fbpx
কলকাতাহেডলাইন

‘মা’ আসছেন… গণেশ চতুর্থীর শুভ দিনেই তেলেঙ্গাবাগানের খুঁটি পুজো

শ্রেয়শ্রী ব্যানার্জী, কলকাতা: করোনা গ্রাস করেছে আমাদের স্বাভাবিক জীবনকে। বাঙালির সেরা উৎসব দুর্গাপুজোয় করোনাসুরের দাপটে এবার জৌলুস কম। কিন্তু তারমধ্যেই আমরা দিনগুনছি কবে ঘরে আসবে ‘উমা’। আমরা অপেক্ষায় রয়েছি মা মর্তে আগমনের সঙ্গে সঙ্গে করোনাসুরের থেকে মুক্তি মলবে মর্তবাসীর। বাঙালির প্রাণের উৎসব দুর্গাপূজায় কী হবে? তখনও কি করোনাসুরের দাপট এমনই থাকবে? উত্তরটা সত্যি কারও জানা নেই।

কিন্তু তাই বলে প্রস্তুতি থেমে নেই। আর কলকাতার দুর্গাপুজো মানেই থিম ও সাবেকিয়ানার মেলবন্ধন পুজো। আজ খুঁটি পুজোর জন্য গণেশ চতুর্থীর শুভ দিনকে বেছে নিয়েছেন তেলেঙ্গাবাগানের পুজো কমিটি। এবার ৫৫ তম বির্ষে পা দিন এই পুজো। এদিন খুঁটি পুজোয় উপস্থিত ছিলেন – চেয়ারম্যান শ্রী সাধন পাণ্ডে।(ক্রেতা সুরক্ষা ও স্বনির্ভর দপ্তর ,মন্ত্রী পশ্চিমবঙ্গ সরকার), শ্রীঅনিন্দ্য কিশোর রাউত ৩নংবরো ও ১৩নংওয়ার্ড কো-অর্ডিনেটর, এবং সভাপতি উওর কলকাতা জেলা তৃণমূল যুব কংগ্রেস ,বিভিন্ন পূজো কমিটির উদ্যোক্তা। পাশাপাশি উল্টোডাঙ্গা থানার ওসি। তেলেঙ্গাবাগানের পল্লীবাসীরা পুজোতে উপস্থিত ছিলেন। সব রকমের সামাজিক বিধি মেনেই এদিন পুজো সম্পন্ন করা হয়।

আরও পড়ুন: গণেশ বন্দনা গেরুয়াময়, বিলি হলো মোদির নাম লেখা লাড্ডু

পুজো কমিটির পক্ষ থেকে বলা হয়, করোনার আবহে মা আসবেন, মানসিকভাবে মেনে নিয়েছেন সবাই। তাই এবারের দুর্গাপুজোয় সেই বাঁধভাঙা উচ্ছ্বাস হয়তো দেখা যাবে না। একসঙ্গে বেশি দর্শক মণ্ডপে ঢুকতে পারবেন না, থাকবে থার্মাল স্ক্রিনিংয়ের ব্যবস্থা। সবার মুখে থাকবে মাস্ক, হ্যাণ্ড স্যানেটাইজার হাতে মাখাতে হবে। আরও নানা স্বাস্থ্যবিধির পাহারা থাকবে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close