fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

আছড়ে পড়তে চলেছে শক্তিশালী সুপার সাইক্লোন আমফান, বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত বন্ধ কলকাতা বিমানবন্দর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:আছড়ে পড়তে চলেছে  শক্তিশালী সুপার সাইক্লোন আমফান। আর এই ঝড়ের প্রভাব মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে শহর কলকাতার। এমনটাই বলছেন বিশেষজ্ঞরা। মনে করা হচ্ছে, আয়লা ঝড় কলকাতার উপর যতটা প্রভাব ফেলেছিল, এই ঝড় তার চেয়েও বেশি প্রভাব ফেলবে। ১১০ থেকে ১৩০ কিলোমিটার বেগে ঝড় বয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। কলকাতা থেকে ২৬০ কিলোমিটার দূরে এখন অবস্থান করছে। আম্ফানের কারণে রেড জোনেই থাকছে হাওড়া। আবহাওয়া দফতরের কর্তারা বলছেন, ল্যান্ডফল হওয়ার পরে ঝড়টি যাবে কলকাতার ঠিক ওপর দিয়েই। ঘূর্ণিঝড় উমফানের জেরে কলকাতা ও সংলগ্ন জেলাগুলিতে প্রবল ঝড় বইতে পারে। বুধবার বিকেল থেকে রাতভর চলবে এই জোরালো ঝড় ও বৃষ্টি। বৃহস্পতিবার বেলা বাড়লে নিষ্কৃতি মিলতে পারে দুর্যোগ থেকে।

আম্ফান আতঙ্কে কাল বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত বন্ধ কলকাতা বিমানবন্দর। আগাম সতর্কতা হিসেবে তত্‍পর হয়েছে কলকাতা বিমানবন্দরও। আগামী কয়েকঘন্টার মধ্যেই শহরে আছড়ে পড়তে চলেছে আম্ফান। সেই কারণেই কলকাতা বিমানবন্দরের সমস্ত কাজ বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জানা যাচ্ছে, বুধবার সকাল থেকে আগামিকাল, বৃহস্পতিবার সকাল ৫ টা অবধি বন্ধ থাকবে সবরকম বিমান পরিষেবা। জানা গিয়েছে, আমফানের জেরে যাতে কোনও বড় সমস্যা না হয়, সেই কারণেই এই সিদ্ধান্ত। এর আগেও ফণীর সময় এরকমভাবেই পরিষেবা বন্ধ করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের তরফে।

আরও পড়ুন: ধেয়ে আসছে আম্ফান, বিপদে পড়ার আগেই হাতের কাছে রাখুন এই নম্বর গুলি!

শুধু পরিষেবা বন্ধ করাই নয়, আগাম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে সরিয়ে ফেলা হল ১০টি বিমান। বুধবার সকালেই এই কাজ করা হয়েছে। জানা গিয়েছে, রাঁচি, বারাণসী, গুয়াহাটি, পাটনার মতো বিভিন্ন বিমানবন্দরে সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বিমানগুলিকে। এয়ার ইন্ডিয়ার তিনটি এটিআর বিমান, ইন্ডিগোর চারটি এবং স্পাইস জেটের তিনটি বিমানকে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে অন্যত্র। প্রবল হাওয়ায় ছোট বিমানগুলি টার্মিনাল বা পাশে দাঁড়িয়ে থাকা বড় বিমানে ধাক্কা মারতে পারে। তাই বড় ক্ষতি এড়াতেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তবে পরিষেবা বন্ধ রাখলেও আধিকারিকেরা সর্বক্ষণ এটিএসে রয়েছেন। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের তরফে রাজ্য প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ করা হচ্ছে। যাতে কোনরকম সমস্যা হলে তা সমাধান করা যায়।

পাশাপাশি ২৪ ঘণ্টা খোলা রয়েছে নবান্ন কন্ট্রোলরুম। পরিস্থিতির উপর একটানা নজর রেখে চলেছে প্রশাসন। আশঙ্কা সত্যি করে যদি ১১০ থেকে ১৩০ কিলোমিটার বেগে ঝড় বয়ে যায় শহরের ওপর দিয়ে, তবে তার ক্ষতি মারাত্মক হতে পারে, এ কথা বলাই বাহুল্য। কলকাতা পুলিশের তরফেও খোলা হয়েছে আলাদা কন্ট্রোল রুম, যা আজ সকাল ৮টা থেকে চালু হয়ে গেছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close