fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা আবহে হচ্ছে না ২০০ বছরের প্রাচীন রাসমেলা, সমস্যায় ব্যবসায়ীরা

নিজস্ব প্রতিনিধি, দিনহাটা: করোনা আবহে ২০০ বছরের প্রাচীন রাসমেলা না হওয়ায় সমস্যায় পড়েছেন ব্যবসায়ীরা। প্রতিবছর রাসমেলায় ভারতের বিভিন্ন অংশ থেকে ব্যবসায়ীরা ছাড়াও প্রতিবেশী দেশ বাংলাদেশ থেকেও বিভিন্ন রকম দোকান নিয়ে আসেন ব্যবসায়ীরা। কিন্তু এবছর করোনা আবহে মেলা না হওয়ায় হতাশ ব্যবসায়ীরা। এর ফলে বেশ কয়েক কোটি টাকা ক্ষতি হল বলে মত ব্যবসায়ীদের।

এমনই এক ব্যবসায়ী দিনহাটার এক কম্বল বিক্রেতা মফিজুল হক। প্রতিবছর রাসমেলায় বাবা শহীদুল হককে নিয়ে কম্বলের দোকান দিয়ে থাকেন । প্রতি বছর বইমেলায় প্রায় চার হাজার পিস কম্বল বিক্রি করে থাকেন। শেষের কয়েক দিন মেলায় বিক্রির অনেকটাই ভালো হয়। এ বছর মেলার জন্য প্রায় দুই হাজার পিস কম্বল এনেছেন। আশা করেছিলেন করোনার প্রকোপ কমে আসবে। হবে রাসমেলা। কিন্তু নয় মাসেও সংক্রমণ না কমায় প্রশাসনিক সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মেলা না হওয়ায় কম্বল নিয়ে সমস্যায় পড়েছেন। তাই কখনো রাস্তার ধারে আবার কখনো খেলার মাঠে দোকান দিয়ে কম্বল বিক্রির চেষ্টা করছেন।

ওই ব্যবসায়ী মফিজুল জানান, প্রতিবছর রাস মেলায় দোকান দেন। এ বছরও মেলার জন্য কয়েক মাস আগেই কম্বলের অর্ডার দিয়েছিলেন। সেইমতো কম্বল এসেছে। কিন্তু মেলা না হওয়ায় প্রায় দুই হাজার কম্বল কিভাবে বিক্রি হবে তা নিয়ে চিন্তিত। ব্যবসায়ীর কথায়, প্রতিবছর রাসমেলায় প্রথম কয়েকদিন সেভাবে মেলা জমে না। তাই বিক্রি সেভাবে না হলেও শেষের দিকের আট থেকে ১০ দিন বেশ ভালো বিক্রি হয়। প্রতিবছর বিভিন্ন দামের প্রায় চার হাজার কম্বল বিক্রি করেন। কিন্তু এ বছর এত কম্বল বিক্রি না হলে আর্থিকভাবে অনেকটাই ক্ষতি হবে। কোচবিহারের রাসমেলা এবছর না হওয়ায় দিনহাটার এই কম্বল বিক্রেতা কখনও শহরের সংহতি ময়দানে আবার কখনও রাস্তার ধারে বসে কম্বল বিক্রির চেষ্টা করছেন।

মফিজুল হক বলেন, “প্রতিবছর রাসমেলায় ৬৬-৭০ হাজার টাকার মতো লাভ হয়। কিন্তু এ বছর মেলা না হওয়ায় লাভ তো দূরের কথা উল্টো আর্থিক ক্ষতির মধ্যে পড়তে হবে।” মহাকুমার ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সম্পাদক উৎপলেন্দু রায় বলেন, একদিকে করোনা আবহ চলছে। এমনিতেই ব্যবসায়ীরা নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন। রাসমেলা হবে বলে আশায় ছিলেন ব্যবসায়ীরা অনেকেই। কিন্তু কঠিন এই সময়ে রাস উৎসব শুরু হলেও প্রশাসনের ঘোষণা অনুযায়ী এ বছর মেলা বন্ধ হওয়ায় মফিজুল এর মত কয়েক হাজার ব্যবসায়ীকে নতুন করে আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ হতে হল।

দিনহাটা মহকুমা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক রানা গোস্বামী বলেন,”কোচবিহারের মদনমোহনের রাস উৎসব ও রাসমেলা উত্তর পূর্ব ভারতের অন্যতম বৃহৎ মেলা। এই মেলার জন্য অপেক্ষা করে থাকে ব্যবসায়ীরা। করোনা আবহে এবছর মেলা না হওয়ায় মফিজুলের মত অন্যান্য ব্যবসায়ীরাও আর্থিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হল।

Related Articles

Back to top button
Close