fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কেন্দ্রীয় বাহিনীর কতৃর্ত্বের প্রস্তাব খারিজ! ক্ষুব্ধ বিজেপি, সুষ্ট ভোট করতে হলে চলতি মাসেই দায়িত্ব নিক কমিশন: সৌমিত্র

রক্তিম দাশ, কলকাতা:  বাংলায় একুশের ভোটের সময় কেন্দ্রীয় বাহিনীর কর্তৃত্ব বৃদ্ধি নিয়ে মোদি সরকারের প্রস্তাব রাজ্যের খারিজ করা নিয়ে ক্ষুব্ধ বিজেপি। কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের এই প্রস্তাব খারিজের পিছনে আসলে ভোটের সময় শাসকদলের দূরঅভিসন্ধি কাজ করছে বলেই মনে করছে গেরুয়া শিবির।

বিষয়টি নিয়ে বলতে গিয়ে জঙ্গলমহল বিষ্ণুপুরের সাংসদ তথা বিজেপির যুবমোর্চার সভাপতি সৌমিত্র খাঁ বলেন,‘ রাজ্য সরকারের জায়গায় এখন মমতা সরকার চলছে। যা ইচ্ছে তাই করতে চাইছে তারা। এই কেন্দ্রীয় বাহিনীর জন্যই জঙ্গলমহলে মাওবাদীদের দমন করা সম্ভব হয়েছে। তৃণমূল চাইছে আবার মাওবাদীদের ফিরিয়ে এনে ভোটে ব্যবহার করতে। তাই জ্ঞানেশ্বরি কান্ডে  অভিযুক্ত ছত্রধরকে জেল থেকে বার করে এনে তৃণমূল নেতা বানিয়েছে।’

সৌমিত্র খাঁ (সাংসদ ও বিজেপির যুবমোর্চার সভাপতি)

সৌমিত্র আরও বলেন,‘ ভোটের সময় দেখা যায় কেন্দ্রীয় বাহিনীকে রাজ্য পুলিশ বসিয়ে রাখে তাদের ব্যবহার করা হয় না। আর তাতে বুথ দখল করে ভোট করতে সুবিধা হয় দুস্কৃতিদের। কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে কর্তৃত্ব থাকলে অসুবিধা হবে তৃণমূলীদের। কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে কর্তৃত্ব থাকলে এটা সম্ভব হবে না। তাই প্রস্তাব খারিজ করা হয়েছে। ’

সৌমিত্র এদিন দাবি করেন,‘ বাংলায় সুষ্টু ভাবে একুশের নির্বাচন করতে হলে চলতি মাস থেকে রাজ্যের দায়িত্ব নিক কেন্দ্রীয় নির্বাচন কমিশন। কারণ ছ’মাস আগে দায়িত্ব না নিলে বাংলায় নিরপেক্ষ ভাবে ভোট করা যাবে না।’

প্রবীণ সাংবাদিক ও বিজেপি নেতা রন্তিদেব সেনগুপ্ত বলেন,‘রাজ্যে অধীনে কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকলে তা ভোটের সময় নিষ্ক্রিয় হয়ে পড়বে। এটা আমরা অতীতেও দেখেছি। রাজ্য পুলিশ তো তৃণমূল নেতাদের কথায় পরিচালিত হবে। রাজ্য সরকার চাইছে না বাংলায় স্বচ্ছ নির্বাচন হোক। কেন্দ্রীয় বাহিনীর হাতে কর্তৃত্ব না থাকলে ভোটের সময় অতীতের মতো অনেক কুকীর্তি আমরা ফের দেখতে পাব। বুথ দখল হবে, বিরোধীদের এজেন্ট বসতে দেওয়া হবে না, মানুষকে ভোট কেন্দ্রে ঘেঁসতেও দেবে না তৃণমূল। বাংলার মানুষের থেকে দূরে সরে গিয়ে এভাবেই প্রশাসনকে কাজে লাগিয়ে ফের ক্ষমতায় আসতে চাইছে তৃণমূল।’

Related Articles

Back to top button
Close