং’ শুরু রাজ্যের

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: একসময় বাংলায় কোন কর্মসংস্থানের দিশা খুঁজে না পেয়ে এরা সকলেই পাড়ি দিয়েছিলেন ভিন রাজ্যে। কিন্তু মহামারী সংক্রমণের ফলে এরা নিজেদের রাজ্যে ফিরে আসতে বাধ্য হয়েছেন। আর একসঙ্গে সকলকে ফিরে পেয়ে রাজ্যকে উন্নয়নের পথে এগোতে শ্রমিক ঘাটতি পূরণ করতে চাইছে রাজ্য সরকার।

 

 

ইতিমধ্যেই ভিন রাজ্য থেকে বাংলায় ফেরা পরিযায়ী শ্রমিকদের কর্মসংস্থানের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। হিন্দিতে থেকে ফেরার পর শ্রমিকদের বিকল্প কর্মসংস্থান না দিলে পরবর্তী পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে ফের তারা ভিন রাজ্যে ফিরে যেতে পারেন। কিন্তু কোন শ্রমিক কি কাজে দক্ষতা না জানলে তাকে সেভাবে বিকল্প কর্মসংস্থান দেওয়া সম্ভব নয়। ইতিমধ্যেই আইটি কর্মীদের জন্য কর্মভূমি পোর্টাল বলে একটি পোর্টাল চালু করা হয়েছে। এবার প্রতিশ্রুতি রাখতে পরিযায়ী শ্রমিকদের ‘স্কিল ম্যাপিং’ শুরু করছে রাজ্য সরকার।

 

 

নবান্ন সূত্রে খবর, এমপ্লয়মেন্ট ব্যাংকের মাধ্যমে তালিকাভুক্ত হবে পরিযায়ী শ্রমিকদের নাম। সেখানেই স্পষ্ট উল্লেখ থাকবে, যে কোন শিল্পতালিকায় তিনি অন্তর্ভুক্ত হবেন। অর্থাৎ দক্ষতা ও ট্রেডের ভিত্তিতে সেই পরিযায়ী শ্রমিক নির্দিষ্ট ক্ষেত্রে চাকরি পাবেন। স্কিল ম্যাপিংয়ের পর বোঝা যাবে যে কোন ট্রেডে কত দক্ষ শ্রমিক রয়েছেন। সেই অনুযায়ী তখন অ্যাকশন প্ল্যান করা হবে। ট্রেড ও দক্ষতা অনুযায়ী ম্যাপিং করা হবে জেলা ধরে ধরে। প্রাথমিকভাবে নবান্ন রাজ্য শ্রমদপ্তরকে গোটা বিষয় দেখভালের দায়িত্ব দিয়েছে।দফতর সূত্রে খবর, পরিযায়ীদের সম্পর্কে এমপ্লয়মেন্ট এক্সচেঞ্জের মাধ্যমেও তথ্য জোগাড় করা হবে।

 

 

আপাতত সমীক্ষা অনুযায়ী, নির্মাণ শ্রমিক, জরি বা জুয়েলারির কাজে, আসবাবপত্রের সঙ্গে যুক্ত, অ্যাপারেল অ্যান্ড টেলারিং, ছুতোর, হস্তশিল্পী, পেইন্টার, ডেটা এন্ট্রি অপারেটর, ড্রাইভার, সেলস পার্সোনেল, গাড়ি ও মোটর সাইকেল মেকানিক, কলের মিস্ত্রি, ইলেকট্রিশিয়ান, কুকিং ক্ষেত্রকে আলাদা করা হবে বলে ঠিক হয়েছে।পরে এঁদের সামাজিক সুরক্ষা প্রকল্পে আনা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close