fbpx
কলকাতাহেডলাইন

দিদিকে বলোর পাল্টা আমফান দুর্গতদের জন্য ‘দিলীপদাকে বলো’

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আমফান ক্ষতিগ্রস্থরা যাঁরা এখনও ক্ষতিপূণ পাননি, তাঁদের জন্য নতুন একটি ওয়েবসাইট এনেছে রাজ্য বিজেপি। আমফান ক্ষতিগ্রস্থদের ত্রান না পাওয়া এবং এ বিষয়ে স্বজনপোষণের অভিযোগকে সামনে রেখে শাসকদল তৃণমূলের ওপর চাপ বাড়াতে চাইছে রাজ্য বিজেপি।  এবার আমফানে ক্ষতিগ্রস্তদের  সহায়তা করতে সরাসরি ময়দানে গেরুয়া শিবির। তৃণমূল কংগ্রেসের ‘ দিদিকে বলোর’ পাল্টা কর্মসূচি শুরু হলো ‘ দিলীপদাকে বলো’।

ব্যাপারটা ঠিক কি রকম? বিজেপির তরফে একটি ওয়েবসাইট https/amaderdilipda.in/cyclone amphan আনা হয়েছে। নির্দিষ্ট সেই ওয়েবসাইটে গিয়ে আম্ফানে যাঁরা ক্ষতিপূরণ পাননি তাঁরা নাম, মোবাইল নম্বর, আধার কার্ডের নম্বরসহ অভিযোগ জানাবেন। অভিযোগ খতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেবেন  মেদিনীপুরের সাংসদ। এই প্রসঙ্গে এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন, যাঁরা যাঁরা এই ওয়েবসাইটে নাম নথিভুক্ত করবেন। রাজ্য চাইলে সেই নামের তালিকা রাজ্য সরকারকে দেওয়া হবে। পাশাপাশি কেন্দ্রকেও পাঠানো হবে। তিনি বলেন, “এই পোর্টালে ক্ষতিগ্রস্থদের নাম রাজ্য চাইলে দেব। কেন্দ্রকে পাঠাব।”

আমফানের পর দেড়মাস পেরিয়ে গিয়েছে তারপরও ক্ষতিপূরণ নিয়ে প্রচুর অভিযোগ। মূল অভিযোগ প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্তরা ক্ষতিপূরণ পাচ্ছেন না। শাসকদলের কাছের লোকজনই ক্ষতিপূরণের টাকা পাচ্ছেন। অনেকক্ষেত্রেই দেখা গিয়েছে পাকা বাড়িতে থাকেন অথচ তিনি ক্ষতিপূরণ পেয়েছেন। আর যাঁদের বাড়িঘর ভেঙেগিয়েছে তাঁরা কিছুই পাননি। চাপে পড়ে অবশ্য অনেক অভিযুক্ত দোষ স্বীকার করেছেন। কান ধরে ওঠবোসও করেছেন, সংবাদ মাধ্যমে সে ছবি দেখেছেনও মানুষ। কিন্তু দুর্গতদের তাতে বিশেষ লাভ হচ্ছিল না। তাই বিজেপির এই উদ্যোগ। একুশের নির্বাচনের আগে এই ইস্যু যথেষ্টই গুরুত্ব পাচ্ছে গেরুয়া শিবিরে। তারা ক্ষতিগ্রস্তদের পৃথক একটা তালিকা তৈরী করে পাঠাচ্ছে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে।

আরও পড়ুন: শ্যামাপ্রসাদের জন্য‌ই ভারতের মানচিত্রে পশ্চিমবঙ্গ রয়েছে: দিলীপ ঘোষ

এদিন আবার খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক কে এক হাত নেন বিজেপি সভাপতি। বলেন, “সবচেয়ে বেশি দুর্নীতি খাদ্যমন্ত্রীর এলাকায় হয়েছে। দল কেন তাঁর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিচ্ছে না?” দিলীপের সুরেই এদিন সুর মিলিয়ে আরেক নেতা রাহুল সিনহা কথায়, “টাকা ফেরানোও আসলে গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফল। যারা ক্ষমতাসীন গোষ্ঠীর লোক নয়, তারা টাকা ফেরত দিচ্ছে। যারা ক্ষমতার কেন্দ্রে, তাদের সব ছাড়।”

 

Related Articles

Back to top button
Close