fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

জামিন পেয়ে আসামীদের তান্ডব, খেজুরিতে জখম ৪

ভীষ্মদেব দাশ, পূর্ব মেদিনীপুর: জামিন পেয়ে পুত্রহারা পরিবারের সদস্যদের মারধর করার অভিযোগ উঠল আসামীদের বিরুদ্ধে।

 

প্রসঙ্গত গত ১৫ই জুলাই, ২০১৯ তালপাটি কোষ্টাল থানা এলাকার ওয়াসিলচকে অমৃতভারতী বিদ্যাভবনের সেফটি ট্যাঙ্ক থেকে উদ্ধার হয়েছিল বিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রের মৃতদেহ। মৃত বিশ্বজিত পাত্র দ্বাদশ শ্রেণিতে পড়ত।টিউশন পড়তে গিয়ে নিখোঁজ হয়েছিল। পরিবারের লোকজন চারিদিক খোঁজাখুঁজি করলেও বিশ্বজিতকে পায়নি। পুলিশের দ্বারস্থ হলেও জীবন্ত বিশ্বজিতকে পুলিশ খুঁজে পায়নি৷ অবশেষে নিখোঁজ হওয়ার কয়েকদিন পরে বিদ্যালয় চলাকালীন দুর্গন্ধ ছড়ালে বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ পুলিশে খবর দেয়। তারপর পুলিশ এসে বিশ্বজিতের পচা-গলা মৃতদেহ উদ্ধার করে। এরপরে মৃতের বাবার অভিযোগের ভিত্তিতে অভিযুক্ত লালু পাত্র, রবীন্দ্র পাত্রকে কোষ্টাল থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করেন।

 

অভিযুক্তদের কাঁথি আদালতে তোলা হলে আদালত পুলিশি হেপাজতের নির্দেশ দেন। বেশ কয়েক মাস জেলে থাকার পরে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে জামিন পান আসামীরা। আসামীরা জামিন পাওয়ার পর বাড়ি ফিরেই মৃত ছাত্রের বাবা শঙ্কর পাত্রকে মামলা তুলে নেওয়ার হুমকি দেন বলে অভিযোগ। গত সোমবার সকালে মৃতের মা লক্ষীরানী পাত্র নদীর ধারে গরু নিয়ে যাওয়ার সময় আসামী লালু পাত্র, রবীন্দ্র পাত্র সহ কয়েকজন মিলে গাছে বেঁধে মারধর ও শ্লীলতাহানি করে বলে অভিযোগ উঠেছে।

 

শঙ্করবাবু বলেন, খবর পেয়ে দৌড়ে যায় আমার মা অঞ্জলি পাত্র, ছোট মেয়ে সহ ভাইঝি। ঘটনাস্থলে গেলে আসামীরা তাদেরকে নৌকার কাঠ দিয়ে মারধর করে। খবর পেয়ে তালপাটি কোষ্টাল থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে আহতদের উদ্ধার করে জনকা প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করেন। কোষ্টাল থানার ওসি নাড়ুগোপাল বিশ্বাস বলেন, দুপক্ষই মারধরের অভিযোগ দায়ের করেছে। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close