fbpx
বিনোদনহেডলাইন

‘মাল-মাছ’ খাওয়া সব বাঙালিরাই এবার জেলে যাবে, দীপিকাকে নিয়ে বিস্ফোরক স্বস্তিকা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  সর্বভুক বাঙালি, মাছ-ভাত হোক কিংবা জল বাঙালিদের সবেতেই শুধু খাই খাই। সোশ্যাল মিডিয়া বরাবরই নিজের মেজাজে থাকেন স্বস্তিকা। সুশান্ত মামলার ক্ষেত্রেও তাঁর ব্যতিক্রম হল না। আজ এনসিবি দফতরে হাজিরা দিতে হবে দীপিকা পাড়ুকোনকে। এবার দীপিকার সমর্থনেই সুর চড়ালেন স্বস্তিকা । দীপিকা নাকি মাল-এর খোঁজ করছিলেন। সেই মাল-এর সূত্র ধরেই টুইটে বিস্ফোরক স্বস্তিকা। প্রতিবাদের ঝড় সবসময়েই উঠেছে তার গলায়। অন্যায়ের বিরুদ্ধে সবসময়েই তিনি গলা চড়িয়ে গর্জে ওঠেন।

শুক্রবার এক নেটিজেন টুইট করেন বাঙালিদের কাছে মাল মানে পানীয় ,সেই কারণে এবার বাঙালিদের নিয়ে চিন্তা বাড়ছে। আসলে দীপিকার মাল-এর সূত্র ধরেই নেটিজেন এই টুইটটি করেছেন। কিন্তু স্বস্তিকাও ছেড়ে দেওয়ার পাত্র নন। মুখের উপর সপাটে জবাব দিলেন নিজস্ব মেজাজে। আসলে, যে হোয়াটসঅ্যাপ  চ্যাটের সূত্র ধরে দীপিকা পাড়ুকোনকে  শনিবার NCB দফতরে হাজিরা দিতে হবে, তাতেও অভিনেত্রী ‘মাল’-এর খোঁজই করেছিলেন। আর সেই সূত্রেই ‘মাল’ শব্দের উল্লেখ করেন ওই নেটিজেন। তাঁরঅ টুইট শেয়ার করে স্বস্তিকা আবার লেখেন, “আমরা সকলেই জেলে যাব। মাল থেকে মাছ, সিগারেট থেকে জল – আমরা বাঙালিরা তো সব খাই।”

স্বস্তিকা মুখার্জি নিজের হ্যান্ডেলে একটি ট্যুইটকে শেয়ার করে লেখেন, আমরা সবাই জেলে যাবো। মাল থেকে মাছ, সিগারেট থেকে জল, আমরা বাঙালিরা সব খাই। মুহূর্তের মধ্যে তার এই টুইট নিয়ে শোরগোল শুরু হয়েছে। বলিউডের সঙ্গে মাদকযোগ নিয়ে জোর জলঘোলা শুরু হয়েছে।  তদন্তের গতিপ্রকৃতিকে ঘুরিয়ে খোঁচা দিলেন স্বস্তিকা মুখার্জি। রসিকতার ছলে জানিয়ে দিলেন, বাঙালিরা মাছ থেকে মাল, সিগারেট থেকে জল, সবই খায়। তাই বর্তমান প্রেক্ষাপট বিচার করে অভিনেতা জানিয়েছেন সব বাঙালিরই ভবিতব্য জেল।

আরও পড়ুন: রাতের অন্ধকারে ভেঙে পড়ল বায়ুসেনার বিমান, মৃত কমপক্ষে ২২

স্বস্তিকা মুখার্জির পরিচিতরা মনে করছেন, অভিনেতা আসলে ড্রাগ তদন্তের গতিপ্রকৃতিকে ব্যঙ্গ করে একটি দ্বিমুখী কটাক্ষ ছুঁড়েছেন। সম্প্রতি দিল্লি দাঙ্গায় অভিযুক্ত হিসেবে জেএনইউয়ের প্রাক্তন ছাত্র নেতা উমর খালিদকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আদালতের হস্তক্ষেপে কদিন আগেই ছাড়া পেয়েছেন ডক্টর কাফিল খান। দেশের প্রায় সর্বত্র বিরোধী স্বর নিক্ষেপকারীদের জেলে ঢোকানোর প্রতিবাদ প্রথম থেকেই করছেন বিদ্বজ্জ্বনেরা। স্বস্তিকা মাল শব্দের ভাষাগত জাগলারির মাধ্যমে সব বাঙালিকে জেলে পাঠানোর আশঙ্কা জানিয়ে আসলে কেন্দ্রীয় সরকারকেই বিঁধতে চেয়েছেন বলে মনে করছেন স্বস্তিকার পরিচিতরা।

 

Related Articles

Back to top button
Close