fbpx
কলকাতাহেডলাইন

প্রয়াত বর্ষীয়ান সিপিএম নেতা শ্যামল চক্রবর্তীর প্রয়াণে শোক জ্ঞাপন সূর্যকান্ত-সুজনের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  প্রয়াত বর্ষীয়ান সিপিএম নেতা শ্যামল চক্রবর্তী।  বৃহস্পতিবার বেলা ১.৪৫ মিনিটে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। কোভিড আক্রান্ত হয়ে বাইপাসের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন তিনি। ভেন্টিলেশনে ছিলেন প্রবীণ নেতা। বাবার শরীর যে ভালো নেই, নিজেই ফেসবুকে সেকথা জানিয়েছিলেন উষসী চক্রবর্তী। বুধবার মেয়ে উষসী চক্রবর্তী নিজের ফেসবুক ওয়ালে বাবার শারীরিক অবস্থার কথা জানিয়ে পোস্ট করেন। মুখ্যমন্ত্রী যে তাঁকে ফোন করে খোঁজ নেন, সেকথাও শেয়ার করেন উষসী। প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রীর প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও। প্রাক্তন পরিবহণমন্ত্রীর প্রয়াণে শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

তাঁর মৃত্যুর পর সিপিএম পলিটব্যুরোর সদস্য তথা রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র একটি বিবৃতিতে বলেছেন, ‘আমাদের পার্টির প্রবীণ নেতা কমরেড শ্যামল চক্রবর্তীর বেলা দু’টো নাগাদ জীবনাবসান হয়েছে। আজ দুপুরের আগে ও পরে পরপর দু’বার ওঁর হার্ট আ্যটাক হয়। প্রথম বার কিছুটা নিয়ন্ত্রণে আনার পর আর একটা আ্যটাকে সব শেষ হয়ে যায়।’ যেহেতু শ্যামলবাবু কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য ছিলেন তাই দলের সমস্ত দফতরে পতাকা অর্ধনমিত রাখবে সিপিএম।

শোকস্তবদ্ধ সিপিএম বিধায়ক সুজন চক্রবর্তীও। তিনি বলেছেন ছাত্র আন্দোলনের আদর্শ ছিলেন শ্যামল চক্রবর্ত। শ্যামল চক্রবর্তীর মতো ফাইটারের চলে যাওয়া মেনে নেওয়া যায় না। কমরেড শ্যামল চক্রবর্তী মানুষের কাছে শ্রমিক নেতা হিসেবে জনপ্রিয় ছিলেন। শ্রমজীবী মানুষের নেতা ছিলেন তিনি। তাঁর চলে যাওয়া বড় ক্ষতি হয়ে গেল।

আরও পড়ুন: রাজ্যের প্রাক্তন মন্ত্রী শ্যামল চক্রবর্তীর প্রয়াণে শোকপ্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

কমরেড শ্যামল চক্রবর্তীর প্রয়াণে শোক জ্ঞাপন করে CPI-ML লিবারেশনের রাজ্য সম্পাদক কমরেড পার্থ ঘোষ প্রাথমিক প্রতিক্রিয়ায় জানিয়েছেন- “বর্ষীয়ান বামপন্থী নেতা ও শ্রমিক আন্দোলনের অগ্রণী যোদ্ধা এবং সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির দীর্ঘ দিনের সদস্য কমরেড শ্যামল চক্রবর্তীর প্রয়াণে আমরা  গভীরভাবে মর্মাহত। কমরেড শ্যামল চক্রবর্তীকে জানাই লাল সেলাম।”

Related Articles

Back to top button
Close