fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

৩ বছরের শিশুকন্যাকে খুন করে আত্মঘাতী মা

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: নিজের ৩ বছরের শিশু কন্যাকে খুন করে আত্মঘাতী হলেন মা। মর্মান্তিক এই ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর ২৪ পরগনার জেলার ব্যারাকপুর সদরবাজার এলাকায়। মৃত মহিলার নাম পারভিন খান (২৫) ও মৃত শিশুটির নাম ইভানা খান (০৩)। বুধবার রাতে ব্যারাকপুর সদরবাজারে তাদের নিজেদের শোয়ার ঘর থেকে মা ও মেয়ের মৃতদেহ উদ্ধার করে ব্যারাকপুর থানার পুলিশ। পারিবারিক অশান্তির জেরে মা পারভিন খান তার ছোট্ট শিশু কন্যাকে শ্বাসরোধ করে খুন করে আত্মঘাতী হয়েছে বলে অনুমান প্রতিবেশীদের।

বুধবার সন্ধ্যায় ব্যারাকপুর সদর বাজার এলাকায় স্থানীয় বাসিন্দারা দেখেন পারভিন খানের ভাড়া ঘরের দরজা দীর্ঘক্ষণ বন্ধ। বহু ডাকাডাকিতেও ঘরের ভিতর থেকে কেউ দরজা খুলছে না। এদিকে ঘরে নেই পারভিনের স্বামী মহম্মদ ইমরান খান। এরপর প্রতিবেশীরা ওই ঘরের জানলার ফাঁক দিয়ে দেখেন বিছানায় নিথর দেহ পড়ে আছে একরত্তি পারভিনের মেয়ে ইভানার মৃতদেহ। সিলিংয়ে ঝুলছে ওই গৃহবধূর মৃতদেহ। প্রতিবেশীরা ব্যারাকপুর থানার পুলিশকে খবর দিলে ব্যারাকপুর থানার পুলিশ এসে দরজা ভেঙে মা ও মেয়ের মৃতদেহ উদ্ধার করে ব্যারাকপুর ক্যান্টনমেন্ট হাসপাতালের মর্গে নিয়ে যায়।

আরও পড়ুন:করোনা রুখতে এবার কড়া দাওয়াই…নামানো হল কম্যান্ডো বাহিনী

পুলিশ ও স্থানীয় বাসিন্দাদের ধারণা, পারভিন খান নিজে প্রথমে তার ছোট শিশুটিকে শ্বাসরোধ করে খুন করে তারপর নিজে গলায় ফাঁস লাগিয়ে আত্মঘাতী হয়েছে। পারিবারিক অশান্তির জেরে এই ঘটনা ঘটে থাকতে পারে বলে সন্দেহ করছে পুলিশ। এদিন পুলিশ দরজা ভেঙে ঘরে ঢুকে দেখে বিছানায় মৃত অবস্থায় পড়ে রয়েছে শিশুটি, আর পাশে তার মা পারভিনের দেহ ঝুলন্ত অবস্থায় রয়েছে।

ব্যারাকপুর থানার পুলিশ সূত্রের খবর, যে সময় এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে সেই সময় মৃত পারভিন খানের স্বামী ইমরান খান বাড়িতে ছিলেন না। লকডাউনের পর থেকেই পারভিন খানের স্বামী কাজ হারিয়ে বাড়িতে বসে ছিলেন। কিন্তু প্রতিবেশীদের দাবি, কোন দিন স্বামী স্ত্রীর মধ্যে কোন ঝামেলা বা অশান্তি হতে কোন দিনই তারা দেখেন নি। কেন এই ঘটনা ঘটল, তা নিয়ে যথেষ্ঠ হতবাক ও বিস্মিত প্রতিবেশীরা।

আরও পড়ুন:রোহিঙ্গা আরাকান আর্মিকে মদত যোগাচ্ছে চিন, ক্ষুব্ধ মায়ানমার, পাশে চাইল ভারতকে

ব্যারাকপুর থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে। এই ঘটনার জেরে মৃতা পারভিন খানের স্বামী ইমরান খানকে জেরা করছে ব্যারাকপুর থানার পুলিশ। এই ঘটনায় তীব্র চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ব্যারাকপুরের সদর বাজার এলাকায়। কী কারণে ঘটল এই মর্মান্তিক ঘটনা, তা জানার চেষ্টা করছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button
Close