fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দলের কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক থেকে শুভেন্দু অধিকারী, আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে অগ্নিমিত্রা পাল ও জিতেন্দ্র তেওয়ারি

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: ছটপুজো উপলক্ষ্যে রাজ্য বিজেপির মহিলা মোর্চার রাজ্য সভানেত্রী অগ্নিমিত্রা পাল বস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসানসোল দক্ষিণ বিধানসভার আমড়াসোত গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝাটিডাঙ্গা গ্রাম আসেন। এদিন তিনি ওই এলাকার প্রায় ১০০ জনের হাতে নতুন বস্ত্র তুলে দেন। পরে তিনি তার বক্তব্যে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ও রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়কে কটাক্ষের সুরে আক্রমণ করেন। তিনি বলেন, আমাদের দলের কেন্দ্রীয় স্তরের পর্যবেক্ষকরা রাজ্যে অশান্তি ছড়াতে এসেছে বলে দাবি করছে রাজ্যের শাসক দল। কেন্দ্রীয় মন্ত্রীরা কি বহিরাগত? তাহলে রোহিঙ্গার মতো অনুপ্রবেশকারী যারা তারা কি আপনার কাছের লোক?

এর পাল্টা পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি জিতেন্দ্র তেওয়ারি বলেন, বাংলায় তৃণমূল কংগ্রেসের সাংসদ নেতারা বিজেপি শাসিত উত্তরপ্রদেশের হাথরসে দলিত মহিলাকে গনধর্ষণ করে পুড়িয়ে মারার ঘটনা খতিয়ে দেখতে গেছিলেন। সেখানে তাদের ঢুকতে দেওয়া হয়নি। তাহলে কি বহিরাগত?  বাংলায় তো এই রকম কোন ঘটনা ঘটছে না। আসানসোলে দিল্লি, মুম্বাই থেকে নেতা আছেন তারা হেডমাস্টার হিসেবে আসছেন ও দেখছেন  যে বিজেপি নেতারা পড়া করেছে কিনা। তিনি দাবি করে বলেন যে, আমি খবর পেয়েছি বাংলার বিজেপি নেতাদের নাকি কান ধরে উঠবস করানো হচ্ছে। যা একবারেই ঠিক নয় বলে মনে করেন জিতেন্দ্র তেওয়ারি।

এদিন অগ্নিমিত্রা পাল সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে বলেন,  বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় নিজের ঢাক নিজেই পেটান।  রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, নজরুল ইসলাম ও স্বামী বিবেকানন্দের মতো মনীষীদের পাশে নিজের ছবি দিয়ে বলছেন বাংলার গর্ব মমতা। আর মেলা ও খেলায় কোটি কোটি টাকা উড়াচ্ছেন। অথচ এসএসসি শিক্ষকদের বকেয়া টাকা দিতে পারছেন না। তারপর কিভাবে বলেন আপনি বাংলার গর্ব?  আপনি তো বাংলা লজ্জা বলে দাবি করেন রাজ্য বিজেপি মহিলা মোর্চার সভানেত্রী।

তিনি বলেন, বাংলার মুখ্যমন্ত্রী শুধু নিজের পরিবারের কথা ভাবেছেন। কেন্দ্র সরকারের  প্রকল্পগুলিকে বাংলায় কার্যকর করতে দিচ্ছেন না। শুভেন্দু অধিকারী প্রসঙ্গে তিনি বলেন,  শুভেন্দু দার বিজেপিতে চলে আসা উচিত।  তৃণমূল কংগ্রেস  তাকে সাইডলাইন করে রেখেছে।  এত বড়মাপের  জননেতাকে দূরে রেখে শুধুমাত্র নিজের ভাইপোকে মুখ্যমন্ত্রী করার পরিকল্পনা করেছেন, তা একবারেই ঠিক নয়। শুভেন্দুদা  বিজেপিতে আসতে চাইলে আসুন।  আমাদের দরজা সবার জন্য খোলা। তিনি এলে দুহাত ভরে অভ্যর্থনা জানাবো।

এই প্রসঙ্গে মন্তব্য নিয়ে কটুক্তি করতে ছাড়েননি পশ্চিম বর্ধমানের তৃণমূল কংগ্রেসের  জেলা সভাপতি জিতেন্দ্র তেওয়ারি।  তিনি কটাক্ষের সুরে বলেন,  বাংলায় বিজেপির নেতা নেই। তাই তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাদের দলে টানার চেষ্টা করছেন। তারা প্রকাশ্যে স্বীকার করুন যে,  তাদের দলের কোনও নেতা নেই। মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার মতো কোনও মুখ নেই। তাই তারা তৃণমূল কংগ্রেসের নেতাদের দলে টানার চেষ্টা করছেন। বুধবার ও বৃহস্পতিবার অগ্নিমিত্রা পাল আসানসোল ও দুর্গাপুরে একাধিক কর্মসূচিতে যোগ দেন।

Related Articles

Back to top button
Close