fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণদেশপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কেন্দ্রের কাছে আমফানকে জাতীয় বিপর্যয় ঘোষণার দাবি সোমেনের

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়,কলকাতা: ‘আমফানকে জাতীয় বিপর্যয় ঘোষণা করা হোক।’ কেন্দ্রের কাছে দাবি জানালেন প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি সোমেন মিত্র। ঝড়ের পূর্বাভাস দিয়ে আগেই দুই ২৪ পরগনা ও পুর্ব মেদিনীপুর সহ গাঙ্গেয় পশ্চিম বঙ্গ ও উপকূলীয় অঞ্চলে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা জানিয়েছিল আলিপুর আবহাওয়া দফতর। সেই মতই বুধবার রাতের কয়েক ঘন্টার মধ্যেই তছনছ করে দিয়ে যায় পশ্চিমবঙ্গের মানচিত্র। ফলে চাষবাস থেকে ঘরবাড়ি ও ফসল সাধারণ মানুষের অনেক ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে। এর ভার একা কোনও রাজ্য সরকারের পক্ষে সম্ভব নেওয়া সম্ভব নয়। তাই সোমেন এই বিপর্যয়কে সাধারণ মানুষের স্বার্থে ‘জাতীয় বিপর্যয়’ ঘোষণার দাবি জানান।

এ প্রসঙ্গে সোমেন বলেন, ‘আমফানের প্রভাবে বাংলার ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ এখনও সরকারি স্তরে ঘোষণা করা হয়নি ঠিকই, তবুও যা খবর পাচ্ছি তা অত্যন্ত মর্মান্তিক। এই বিপর্যয় সামলানোর জন্য সব স্বীকৃত রাজনৈতিক দলকে সঙ্গে নিয়ে একটি নির্দিষ্ট পরিকল্পনা করা প্রয়োজন। আমরা করোনা নিয়েও বারবার রাজনীতি না করার কথা বলেছি , আজও বলছি রাজনীতির উর্দ্ধে থেকে কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকার মানুষের পাশে থাকুক।’

ঝড়ের ফলে দক্ষিণবঙ্গে একাধিক এলাকায় কাঁচা বাড়ি মাটিতে মিশেছে। এ বিষয়ে সোমেন বলেন, ‘দক্ষিণবঙ্গের প্রায় প্রতিটি জেলায় সব কাঁচা বাড়ি ভেঙে গেছে। জমির ফসল শেষ হয়ে গেছে , গ্রাম পেরিয়ে শহরেও এই সাইক্লোনের প্রভাব মারাত্মক। মৃত ও আহত মানুষের পরিবারের জন্য তাঁদের ব্যাঙ্কের খাতায় সরাসরি আর্থিক সাহায্যের দাবি জানাচ্ছি। রাজ্য সরকারের কাছে আমাদের দাবি, সরকারি স্তরে আধিকারিকদের নির্দিষ্ট দায়িত্ব দিয়ে, দলদাস না হয়ে প্রতিটি বিপর্যস্ত মানুষের জন্য কাজ করতে বলুন।’

বাংলার পাশাপাশি ওড়িশা রাজ্যের জন্য সমবেদনা জানিয়ে সোমেন আরও বলেন, ‘আমফানের প্রভাব বাংলা ছাড়াও ওড়িশায় পড়েছে। একরাতে ভেঙে গিয়েছে অর্থনৈতিক মেরুদন্ড।’

Related Articles

Back to top button
Close