fbpx
দেশহেডলাইন

করোনা মোকাবিলা নিয়ে বিশেষ মন্ত্রীগোষ্ঠীর বৈঠক, সুস্থ হওয়ার হার বেড়েছে বলছে রিপোর্ট

ঋদ্ধিমান রায়: দেশে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা উত্তরোত্তর বৃদ্ধি পাওয়ায় কপালে ভাঁজ কেন্দ্রের। কোভিড ১৯ মোকাবিলায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের নিয়ে গঠিত বিশেষ মন্ত্রী-গোষ্ঠীর ১৩ তম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয় গতকাল। সভাপতিত্ব করেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী ডাঃ হর্ষ বর্ধন। রাজ্যগুলির করোনা হাসপাতাল, পিপিই কিট, আইসলেশন বেড, ভেন্টিলেটর, অক্সিজেন সিলিন্ডার, এন ৯৫ মাস্ক, ওষুধের যোগান সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। মন্ত্রীগোষ্ঠীর তরফে একটি বিবৃতি প্রকাশ করে বলা হয়েছে- প্রায় ১০৪ টি দেশীয় সংস্থা পিপিই কিট ও তিনটি সংস্থা এন ৯৫ মাস্ক প্রস্তুত করছে। এই মুহূর্তে দৈনন্দিন ১ লক্ষের বেশি কিট ও মাস্ক প্রস্তুত হচ্ছে দেশে। সেই সঙ্গে ৫৯০০০ ইউনিট ভেন্টিলেটরের বরাতও দেওয়া রয়েছে, যা নির্মাণের কাজ শুরু হয়ে গেছে ইতিমধ্যে।

মন্ত্রীগোষ্ঠীর পক্ষ থেকে আরো জানানো হয় যে এই মুহূর্তে ভারতে করোনায় মৃত্যুর হার ৩.১ শতাংশ, যেখানে সুস্থ হওয়ার হার ২০ শতাংশেরও অধিক, যা অন্যান্য দেশের তুলনায় যথেষ্ট আশাপ্রদ। পরিসংখ্যান অনুসারে দেখা যাচ্ছে, গতকাল সকাল পর্যন্ত দেশে ২৪,৫০৬ জন করোনায় আক্রান্ত হয়েছে, যার মধ্যে সুস্থ হয়ে উঠেছেন ৫,০৬২ জন। সংগঠিত লক ডাউন এবং হটস্পট অনুসারে এলাকা চিহ্নিত করে স্ট্রাটেজি নির্মাণ কৌশলই এই আশানুরূপ ফল দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন সভাপতি হর্ষ বর্ধন।

আরও পড়ুন: অসময়ে দেখা মিলল ঝাঁকে ঝাঁকে পরিযায়ী পাখির!

পাশাপাশি মন্ত্রীগোষ্ঠী জানায়, দেশের প্রায় ৯২০০০ বেসরকারি সংগঠন, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন খাদ্য ত্রাণ সরবরাহ ও আনুষঙ্গিক সেবার কাজে নিযুক্ত রয়েছে। এছাড়াও কেন্দ্রীয় স্তরে এনসিসি, এনএসএস, নেহরু যুব কেন্দ্রের অসংখ্য স্বেচ্ছাসেবক- স্বাস্থ্যকর্মীদেরও বিভিন্ন রাজ্যের প্রয়োজনীয় এলাকাগুলিতে পাঠানো হচ্ছে। এমনকি এইসব কর্মীদের কোভিড ১৯ এর মোকাবিলার জন্য অনলাইন প্রশিক্ষণও দেওয়া হচ্ছে।

সব মিলিয়ে বর্তমান করোনা পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্র যে যথেষ্ট চিন্তিত এবং ভাইরাস মোকাবিলায় যে কোনোভাবেই রাশ হালকা রাখা হচ্ছে না সেই ইঙ্গিতই পাওয়া যাচ্ছে বিশেষ মন্ত্রী গোষ্ঠীর বৈঠকটিতে। করোনা মোকাবিলায় লক ডাউনের অপরিহার্যতার কথা কেন্দ্র বার বার তুলে ধরছে। এখন দেখার আগামী ৩রা মে লক ডাউন সার্বিক ভাবে তোলা হয়, নাকি কিছু কিছু ক্ষেত্রে রাশ আলগা করে মধ্যপন্থা অবলম্বন করার চিন্তা করে কেন্দ্র।

Related Articles

Back to top button
Close