fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশবিজ্ঞান-প্রযুক্তিহেডলাইন

শুরু কাউন্টডাউন, শনিবার নয়া উপগ্রহ পাড়ি দেবে মহাকাশে, দেখে নিন এর বিশেষত্ব  

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: ফের বড়সড় পদক্ষেপ নিল ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। সবকিছু ঠিকঠাক থাকলে শনিবার  নয়া মহাকাশযান ‘পোলার স্যাটেলাইট লঞ্চ ভেহিকল’(পিএসএলভি)-সি৪৯ মহাকাশে পাড়ি দেবে। সঙ্গে নিয়ে যাবে ইওএস-০১ এবং ৯টি  বিদেশি কৃত্রিম উপগ্রহ। জানা গিয়েছে, এই যান জলবায়ু বদলের আভাস দেবে। এমনকি আবহাওয়ার গতিপ্রকৃতিও ধরবে। রিস্যাট সিরিজের অত্যাধুনিক স্যাটেলাইট ইওএস-০১ (EOS-01) মহাকাশে পাঠাতে চলেছে ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরো।

 

সূত্রের খবর, পিএসএলভি-সি৪৯ রকেটের পিঠে চাপিয়ে এই কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠানো হবে পৃথিবীর কক্ষে। আগামীকাল, শনিবার শ্রীহরিকোটার সতীশ ধবন মহাকাশ গবেষণা কেন্দ্রের লঞ্চ প্যাড থেকে বেলা ৩টে ২ মিনিট নাগাদ মহাকাশে উত্ক্ষেপণ করা হবে এই কৃত্রিম উপগ্রহকে। পৃথিবীর মাধ্যাকর্ষণের মায়া কাটিয়ে কক্ষপথে এই কৃত্রিম উপগ্রহকে বসিয়ে দেবে পোলার স্যাটেলাইট লঞ্চ ভেহিকল বা পিএসএলভি। আরও ৯টি বিদেশি স্যাটেলাইটও মহাকাশে বয়ে নিয়ে যাবে ইসরোর রকে করোনা মহামারীর কারণে স্যাটেলাইটের উত্ক্ষেপণ অনেক পিছিয়ে গেছে। ওদিকে, ইসরোর গগনযান মিশনেও দেরি হচ্ছে। এত মাস পরে স্যাটেলাইট উত্ক্ষেপণ নিয়ে জোর প্রস্তুতি চলছে ইসরোর অন্দরে। কাউন্টডাউন শুরু হয়ে গেছে শুক্রবার রাত থেকেই। টুইট করে ইসরো জানিয়েছে, শ্রীহরিকোটা থেকে এই নিয়ে ৭৬তম স্যাটেলাইটের উত্ক্ষেপণ হচ্ছে। পিএসএলভি রকেটই ৫১ বার কৃত্রিম উপগ্রহ নিয়ে মহাকাশে উড়ে গেছে।

  আরও পড়ুন: থালা হাতে ভিক্ষা করে প্রতিকী আন্দোলনে সামিল হুগলী নদী জলপথ পরিবহনের কর্মীরা

ইসরোর বিজ্ঞানীরা বলেছেন, আবহাওয়ার হালহকিকত পৃথিবীর গ্রাউন্ড স্টেশনে পাঠাবে এই উপগ্রহ। কৃষিকাজে এবং যে কোনও প্রাকৃতিক দুর্যোগের মোকাবিলা করতে এই উপগ্রহের পাঠানো তথ্য খুবই কাজে আসবে। চিন ইতিমধ্যেই আরও ৯টি ‘আর্থ অবজারভেশন স্যাটেলাইট’ পাঠিয়েছে মহাকাশে। তবে ভারতের পরিকল্পনা আরও বড়। ইসরো এ বিষয়ে জানিয়েছে, ২০২৭ সালের মধ্যে আরও সাত হাজার স্যাটেলাইট মহাকাশে পাঠানো হবে। তার প্রস্তুতি শুরু হয়ে গেছে এখন থেকেই। এই কৃত্রিম উপগ্রহগুলি আকারে ছোট, ওজনে হাল্কা। তবে এর কার্যক্ষমতা বিশাল। সীমান্ত পাহারা দেওয়া তো বটেই, এই স্যাটেলাইটগুলির হাই-রেজোলিউশন ক্যামেরা শত্রুদের গোপন ডেরার খোঁজও দিতে পারবে অনায়াসেই। বিশেষত চিন ও পাক সীমান্তে শত্রু সেনার বিন্যাসের খবর পাঠাবে গ্রাউন্ড স্টেশনে। দেশের সুরক্ষার জন্য যা অন্যতম বড় হাতিয়ার হবে বলেই মনে করা হচ্ছে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close