fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

চোপড়ায় ব্যবসায়ীর উপর প্রাণঘাতী হামলার ঘটনা ঘিরে উত্তেজনা

দীপঙ্কর দে, ইসলামপুর: চোপড়ার থানা রোড এলাকায় সোমবার ব্যবসায়ীর উপর প্রাণঘাতী হামলার ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। চোপড়ার থানা রোড এলাকায় জুতোর দোকান ব্যবসায়ী মঞ্জুর আলমের দোকানে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে জোরদার আঘাত করে সফিক আলম। ঘটনার জেরে চোপড়ার থানা রোড এলাকায় তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে।

স্থানীয়রা ছুটে এসে সফিক আলমকে ধরে ফেলে। উত্তেজিত জনতা সফিক আলমকে বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে চোপড়া থানার পুলিশ। ব্যবসায়ী মঞ্জুর আলমকে গুরুতর রক্তাক্ত জখম অবস্থায় দলুয়া ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়া হলে চিকিৎসকরা তাঁকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় উত্তরবঙ্গ মেডিক্যাল কলেজ ও হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। অন্যদিকে সফিক আলমকেও গুরুতর জখম অবস্থায় দলুয়া ব্লক প্রাথমিক স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নিয়ে যায় পুলিশ। তবে স্বাস্থ্যকেন্দ্রের মধ্যেও সফিক আলমকে উত্তেজিত জনতা বেধড়ক মারধর করে বলে অভিযোগ। সফিক আলমের শারীরিক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাঁকে ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

জানা গিয়েছে, এদিন সকালেও চোপড়ার ঝাড়বাড়ি গ্রামের এই দুই বাসিন্দা মঞ্জুর আলম ও সফিক আলমের মধ্যে বচসা হয়েছিল। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে চোপড়া থানার পুলিশ। তবে এই ঘটনার পিছনে বিজেপি তৃণমুল রাজনৈতিক গন্ডগোল রয়েছে বলেও দাবী স্থানীয়দের।
যদিও সফিক আলম একজন মানসিক বিকারগ্রস্ত রোগি ও এলাকায় তাঁকে পাগলা বলেও ডাকা হয় বলে চোপড়া গ্রাম পঞ্চায়েতের ঝাড়বাড়ি সংসদের সদস্য হাসান কামাল রানা জানিয়েছেন।

হাসান কামাল রানা আরও জানিয়েছেন দীর্ঘ কয়েকদিন ধরেই মঞ্জুর আলম সফিক আলমের বিরুদ্ধে তাঁকে গালাগালি করার অভিযোগ করে আসছিলেন। সে বিষয়ে সফিক আলমকে ডেকে তিনি বকবকিও করেছেন। তবে এদিনের ঘটনার পেছনে কোনও রাজনৈতিক বিষয় নেই। সব মিলিয়ে এদিনের চোপড়ার ব্যবসায়ীর উপর হামলার ঘটনায় ঝাড়বাড়ি এলাকায় চাপা উত্তেজনা রয়েছে এবিষয়ে নিশ্চিত করে বলা যায়।

Related Articles

Back to top button
Close