fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

অন্ডাল এয়ারপোর্টে রাজ্যের মালিকানা ৪৭.‌৪৩ শতাংশ: মুখ্যমন্ত্রী

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: পিপিপি মডেলে তৈরি পশ্চিম বর্ধমানের অন্ডাল বিমানবন্দরের অধিকাংশ শেয়ার নিল রাজ্য। জমিদাতাদের প্রত্যেককে যথাযথ ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। রাজ্যের অধীনে অধিকাংশ শেয়ার থাকায় বিমানবন্দরের কার্যক্রম নিয়ন্ত্রণেও সরকারি কর্তৃত্ব থাকবে বেশি। মঙ্গলবার রানিগঞ্জে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের জনসভা থেকে এই উল্লেখযোগ্য ঘোষণা করলেন মুখ্যসচিব।

২০১১ সালে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকার রাজ্যের ক্ষমতায় আসার আগে অন্ডালে বিমানবন্দর তৈরির জন্য পিপিপি মডেলে জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছিল। পরবর্তীতে চুক্তির মাধ্যমে রাজ্য সরকার জমিদাতাদের ক্ষতিপূরণের কথা জানায়। অন্ডালে কাজি নজরুল বিমানবন্দর চালুর পরও সেভাবে আয় না হওয়ায় তা কার্যত বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। সেই জায়গা থেকে বিমানবন্দরটিকে ফের চাঙ্গা করে তুলতে রাজ্য সরকার হস্তক্ষেপ করল। ৪৮ শতাংশ শেয়ার এল রাজ্যের হাতে। আজ থেকেই জমিদাতাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কাজও শুরু হল।

রানিগঞ্জে এদিনের সভামঞ্চ থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‌৫৮২৪টি পরিবার এয়ারপোর্ট তৈরির জন্য জমি দিয়েছিল। তাঁদের মধ্যে যাঁরা ৩৩ ডেসিমেলের বেশি জমি দিয়েছেন তাঁদের সরকারের তরফ থেকে অন্য জমি দেওয়া হবে। ল্যান্ড ফর ল্যান্ড। যাঁরা ৩৩ ডেসিমেলের কম জমি দিয়েছেন তাঁদের আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হবে। আমরা যা বলি সেটা করি। ১৫২৯টি পরিবারকে জমির পরিবর্তে অন্য জমি তুলে দেওয়া হল আজ। এবং ২১৪৩টি পরিবারকে আর্থিক ক্ষতিপূরণ দেওয়া হল। এভাবে খুবই তাড়াতাড়ি প্রায় ৩৭০০ পরিবারের পাশে আমরা দাঁড়াতে পারলাম। আরও ২১৫২টি পরিবারের হাতে আর্থিক ক্ষতিপূরণ তুলে দেওয়া হবে। গত ৯ বছরে এভাবেই আমরা মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছি।

আরও পড়ুন: স্বৈরাচারী শাসন চলছে, তোপ দাগলেন দিলীপ

পাশাপাশি, বিমানবন্দরকে সচল রাখতে রাজ্য বেশ কিছু পদক্ষেপ নিচ্ছে বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী। কাজকর্ম দেখভালের জন্য মুখ্যসচিব আলাপন বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে একটি কমিটি গঠন করে দিলেন। দেশের বিমানবন্দরগুলি বেসরকারি সংস্থার হাতে তুলে দেওয়ার উদ্যোগ শুরু হয়েছে বিভিন্ন জায়গায়। কেরল-সহ একাধিক রাজ্যের ৩ টি বিমানবন্দর সম্প্রতি কর্পোরেট সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। এ নিয়ে বিতর্কও কম হয়নি। তবে এর ঠিক উলটো পথেই হাঁটলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কারণ, তিনি বরাবরই বেসরকারিকরণের বিরোধী। তাই অন্ডাল বিমানবন্দরের অধিকাংশ শেয়ার নিয়ে তা সরকারি নিয়ন্ত্রণাধীনে আনল তাঁর সরকার।

এদিন শিলিগুড়িতে উত্তরকন্যা অভিযানে বিজেপি কর্মী উলেন রায়ের মৃত্যুর ঘটনায় গেরুয়া শিবিরকে সরাসরি কাঠগড়ায় তুললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এদিন রানিগঞ্জের সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “বিজেপি নিজেরা মিছিল করে নিজেরা লোক মারে। পাবলিসিটি করার জন্য। প্রোপাগান্ডা করার জন্য। বিজেপি ঝড়ের বেগে কুত্সা করে। আমি কুত্সা নয়। ঝড়ের বেগে কাজ চাই, উন্নয়ন চাই।”

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close