fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নৈহাটিতে ভাড়া বাড়িতে জুটমিল শ্রমিকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার ঘিরে উত্তেজনা 

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: এক বৃদ্ধ জুটমিল শ্রমিকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধারকে কেন্দ্র করে উত্তেজনা ছড়াল উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটি থানার অন্তর্গত শুঁটকি গলি এলাকায় । মৃতের নাম দুর্গা লাল সাউ (৫৮)। তাঁকে ধারালো অস্ত্র বা কাঁচের ভাঙা বোতল দিয়ে কুপিয়ে খুন করা হয়েছে বলে মনে করছেন স্থানীয় বাসিন্দারা । গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে নৈহাটি থানার পুলিশ ।

 

পেশায় জুটমিল কর্মী দুর্গা লালবাবু নৈহাটি থানার অন্তর্গত শুঁটকি গলি এলাকায় জনৈক নির্মলা গোস্বামীর বাড়িতে দীর্ঘদিন ধরে ভাড়া থাকতেন । সোমবার সকালে ওই ভাড়া বাড়ির ঘর থেকে ওই বৃদ্ধ জুটমিল শ্রমিকের রক্তাক্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয় । এলাকার বাসিন্দারা জানান, মৃত ব্যাক্তির দেহের সামনে ভাঙা বোতলের অংশ লক্ষ্য করা গেছে । মৃত ব্যাক্তি সম্প্রতি ওই ভাড়া বাড়িতে একাই থাকতেন । তার পরিবারের অন্য সদস্যরা লকডাউনে দেশের বাড়ি পুনেতে গিয়ে আটকে পড়েছেন । এদিন সকালে দুর্গা লাল বাবুর এক বন্ধু তাকে ভাড়া বাড়িতে ডাকতে আসলে দীর্ঘক্ষণ ওই বৃদ্ধের সাড়াশব্দ শুনতে পান না তিনি, এরপর বাড়ি ওয়ালী নির্মলা গোস্বামী ছুটে আসেন ঘটনাস্থলে । তারা দরজার সামনে গিয়ে দরজা ধাক্কা দিতে গিয়ে দেখেন, দরজা ভেতর থেকে খোলা আছে । দরজার সামনে গিয়ে সকলে দেখতে পান ভাড়ার ঘরের মেঝেতে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে দুর্গা লাল বাবুর রক্তাক্ত মৃতদেহ । তার পেট চেরা, গলায় গভীর ক্ষত ও হাতের শিরা কাটা অবস্থায় ছিল বলে স্থানীয় বাসিন্দারা জানান ।

        আরও পড়ুন: রাজ্যসভায় হাঙ্গামার জেরে সাসপেন্ড ডেরেক, ধরনায় বসলেন বিরোধীরা

এলাকার বাসিন্দারা মনে করছেন, ওই বৃদ্ধকে তার ঘরে ঢুকে রাতের অন্ধকারে দুষ্কৃতীরা খুন করেছে । তবে কে বা কারা তাকে খুন করল তা বুঝে উঠতে পারছে না এলাকাবাসী । পুলিশ সূত্রে খবর, মৃতের পরিবারের সদস্যদের কাছে খবর পাঠানো হয়েছে । নৈহাটি থানার পুলিশ সোমবার ঘটনাস্থলে পৌঁছে বৃদ্ধ জুটমিল শ্রমিকের মৃতদেহ উদ্ধার করে ওই দেহ ময়না তদন্তে পাঠিয়েছে । বাড়ি ওয়ালী নির্মলা গোস্বামী বলেন, “লকডাউনে উনার পরিবার দেশের বাড়িতে আটকে যাওয়ায় উনি এখানে একাই থাকতেন । মাঝে মাঝে নেশা করতেন । তবে শত্রুতা কারুর সঙ্গে ছিল না । নৈহাটি জুটমিলে কাজ করতেন ।

          আরও পড়ুন: আজ তিনদিনের সফরে রাজ্যে আসছেন সঙ্ঘ প্রধান মোহন ভাগবত

রবিবার সন্ধ্যায় ও উনাকে ঘরে কাজ করতে দেখেছি । কিন্তু কিভাবে এই ঘটনা ঘটল বুঝতে পারছি না । পুলিশ সঠিক তদন্ত করে আসল অপরাধীকে গ্রেপ্তার করতে পারবে বলে আশা করছি ।” এই ঘটনায় এখনো কেউ গ্রেপ্তার হয় নি । তবে অনেকেরই ধারনা ওই বৃদ্ধকে ঘরে একা পেয়ে দুষ্কৃতীরা তাকে খুন করে পালিয়েছে । শত্রুতা বশত বৃদ্ধের ঘনিষ্ট কেউ নেই ঘটনায় জড়িত থাকতে পারে, এমনই একটি প্রাথমিক তদন্তে অনুমান পুলিশের । নৈহাটি থানার পুলিশ গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ।

Related Articles

Back to top button
Close