fbpx
পশ্চিমবঙ্গব্লগহেডলাইন

করোনার করুণ সময়ে নদিয়ার গরীব ছাত্রছাত্রীদের পাশে দাঁড়ালেন সমাজসেবী নীহারিকা

শংকর দত্ত, কলকাতা : প্রশান্ত ঘোষ মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশন অবৈতনিক শিক্ষা কেন্দ্রে দুঃস্থ দরিদ্র ছাত্রছাত্রীদের পড়ানো হয়। নদিয়ার তাঁতিগাছিতে অবস্থিত এই শিক্ষা কেন্দ্রের ছাত্র-ছাত্রীদের সারা বছর ধরে বিভিন্ন ধরনের সহযোগিতা করে কলকাতার ডিভাইন ব্রেথ। পুজোর আগে তাদের হাতে যেমন নতুন পোশাক তুলে দেওয়া হয় এই সংস্থার পক্ষ থেকে পাশাপাশি বর্ষাকালে এবং শীতকালেও শিক্ষা সামগ্রী সহ অন্যান্য ভাবে সহযোগিতা করে ডিভাইন ব্রেথ।

সংস্থার প্রধান নীহারিকা মুখোপাধ্যায় করোনা অতিমারির এই কঠিন পরিস্থিতিতে এখানকার দুঃস্থ দরিদ্র ছাত্র-ছাত্রীদের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন। উত্তর কলকাতা মহিলা তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক শিক্ষিকা ও সমাজসেবী হিসাবে পরিচিত নীহারিকা এদিন যুগশঙ্খকে জানান, ‘আমরা আমাদের ক্ষুদ্র ক্ষমতা নিয়ে সারা বছর মানুষের পাশে থাকার চেষ্টা করি। আর এই দুর্দিনে মানুষ যদি মানুষের সাহায্যে একটু এগিয়ে না আসে,তাহলে মানুষ জন্মটাই বৃথা।’

প্রসঙ্গত শুধু করোনা সমস্যায় নয়,তাঁর সংস্থা ভূমিকম্প, আইলা সহ যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগের সময় অসহায় গৃহহীন, অন্ন বস্ত্র হীন মানুষের পাশে গিয়ে দাঁড়ায়। তাঁরা সারা বছর ধরে উত্তর কলকাতার একাধিক বস্তি এলাকা এবং পথ শিশুদের জন্য কাজ করে থাকেন। রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত উত্তর কলকাতার অভিজাত পরিবারের পেয়ে সমস্ত সাদসই নীহারিকা দেবীর এই কাজের সঙ্গে যুক্তও। তারা কখনো বসন্ত উৎসব তো কখনো ভাইফোঁটা, কখনো আবার বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে মধ্যে দিয়ে গরিব পথশিশুদের জন্য নানা বিধ কাজ করেন।

তার কথায়, ‘রাজনীতি টাও করি শুধু মাত্রই আরো বেশি মানুষের সেবা করতে পারবো বলে। তবে আমাদের এইসব উদ্যোগ রাজনীতির বাইরে গিয়ে করতে হয়। বলতে পারেন একেবারেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে।’ এ ব্যাপারে এলাকার মানুষকেও যে তিনি দলমত নির্বিশেষে পাশে পান সেটা বলতেও ভোলেননি।এদিন নদিয়ার ওই অতি সাধারণ ছাত্রীছাত্রীদের পাশে থেকে চাল, আলু, সোয়াবিন, সাবান , বিস্কুট সহ খাদ্য সামগ্রী তারা তুলে দেন। ভবিষ্যৎ-এ আবার দরকার হলে তাঁরা পাশে দাঁড়াবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তাঁরা।

প্রসঙ্গত, এই কঠিন পরিস্থিতিতে চরম দুর্দশার মধ্যে পড়েছে এই সব পড়ুয়াদের পরিবারগুলি। অভিভাবকরা রুজি রুটি হারানোই একপ্রকার না খেয়েই দিনযাপন করতে হচ্ছে তাদের। তাদের এই দুর্দশার খবর পাওয়া মাত্রই সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন নীহারিকা মুখোপাধ্যায়। এই কঠিন পরিস্থিতিতে লকডাউন চলার জন্য তিনি নিজে হাজির হতে না পারলেও প্রশান্ত ঘোষ মেমোরিয়াল ফাউন্ডেশনের সদস্যদের মাধ্যমে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়ার ব্যবস্থা করেছেন।

Related Articles

Back to top button
Close