fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

‘পিসি-ভাইপোর তৃণমূল ছেড়ে শুভেন্দু বিজেপিতে আসুন’, চাঁচাছোলা সৌমিত্র খাঁ!

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: তৃণমূলের  থেকে অনেকদিন ধরেই দূরে সরে যাচ্ছে শুভেন্দু অধিকারী । আর এই নিয়ে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে নানান গুঞ্জনও চলছে। ২১শের বিধানসভা ভোটে রাজ্য জুড়ে জোর প্রস্তুতি শুরু হয়েছে। এবার রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বিজেপি। বিধানসভা ভোটের আগেই দল ভাঙানোর খেলায় মেতেছে যুযুধান দুই দলই। নন্দীগ্রামের সভা মঞ্চ থেকে শুভেন্দু অধিকারীর বিস্ফোরক মন্তব্যের পর বিজেপি আরও বেশি করে শুভেন্দুকে নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছে। আর এরমধ্যেই বঙ্গ বিজেপির যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁয়ের  মন্তব্য ঘিরে নতুন করে তৈরি হয়েছে জল্পনা।

বিজেপির সাংসদ তথা বঙ্গ বিজেপির যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ রাজ্যের পরিবহণ মন্ত্রী তথা তৃণমূলের দাপুটে বিধায়ক শুভেন্দু অধিকারীকেকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। এখন প্রশ্ন উঠছে যে, তাহলে শুভেন্দু কি সত্যিই এবার তৃণমূল ছেড়ে গেরুয়া শিবিরে যাচ্ছেন? এখানে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা মুকুল ফ্যাক্টরকে প্রাধান্য দিচ্ছে বেশি। সুত্র থেকে পাওয়া খবর অনুযায়ী, শুভেন্দুকে বিজেপিতে নিয়ে আসার জন্য বড় ভূমিকা পালন করছেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়।নন্দীগ্রামের সভায় রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বিস্ফোরক মন্তব্য করার পরের দিনই তাঁকে বিজেপিতে আহ্বান জানালেন বিজেপির রাজ্য যুব মোর্চার সভাপতি তথা সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। আর তাতে এখন বাংলার রাজনীতি মহলে গুঞ্জন। তা হলে কি সত্যিই বিজেপিতে যোগ দেবেন শুভেন্দু! সত্যিই কি তাঁর সঙ্গে তৃণমূলের দূরত্ব বাড়ছে! না হলে নন্দীগ্রামের মঞ্চ থেকে ওরকম চাচাছোলা ভাষায় কাকে আক্রমণ করলেন তিনি! রবিবার সকালে বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুরে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরবিন্দ মেননকে সঙ্গে নিয়ে ছিন্নমস্তা মন্দিরে পুজো দেন সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। পুজো দেওয়ার পর যুব মোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ বললেন, ”রাজ্যের মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বলতে চাইছেন বাংলার স্বার্থে সরকার পরিবর্তন করা দরকার। শুভেন্দু অধিকারী মানুষের জন্য কাজ করতে চান। তাই আমরা চাই তিনি কালবিলম্ব না করে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিন।”

আরও পড়ুন: সংকটে সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, রক্তে সংক্রমণ নিয়ে উদ্বিগ্ন চিকিৎসকেরা

বিজেপির সাংসদের এই মন্তব্যের পর নতুন করে জল্পনা সৃষ্টি হয়েছে রাজনৈতিক মহলে। একদিকে তৃণমূলের সাথে দিনদিন শুভেন্দু অধিকারীর দূরত্ব বেড়েই চলেছে, আরেকদিকে শুভেন্দু অধিকারীর একের পর এক বিস্ফোরক মন্তব্য ঘিরে চরম অস্বস্তিতে তৃণমূল। যদিও, দুই পক্ষের তরফ থেকে এখনো কারুকে কারোর বিরুদ্ধে কথা বলে শোনা যায়নি। তবে এই সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে মরিয়া গেরুয়া শিবির।

শনিবার নন্দীগ্রামের সভা থেকে শুভেন্দু বলেছিলেন, ‘প্যারাস্যুটে নামিনি। লিফটে উঠিনি। সিঁড়ি ভেঙে উঠেছি। আমরা সবাই লড়াই করে এসেছি। ছোটলোকদের নিয়ে কথা বললে আমি তার উত্তর দিই না। আশ্চর্য হয়ে যাচ্ছি, কেউ কেউ অতীত ভুলে যায়। ধৈর্য্য ও সহ্য ক্ষমতা রয়েছে আমার।” এর পর থেকেই রাজ্যের রাজনীতিতে শুভেনদুর অবস্থান নিয়ে ধোঁয়াশা তৈরি হয়েছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close