fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

স্বাস্থ্য কমিশনের হস্তক্ষেপে বিল কমাল মেডিকা, ডিসানের বিরুদ্ধেও স্বতঃপ্রণোদিত মামলা কমিশনের

অভীক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: শহর জুড়ে বার বার হাসপাতালগুলির লাগামছাড়া বিল এবং টাকার দাবিতে রোগী ভর্তি না হওয়ার একাধিক অভিযোগে এবার সক্রিয় হল স্বাস্থ্য কমিশন। একদিকে করোনায় মৃত শ্যামনগরের চিকিৎসক প্রদীপ ভট্টাচার্যের বিল ১৯ লক্ষ টাকা থেকে  ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা কমাল মেডিকা হাসপাতাল। আবার ডিসান হাসপাতালের বাইরে অ্যাম্বুল্যান্সে রোগী মৃত্যুর ঘটনায় হাসপাতালের বিরুদ্ধে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করল স্বাস্থ্য কমিশন। প্রসঙ্গত, করোনা আক্রান্ত হয়ে শ্যামনগরের বাসিন্দা চিকিৎসক প্রদীপ ভট্টাচার্য বাইপাসের ধারের মেডিকা সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে ভর্তি হন। কিন্তু দীর্ঘ লড়াইয়ের পর ১১ আগস্ট তাঁর মৃত্যু হয়।

এরপর হাসপাতালের তরফে দাবি করা হয় ১৯ লক্ষ টাকা বিলে দাবি করা হয়। বিষয়টি প্রকাশ্যে আসার পরই বুধবার মেডিকা সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালকে টেক্সট মেসেজ করে করোনা আক্রান্ত মৃত চিকিৎসকের আকাশছোঁয়া বিল ফের রিভিউ করে কিছু টাকা পরিবারের হাতে দেওয়ার জন্য আবেদন জানান রাজ্যের স্বাস্থ্য কমিশন। জানা গিয়েছে, মিনিট পাঁচেকের মধ্যেই হাসপাতালের তরফে বিল রিভিউ শুরু করা হয়। এরপর বৃহস্পতিবার স্বাস্থ্য কমিশনের চেয়ারম্যান অসীম বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, বিল রিভিউ করে ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা ছাড় দিয়ে ১৮ লক্ষ ৩৪ হাজার টাকা চূড়ান্ত বিল দিয়েছে হাসপাতাল।

এর মধ্যে পরিবারকে দিতে হয়েছিল ১১ লক্ষ ৭৫ হাজার টাকা। সেখান থেকেই ছাড় দেওয়া হল ৩ লক্ষ ৬০ হাজার টাকা। অবিলম্বে টাকা ফেরানো হবে বলে জানা গিয়েছে। অন্যদিকে, ডিসান হাসপাতালের বাইরে অ্যাম্বুল্যান্সে পড়ে থেকে করোনা রোগিণীর মৃত্যুর ঘটনায় স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে মামলা রুজু করল স্বাস্থ্য কমিশন। স্বাস্থ্য কমিশনের চেয়ারম্যান প্রাক্তন বিচারপতি অসীম বন্দোপাধ্যায় বলেন, “এই ঘটনা অমানবিক ও দুঃখজনক। আমরা সমস্ত দিক খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নিয়েছি, হাসপাতালে দীর্ঘক্ষণ পড়ে থেকেই ওই মহিলার মৃত্যু হয়েছিল। সেই কারণেই আমরা স্বতঃপ্রণোদিত ভাবে এ মামলা দায়ের করেছি।” উল্লেখ্য এ রাজ্যের স্বাস্থ্য কমিশনের এ ধরণের পদক্ষেপ এই প্রথম। অসীমবাবু জানিয়েছেন, ডিসানে নিয়ে আসার আগে করোনা আক্রান্ত প্রৌঢ়া লায়লা বিবি যে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন, সেখান থেকেও সমস্ত তথ্য তলব করা হয়েছে। একইসঙ্গে ডিসান হাসপাতালে বক্তব্য জানতে চাওয়া হয়েছে। সমস্ত তথ্য কমিশনের হাতে এলে আগামী ১৯ অগস্ট এই মামলার শুনানি হতে পারে বলে জানিয়েছেন তিনি।

Related Articles

Back to top button
Close