fbpx
কলকাতাশিক্ষা-কর্মজীবনহেডলাইন

৫ সেমিস্টারের প্রাপ্ত সর্বোচ্চ নম্বর দিয়ে ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়ের ফল প্রকাশ করতে চায় রাজ্য শিক্ষা দফতর

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: পাঁচ সেমিস্টারের প্রাপ্ত সর্বোচ্চ নম্বর দিয়ে ৩১ জুলাই এর মধ্যে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের ফল প্রকাশ করতে চায় রাজ্য শিক্ষা দফতর।

এক্ষেত্রে বিগত ৫ সেমিস্টারের প্রাপ্ত সর্বোচ্চ নম্বরের ৮০ শতাংশ দেওয়া হবে। আর বাকি ২০ শতাংশ নম্বর দেওয়া হবে ইন্টারনাল অ্যাসেসমেন্টের ভিত্তিতে। রাজ্য শিক্ষা দফতর সূত্রে এমনটাই জানান হয়েছে। শনিবারই উচ্চ মাধ্যমিকের মত কলজে বিশ্ববিদ্যালয়গুলির সব পরীক্ষা বাতীল ঘোষনা করে ছিল রাজ্য শিক্ষা দফতর। তাদের পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়, যে ভাবে করোনার সংক্রমণের প্রকোপ বাড়ছে তাতে ছাত্র ছাত্রীদের স্বাস্থ্য সুরক্ষার কথা মাথায় রেখে পরীক্ষা নেওয়া সম্ভব নয়। করোনার পরিস্থিতিতে কোনও ভাবে পড়ুয়াদের বিপদের মুখে ঠেলে দেওয়া যাবে না।

তারপর থেকেই রাজ্যের অগণিত কলেজ পড়ুয়াদের মনে ফল প্রকাশ নিয়ে উদ্বেগে তৈরি হয়েছে। কীসের ভিত্তিতে তাঁদের ফলপ্রকাশ করা হবে, তা নিয়ে। এ নিয়ে শনিবারই রাজ্যের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে সুপারিশ পাঠিয়ে দিয়েছে শিক্ষা দপ্তরের কাছে। যেখানে  ফলপ্রকাশের পদ্ধতির কথা সবিস্তরে বলা হয়েছে।

সুপারিশে বলা হয়, স্নাতক স্তরের (UG) পরীক্ষার্থীদের ফাইনাল সেমিস্টারের নম্বর ঠিক করা হবে দুই পর্যায়ে। বিগত ৫টি সেমিস্টারের মধ্যে যে সেমিস্টারে ওই পড়ুয়া সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছেন, সেই সেমিস্টারের নম্বরের ভিত্তিতে শেষ সেমিস্টারের ৮০ শতাংশ নম্বর দেওয়া হবে। বাকি ২০ শতাংশ নম্বর দেওয়া হবে ইন্টারনাল অ্যাসেসমেন্টের ভিত্তিতে। তাঁর আগের সমস্ত সেমিস্টারের (প্রথম থেকে পঞ্চম) পরীক্ষার্থীদের নম্বরের কোনও মূল্যায়ন হবে না। কোনও পরীক্ষা না দিয়েই পরের সেমিস্টারে পড়ার সুযোগ পাবেন তাঁরা। একইভাবে স্নাতকোত্তর (PG) পরীক্ষার্থীদের ক্ষেত্রেও শেষ সেমিস্টারের নম্বরের ৮০ শতাংশ দেওয়া হবে আগের ৩ সেমিস্টারের মধ্যে যে সেমিস্টারে পরীক্ষার্থী সর্বোচ্চ নম্বর পেয়েছেন, তার ভিত্তিতে। বাকি ২০ শতাংশ দেওয়া হবে ইন্টারনাল অ্যাসেসমেন্টের ভিত্তিতে। তবে কোনও পড়ুয়া যদি নিজের প্রাপ্ত নম্বরে সন্তুষ্ট না হন। তাহলে তিনি পরীক্ষা দেওয়ার জন্য আবেদন করতে পারেন। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেই তাঁর পরীক্ষা নেওয়া হবে। তবে তার আগেই অন্য বছরের মতো ভরতি প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে। শিক্ষা দপ্তর বিশ্ববিদ্যালয়গুলিকে জানিয়ে দিয়েছে, আগামী ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে সব ফলাফল প্রকাশ করতে হবে।

দিন দিন সংক্রমণ যে হারে বাড়ছে তাতে অদূর ভবিষ্যতে স্কুল-কলেজ খোলার কোনও সম্ভাবনা নেই। পরীক্ষা নেওয়াটাও ঝুঁকিপূর্ণ। তাই অনিচ্ছা সত্বেও উচ্চমাধ্যমিকে এবং কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে রাজ্যের শিক্ষা দপ্তর। বর্তমান পরিস্থিতিতে ফলপ্রকাশের জন্য এই বিকল্প ব্যবস্থার কথাই ভাবা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close