fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

নীতীশের সঙ্গে বিজেপির জোট অটুট বোঝাতে বিহারে ই-র‍্যালি করবেন অমিত শাহ

নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি: বিহারে নীতীশ কুমারকে সামনে রেখেই যে বিজেপি এগোতে চায় তা স্পষ্ট হয়ে গেল আরও একবার। আগামী ৯ জুন বিহারে এনডিএ-র প্রচার শুরু করবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ভিডিও কনফারেন্স এবং ফেসবুক লাইভের মাধ্যমে তিনি বিহারের এনডিএ সমর্থকদের সামনে ভাষণ দেবেন। সেই ভাষণে নীতীশ কুমারকেও সঙ্গে রাখতে পারেন অমিত শাহ।
করোনা সঙ্কট কাটিয়ে ওঠার পরেই বাজবে বিহার বিধানসভা নির্বাচনের দামামা। ২০২০ নভেম্বর মাসে হতে পারে নির্বাচন। যদিও অনেক আগে থেকেই নির্বাচনী প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছিল শাসক বিজেপি-জেডইউ জোট। ২০১৯ এর শেষের দিকে বিজেপির তৎকালীন সর্বভারতীয় সভাপতি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ ঘোষণা করেছিলেন বিহারের বিধানসভা নির্বাচনে নীতীশ কুমারকে মুখ্যমন্ত্রী মুুুখ করেই এগোবে তারা। এর মূল কারণ ছিল, ‘জঙ্গল রাজ’ থেকে মুক্তি দিয়ে বিহারকে ভারতের উন্নয়ন ও প্রশাসনের মানচিত্রে ফিরিয়ে দেওয়া ‘ব্রান্ড নীতীশ কুমারে’র স্বচ্ছ ভাবমূর্তিকে ব্যবহার করা। তাছাড়া, বিজেপি জোট ভেঙে দিলে নীতীশ কুমার ফের লালু যাদবের আরজেডির সাথে জোট ফিরে যেতে পারে। কিন্তু সেই সময়  ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে অভূতপূর্ব জয়ের পরেও, দিল্লি, ঝাড়খণ্ড এবং মহারাষ্ট্রের মতো রাজ্য নির্বাচনে বিজেপি অপ্রত্যাশিত ধাক্কা খেয়েছিল। তাই ২০১৫ সালের একলা চলার  ভুলের পুনরাবৃত্তি করতে চায় নি।
কিন্তু করোনা পরিস্থিতি নতুন করে হিসাব বদলে দিয়েছে বলে মনে করেছিলেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। কারণ, করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায়  নীতীশ কুমারের ব্র্যান্ডের ‘সুশান বাবু’ পুরোপুরি মুখ থুবড়ে পড়েছে। অন্যদিকে করোনা পরবর্তী পরিস্থিতিতে বিহারের বেকারত্ব সমস্যা বেড়েছে কয়েকগুণ। কারণ করোনা প্রাদুর্ভাবের আগেই বিহার ১০ শতাংশের বেশি বেকারত্বের সমস্যায় ভুগছিল। সর্বশেষ সিএমআইই তথ্য অনুসারে, জাতীয় চাকরি হারের হার এখন ২৩.৯১ শতাংশে। বর্তমান এক সমীক্ষায় উঠে এসেছে ১০ লক্ষেরও বেশি অভিবাসী বিহারে ফিরে এসেছেন। যা বিহারে বিরাট দুর্দশা তৈরি করতে বাধ্য। আর তাতে নীতীশের ভাবমূর্তি ক্ষুন্ন হবে। তাই একলা চলার সিদ্ধান্ত নিতে পারে বিজেপি।
কিন্তু সেই সমস্ত সম্ভবনা উড়িয়ে দিয়ে জানা গিয়েছে, আগামী সপ্তাহের শুরুতে নীতীশকে সঙ্গে নিয়ে বিহারে ই-র‍্যালি করবেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। পর্যবেক্ষকদের মতে, এর মাধ্যমে তিনি বার্তা দিতে চান, বিহারে জেডি ইউ-এর সঙ্গে বিজেপির জোট অটুট। এবং আগামী বিধানসভা নির্বাচনে এনডিএর মুখ নীতীশই।

Related Articles

Back to top button
Close