fbpx
কলকাতাহেডলাইন

‘কেউ মত পরিবর্তন করলে তিনিই আপনাদের জানাবেন’ শুভেন্দুকে নিয়ে বললেন হতাশ সৌগত

তৃণমূলের সঙ্গে কি শুভেন্দুর দূরত্ব আরও বাড়ল?

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:   বিদ্রোহী তৃণমূল বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারী যাতে দলেই থাকেন, সেটা দেখার ভার নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছিলেন তিনি। গতকাল রাতে হাইভোল্টেজ বৈঠকের পর যথেষ্ট আত্মবিশ্বাসী দেখাচ্ছিল তাঁকে। সংবাদমাধ্যমকে জানিয়ে দেন শুভেন্দু তৃণমূলেই আছেন, সেখান থেকেই কাজ করবেন। কিন্তু বুধবার দুপুর গড়াতেই ছবিটা পরিষ্কার হয়ে যায়।‘আপনাদের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করা মুশকিল’ সৌগত রায়কে শুভেন্দুর এই মেসেজের পর কার্যত হাল ছেড়ে দিল তৃণমূল।

বৈঠকে রফাসূত্র মিলেছে বলে জানান তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। প্রবীণ তৃণমূল সাংসদ এভাবে সংবাদমাধ্যমে মুখ খোলায় অসন্তুষ্ট শুভেন্দু অধিকারী। এসএমএস করে সে কথা জানিয়েও দিয়েছেন। ফলে আরও একবার জল্পনা শুরু হয়েছে, তৃণমূলের সঙ্গে কি শুভেন্দুর দূরত্ব আরও বাড়ল? সৌগত রায় এ দিন বলেন, ‘গতকাল সন্ধেয় বৈঠকে কথা হয়েছিল। সেটাই সত্যনিষ্ঠ বলেছি। শুভেন্দু অধিকারীর সিদ্ধান্ত বদল করলে তাঁর উচিত সংবাদমাধ্যমে তা বলা।’ তাহলে কি শুভেন্দুর মতবদলের সম্ভাবনা? সৌগতবাবু জানান,’শুভেন্দুর থেকে টেক্সট পেয়েছি। এরপর কেউ মত পরিবর্তন করলে তিনিই আপনাদের জানাবেন।’ দলের সঙ্গে শুভেন্দুর  কি আরও কোনও বৈঠক হবে? ‘না’, জানিয়ে দেন সৌগত।

এদিন সৌগতবাবু বলেন, ‘আমি আপনাদের কাছে সত্যনিষ্ঠার সঙ্গে বলেছি গতকাল মিটিংয়ে যা হয়েছিল। যাকে শুভেন্দু অধিকারী ছাড়া আরও ৪ জন উপস্থিত ছিলাম। যদি উনি ওর মন পরিবর্তন করে থাকেন তাহলে সেটা তাঁর সিদ্ধান্ত নেওয়ার ব্যাপার। তিনি আপনাদের তাঁর সিদ্ধান্ত জানাবেন’। তাঁর কাছে শুভেন্দু অধিকারীর মেসেজ এসেছে বলে স্বীকার করে নেন সৌগত রায়। বলেন. ‘মেসেজটা পেয়েছি, বিস্তারিত জানাবো না’। শুভেন্দুর মেসেজের ব্যাপারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তিনি জানিয়েছেন কি না তাও খোলসা করেননি তিনি। সঙ্গে তিনি বলেন, ‘উনি মত বদলে ফেললে আর কথা বলে লাভ কী?’

আরও পড়ুন: ‘দুয়ারে সরকার’ কর্মসূচি নিয়ে দিলীপ ঘোষকে পাল্টা জবাব ফিরহাদের

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কলকাতায় শুভেন্দু – অভিষেক বৈঠকের পর সংবাদমাধ্যমের কাছে সৌগতবাবু দাবি করেন, ‘সব মিটে গিয়েছে।’ যদিও বুধবার দুপুরে সৌগতবাবুকে মেসেজ করে শুভেন্দু বলেন, ‘আমার বক্তব্যের এখনো সমাধান হয়নি। সবাধান না করেই আমার ওপর সব চাপিয়ে দেওয়া হচ্ছে। ৬ ডিসেম্বর আমার সাংবাদিক বৈঠকে সব বলার কথা ছিল। তার আগেই সংবাদমাধ্যমের কাছে সব বলে দেওয়া হল। আপনাদের সঙ্গে একসঙ্গে কাজ করা মুশকিল। আমাকে মাফ করবেন’।

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close