fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

সোমালিয়ায় সন্ত্রাসবাদীদের বর্বরোচিত হামলা, মৃত ১০, পণবন্দি বেশ কয়েকজন

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: সন্ত্রাসবাদীদের হামলায় মৃত্যু হল ১০ জনের। সোমালিয়ার রাজধানী মোগাদিসুর এক অভিজাত হোটেল বন্দুকধারী সন্ত্রাসীদের হামলার সাক্ষী থাকল। আহত হয়েছেন আরও অনেকে। সন্ত্রাসবাদীদের হাতে পণবন্দি বেশ কয়েকজন। গোটা ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে।

এদিকে অভিযানে নেমেছে সেনাবাহিনী। দুই হামলাকারীকে খতম করেছে।সন্ত্রাসীদেরগুলিতে হোটেলে থাকা দুই সরকারি আধিকারিক, হোটেলের তিন নিরাপত্তাকর্মী এবং পাঁচজন আবাসিক মারা গেছেন বলে জানা গিয়েছে। এখন পর্যন্ত কোনও গোষ্ঠী হামলার দায় স্বীকার না করলেও প্রাথমিক ধারণা আল-কায়দা সমর্থিত জঙ্গি সংগঠন আল শাবাব হামলার ঘটনায় জড়িত।

আরও পড়ুন:৩ দিন আগে থেকেই মণ্ডপগুলিতে শুরু গণেশ প্রবেশ, কলকাতার বড় প্রতিমার উপর নজরদারি শুরু পুলিশের

ঘটনার বিবরণ সূত্রে জানা গেছে, মোগাদিসুর লিডো বিচ এলাকার অভিজাত ‘এলিট হোটেলের’ সামনে আচমকাই শক্তিশালী গাড়ি বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। বিস্ফোরণের প্রবলতা এতটাই ছিল যে গাড়িটি টুকরো-টুকরো হয়ে হোটেলের দেওয়ালে আছড়ে পড়ে। আতঙ্কে যখন হোটেলের কর্মী থেকে আবাসিকরা ছোটাছুটি শুরু করে দেন তখনই একদল সশস্ত্র বন্দুকধারী হোটেলের ভিতরে ঢুকে পড়ে। হোটেলে ঢুকেই নির্বিচারে গুলি চালাতে শুরু করে সন্ত্রাসবাদীরা। নিরাপত্তা রক্ষীরা পাল্টা গুলি চালায়। আরও বেশ কয়েকজন গুলিতে গুরুতর জখম হয়েছেন। প্রাণভয়ে হোটেলের কর্মী এবং আবাসিকরা বাথরুম সহ নানা জায়গায় আশ্রয় নেন। যদিও তাতে কোনও লাভ হয়নি। বেশ কয়েকজনকে ইতিমধ্যেই ‘পণবন্দি’ করেছে হামলাকারীরা। হামলার সঙ্গে সঙ্গেই হোটেলের বিদ্যুৎ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেওয়া হয়।

বন্দুকধারীদের হাতে বেশ কয়েকজন ‘পণবন্দি’ থাকায় পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসতে দীর্ঘ সময় লাগতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। তবে ইতিমধ্যে অন্তত ১০ জনকে বন্দুকধারীদের জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করেছে সেনাবাহিনী।

Related Articles

Back to top button
Close