fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

তীব্র অর্থনৈতিক সংকটে শ্রীলঙ্কা, জারি হল জরুরি অবস্থা

যুগশঙ্খ, ওয়েবডেস্ক: তীব্র অর্থনৈতিক সংকটে শ্রীলঙ্কা। জারি হল জরুরি অবস্থা। শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট গোটাবায়া রাজাপাকসে দেশে জরুরি অবস্থা ঘোষণা করেছেন। বিক্ষুব্ধ শত শত মানুষ তার বাসভবনে চড়াও হওয়ার একদিন পরে গতকাল শুক্রবার রাজাপাকসে নিরাপত্তা বাহিনীকে ব্যাপক ক্ষমতা দিয়ে এ উদ্যোগ নিলেন।

দক্ষিণ এশিয়ার দেশটি জুড়ে প্রেসিডেন্টের ক্ষমতাচ্যুতির দাবিতে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়েছে। এই প্রেক্ষাপটে সেনাবাহিনীকে সন্দেহভাজনদের গ্রেফতার এবং বিনাবিচারে দীর্ঘ সময় আটক করার অনুমতি দিয়ে কঠোর কার্যকর করলেন রাজাপাকসে।

প্রেসিডেন্ট এক ঘোষণায় বলেন, ‘জনশৃঙ্খলা রক্ষা এবং মানুষের জীবনের জন্য প্রয়োজনীয় সরবরাহ ও পরিষেবার রক্ষণাবেক্ষণের জন্য জরুরি অবস্থা ঘোষণা করা হয়েছে। ’

স্বাধীনতার পর থেকে দক্ষিণ এশিয়ার দেশ শ্রীলঙ্কা সবচেয়ে সংকটজনক পরিস্থিতিতে রয়েছে। শ্রীলঙ্কার জনসংখ্যা ২ কোটি ২০ লাখ। দেশটির সরকারের কাছে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ নেই। এ কারণে বিদ্যুৎ উৎপাদনের জন্য প্রয়োজনীয় জ্বালানিসহ জরুরি পণ্য আমদানি করতে পারছে না সরকার।

কাগজের অভাবে পরীক্ষা, অধিকাংশ সংবাদপত্রের প্রকাশ বন্ধ। খরচ বাঁচাতে দিনে প্রায় ১০-১৩ ঘণ্টা বন্ধ রাখা হচ্ছে বিদ্যুৎ। এরই প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার পথে নামল সেদেশের মানুষ। কলম্বোর রাজপথে রাষ্ট্রপতির বাসভবনের সামনে জমায়েত হন অনেকে। সেখানে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ বাঁধে বিক্ষোভকারীদের। পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠে। প্রতিবাদীরা আগুন ধরিয়ে দেয় গাড়িতে। ঘটনায় পুলিশ ৪৫ জনকে গ্রেপ্তার করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে রাজধানীর বিভিন্ন অঞ্চলে জারি করা হয়েছে কার্ফিউ। বিক্ষোভকারীদের দাবি, পদত্যাগ করতে হবে রাষ্ট্রপতিকে। ঘটনায় আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন পুলিশকর্মী। তাঁদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রসঙ্গত, প্রবল বিপর্যয়ের মুখে শ্রীলঙ্কা। স্বাধীনতার পরবর্তী সময়ে এটিই শ্রীলঙ্কার সবচেয়ে অর্থনৈতিক সংকট বলে মনে করা হচ্ছে। গত কয়েক সপ্তাহ ধরে দেশে খাদ্য, প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র, জ্বালানি ও গ্যাসের ব্যাপক ঘাটতি দেখা দিয়েছে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close