fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বেসরকারি গোডাউনের প্রাচীর ভেঙে পড়াকে ঘিরে উত্তেজনা শিলিগুড়ির সাহুডাঙ্গি এলাকায়

কৃষ্ণা দাস, শিলিগুড়ি: একটি ব্যক্তিগত মালিকানার গোডাউনের সীমানা প্রচীর ভেঙে দুটি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ার ঘটনায় উত্তেজনা ছড়ালো শিলিগুড়ির সাহুডাঙ্গি এলাকায়। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ দেখায় স্থানীয় অধিকারপল্লীর বাসিন্দারা। পরিস্থিতি সামাল দিতে ঘটনাস্থলে পৌঁছায় নিউ জলপাইগুড়ি থানার পুলিশ।

স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, বৃহস্পতিবার গভীর রাতে ওই গোডাউনের সীমানা প্রাচীর হঠাৎই ভেঙে পড়ে। তাতে গোডাউন লাগোয়া দুইটি বাড়ি ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের।

অন্যদিকে, গোডাউনের জিনিসপত্র স্থানীয়রা চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে বলে পাল্টা অভিযোগ ওই গোডাউন মালিকের। এবিষয়ে, স্থানীয় তৃণমূলের অঞ্চল সভাপতি তপন সিংহ জানান, উত্তরকন্যা নির্মাণ হওয়ার সময়, সেখানে বসবাসকারিদের উচ্ছেদ হওয়া পরিবারগুলিকে সাহুডাঙ্গির কাছে অধিকারপল্লিতে খাস জমিতে পুনর্বাসন দেওয়া হয়। এরপর সেই নতুন করে গড়ে ওঠা গ্রামের পাশ ধরে গড়ে ওঠে একটি বেসরকারি গোডাউন। ওই গোডাউনের সীমানা প্রাচীর এতটাই নিম্নমানের করা হয়েছে যে যখন-তখন প্রাচীর ভেঙে পড়ার উপক্রম।এছাড়া গোডাউনের ব্যবহৃত জল ওই গ্রামের মধ্যে দিয়েই বয়ে যায়। ফলে গ্রামের রাস্তাঘাট এবং বাড়িঘর গুলি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে।

আরও পড়ুন:অ্যানাকোন্ডার সংসারে নতুন অতিথি খুশির হাওয়া আলিপুর চিড়িয়াখানায়

এর আগেও বাসিন্দারা সঠিকভাবে প্রাচীর ও জল নিকাশি ব্যবস্থার দাবিতে বিক্ষোভ দেখিয়েছিলেন। কিন্তু মালিক পক্ষ কোন কর্ণপাত করেননি। এছাড়া অধিকারপল্লীর পাশ দিয়ে একটি ঝোরা বয়ে গিয়েছে। সেই ঝোরা নোংরা আবর্জনা দিয়ে ভর্তি করে দখলের চেষ্টা করছে ওই গোডাউনের মালিক বলে অভিযোগ তপনবাবুর। এর ফলে ওই ঝোরার গতিপথ পরিবর্তন হচ্ছে।  এছাড়াও গ্রামটি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। তিনি আরও বলেন, ফুলবাড়ি-১ গ্রাম পঞ্চায়েতে কোনও ডাম্পিং গ্রাউন্ড করার জন্য জমি পাওয়া যাচ্ছে না।  অথচ ওই গোডাউন মালিক ঝোরা বন্ধ করে জমি দখলের চেষ্টা করছেন। এদিন দীর্ঘক্ষণ বিক্ষোভের পর পুলিশের হস্তক্ষেপে মালিক পক্ষের প্রতিনিধি ঘটনাস্থলে পৌঁছান।

আরও পড়ুন:হরিচাঁদ ঠাকুরের নামে অশালীন পোস্ট, উত্তেজনা…দুর্গাপুরে পুলিশের কাছে ডেপুটেশন মতুয়াদের

গোডাউনের মালিক অজয় গোয়েল ঘটনাস্থলে পৌঁছে পাল্টা গ্রামবাসীদের ওপর অভিযোগ তোলেন যে, স্থানীয় কয়েকজন গোডাউনের জিনিস চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে। সেব্যাপারে পুলিশের কাছে অভিযোগ করায় বাসিন্দারা মাঝেমধ্যে অজুহাত তুলে ঝামেলা করছে। এদিন আন্দোলনকারীরা এক নিরাপত্তাকর্মী ও প্রতিনিধিকে হেনস্থাও করে বলে অজয় গোয়েলের অভিযোগ। এছাড়া তার দাবি গোডাউন ভেঙে পড়েনি। শুধু হেলে পড়েছে।  তাও ঠিক করতে দিচ্ছে না গ্রামবাসীরা। তিনি দাবী করে বলেন,   জমি দখল করা হচ্ছে না। পাশের জমি এবং ওই গ্রামটি যেখানে গড়ে উঠেছে সেটাও আমার জমি। এবং তার উপযুক্ত প্রমাণ রয়েছে।

 

Related Articles

Back to top button
Close