fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

তৃণমূলের ‘সোজা বাংলায়’ ভার্চুয়াল জবাব বঙ্গ বিজেপির

পার্থ ধাড়া, কলকাতা: সমগ্র বিশ্বের পাশাপাশি ভারতেও করোনা পরিস্থিতি ক্রমশ ভয়াবহ হয়ে উঠছে আর সেই কারণে সারা দেশ থেকে এখনও সম্পূর্ণভাবে লকডাউনও তোলা সম্ভব হয়নি । এরই মধ্যে আগামী বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে শাসক-বিরোধী সব পক্ষই । পাশাপাশি এবার প্রচারের বিষয়েও ভাবতে হচ্ছে সব দলকেই । কারণ এই করোনা পরিস্থিতিতে মিটিং মিছিল সবই প্রায় বন্ধ । তাই সব পক্ষকেই নির্ভর করতে হচ্ছে মিডিয়া আর সোশ্যাল মিডিয়ার উপর । এমন পরিস্থিতিতে তর্ক-বিতর্কের নতুন বিষয় তৃণমূলের ‘সোজা বাংলায় বলছি’ অভিযান ।

গত রবিবার এই অভিযানের সূচনা হয় । এই অভিযানের মাধ্যমে তৃণমূল গত নয় বছরে তাদের সরকারের বিভিন্ন কার্যকারিতাকে ছোট ছোট বক্তব্যের মাধ্যমে তুলে ধরবে । সপ্তাহে তিনদিন একটি করে ভিডিও আপলোড করা হবে বলে জানান তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ওব্রায়েন । গত রবিবার একটি ভিডিও আপলোড করা হয় , যাতে দাবি করা হয় যে বাংলায় বেকারত্বের হার সবচেয়ে কম । তৃণমূলের এই অভিযানকে কটাক্ষ করে রাজনৈতিক বিরোধীতা শুরু করল বঙ্গ বিজেপি । আসানসোলের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় এ বিষয়ে মুখ খুলে ছোট ছোট কতকগুলো ভিডিও প্রকাশ করেন সোশ্যাল মিডিয়ায় । তিনি বলেন,’ খুব ক্যাজুয়ালি কিন্তু সিরিয়াসলি সোজা বাংলায় বলছি তৃণমূল হঠাও, মমতা দিদি হঠাও, বাংলা বাঁচাও। ওনার একটি সুস্থ,সবল,আনন্দময় জীবন কাটুক এই শুভেচ্ছা জানাই । উনি দীর্ঘায়ু হন, একজন লড়াকু নেত্রী হিসাবে উনি আনন্দে থাকুন কিন্তু ওনার রাজনৈতিক নৃশংসতা ২০২১ এ সাফ হয়ে যাক । ঊনিশে হাফ করেছি একুশে সাফ করবই ‘ ।

পাশাপাশি তিনি তৃণমূলের এই ‘সোজা বাংলায় বলছি ‘ কর্মসূচির বিষয়ে বলেন যে মানুষের কোটি কোটি টাকা খরচ করে এই অভিযানে আসলে তিনি বাঙালী আবেগকে উস্কে দিতে চেয়েছেন । যেহেতু বিজেপির সর্বভারতীয় নেতারা বাংলায় এসে হিন্দীতে বক্তৃতা দেন তাই মুখ্যমন্ত্রী বিজেপিকে একটি অবাঙালি দল হিসেবে দেখাতে চেয়েছেন । কিন্তু বিজেপি তো সর্বভারতীয় দল । তৃণমূল তো নামে সর্বভারতীয় দল । কারণ বাংলার বাইরে যেকটি জায়গায় ভোটে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছে তৃণমূল, তা সে দিল্লি, অসম, ত্রিপুরা, ওড়িশা কিংবা আন্দামান- সব জায়গাতেই জমানত জব্দ হয়েছে । কিন্তু বিজেপি প্রকৃতই সর্বভারতীয় দল ।

 

পাশাপাশি অন্য একটি ভিডিওতে বাবুল সুপ্রিয় তৃণমূল নেতৃত্বকে কটাক্ষ করে বলেন, ‘তৃণমূলে একটাই পোস্ট, বাকি সব ল্যাম্পপোস্ট । এখানে দিদি যা বলেন সেটাই সব । কিন্তু বিজেপি ব্যক্তিকেন্দ্রীক পরিবারতান্ত্রিক দল নয় । বিজেপিতে অনেক নেতা, সকলে মিলে বসে আলোচনা করেই কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয় । বিজেপি সর্বভারতীয় দল । দলে বাঙালীর পাশাপাশি অনেক অবাঙালী নেতাও আছেন । তাঁদের সকলের ভালোবাসা ও গাইডেন্সেই আমরা পশ্চিমবঙ্গে একটি স্বচ্ছ সরকার গড়তে পারব । এই ‘সোজা বাংলায় বলছি ‘ অভিযান চালিয়ে আপনি বাঙালী আবেগকে উস্কে দিতে চাইছেন । কিন্তু মানুষ এত বোকা নয় । গত নয় বছরে মানুষকে অনেক বোকা বানিয়েছেন । এটা আপনার অপরিণত মস্তিষ্কপ্রসূত একটি অভিযান । এটি আগের ‘দিদিকে বলো’ কর্মসূচির মতো মুখ থুবড়ে পড়বে এবং মানুষের ভোটে গণতান্ত্রিকভাবে আপনার সরকারকে উৎখাত করা হবে ।’

শুধু বাবুল সুপ্রিয়ই নন । পাশাপাশি বঙ্গ বিজেপির যুবমোর্চার রাজ্যসভাপতি এবং বিষ্ণুপুরের সাংসদ সৌমিত্র খাঁও ভিডিও প্রকাশ করেন । তিনি বলেন যে, ‘সোজা বাংলায় বলছি তৃণমূল চোরদের দূর হঠাতে হবে আর কালীঘাটের মমতা দিদিকে পশ্চিমবঙ্গ সরকার থেকে দূর হঠাতে হবে ।’ এই লকডাউন পরিস্থিতিতে তৃণমূল-বিজেপির ভার্চুয়াল বাকবিতণ্ডা বঙ্গ রাজনীতিতে অভিনবত্ব আনছে । শুধু তাই নয়, বাংলার মানুষের কাছেও তা বেশ আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে ।

Related Articles

Back to top button
Close