fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

জেলা হাসপাতালে তুলকালাম, নার্সিং স্টাফদের বিক্ষোভ আন্দোলনের ছবি তুলতে গিয়ে আক্রান্ত সাংবাদিক

শ্যামল কান্তি বিশ্বাস : শক্তি নগর জেলা হাসপাতালে তুলকালাম কাণ্ড। হাসপাতালে নার্সদের বিক্ষোভ আন্দোলনের ছবি তুলতে গিয়ে আক্রান্ত হলেন জেলার দু’জন বৈদ্যুতিক মাধ্যমের সাংবাদিক। হাসপাতাল সুপার ডাঃ শচীন্দ্র নাথ সরকারের সঙ্গে চরম বাকবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন সাংবাদিক প্রদীপ মজুমদার এবং সাংবাদিক সায়ন মোদক।এরপর কেড়ে নেওয়া হয় সাংবাদিকদের মোবাইল ক্যামেরা।

 

 

হাসপাতাল সুপারের অভিযোগ, তার অনুমতি ছাড়া হাসপাতালের ছবি তোলা যাবে না। অপর দিকে সাংবাদিক দ্বয়ের অভিযোগ,ঘটনা যখন কিছু একটা ঘটেছে, তাহলে ছবি তুলতে আপত্তি কোথায়? হাসপাতাল সুপার বাকবিতণ্ডায় মেজাজ হারিয়ে উত্তপ্ত হয়ে পড়েন এবং একটি বৈদ্যুতিক মাধ্যমের সাংবাদিক প্রদীপ মজুমদারের হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নেন এবং অপর সাংবাদিক সায়ন মোদক ঘটনার প্রতিবাদ করতে গেলে তাকেও ধমকানোর পাশাপাশি গায়ে ধাক্কা মারা হয় বলে অভিযোগ ওঠে।

 

 

 

ঘটনার সূত্রপাত গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় শক্তি নগর জেলা হাসপাতালে একাধিক দাবি দাওয়া সহ উন্নত পরিষেবার দাবিতে পূর্বনির্ধারিত কর্মসূচি অনুযায়ী বিক্ষোভ আন্দোলনে শামিল হয় হাসপাতালের নার্সরা। হাসপাতালের প্রধান গেটের সামনে নার্স দের বিক্ষোভ চলা কালীন খবর করতে এসে সুপারের রোষের মুখে পড়েন এই সাংবাদিক দ্বয়।ঘটনায় বিস্মৃত প্রত্যক্ষদর্শীরা,ধিক্কার জানিয়েছেন, কৃষ্ণ নাগরিকবৃন্দ।

 

 

এই ঘটনায় নার্সদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, একাধিক পরিষেবা বিষয়ক সমস্যা সংক্রান্ত বিষয়ে দীর্ঘদিন যাবৎ কর্তৃপক্ষ কে জানানো সত্ত্বেও কোন কাজ না হওয়ায় সর্বশেষ পথ হিসাবে আন্দোলনের পথ বেছে নিতে বাধ্য হয়েছি।অভিযোগে প্রকাশ, বিভিন্ন হাসপাতালে কোভিড এর ডিউটি করলে এক সপ্তাহ অন্তত ছুটি পাওয়া যায় কিন্তু আমরা পাচ্ছি না,প্রতিবাদ এখানেই। পিপিই সহ কিট, মাস্ক কিছুই সাপ্লাই নেই।হ্যান্ড গ্লাভস অপ্রতুল থাকায় একটাই বার বার ধূয়ে ব্যবহার করতে হচ্ছে। ডিউটি বন্টনে ও স্বচ্ছতার অভাব। জেনারেল ওয়ার্ডে প্রয়োজন না হলেও আমাদের দাবি আইসোলেশন ওয়ার্ড এবং সারি হাসপাতালে ডিউটির পর আমাদের শারীরিক পরীক্ষা করাতে হবে, কথা রাখছে না কর্তৃপক্ষ।আসলে পরিকাঠামোগত অভাব ঢাকতে নানা অজুহাতে আমাদের বিরম্বনায় ফেলা হচ্ছে বলে নার্স দের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়।

Related Articles

Back to top button
Close