fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সায়ন্তন বসুর পথ আটকে দিল প্রশাসন, প্রশাসনের বিরুদ্ধে স্লোগান কোলাঘাটের বিজেপি কর্মীদের

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাটঃ ভারতীয় জনতা পার্টির সাধারণ সম্পাদক সায়ন্তন বসুকে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার হলদিয়া মোড়ের কাছে ৪১ নম্বর জাতীয় সড়কে দলীয় কর্মসূচিতে যেতে দিল না পূর্ব মেদিনীপুর জেলার জেলা প্রশাসন। এই ঘটনায় কোলাঘাট বিজেপির পক্ষ থেকে নিন্দা প্রকাশ করে বর্তমান শাসক দল গণতন্ত্র হরণ করছে বলে দাবি করেছে। সেই সঙ্গে আরও দাবি করে রাজ্য প্রশাসন ভেঙে পড়েছে বলেই আন্দোলন করার গণতান্ত্রিক অধিকার কেড়ে নিচ্ছে এই ঘটনায় তার প্রমাণ।

 

 

বেলা ঠিক এগারোটায় কাঁথি ও ভগবানপুর এলাকার বেশ কয়েকটি দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দিতে যাচ্ছিলেন সায়ন্তন বসু সহ অনুপম মাঝি, সুমন ব্যানার্জি, নবারুণ নায়েক সহ রাজ্যের বেশ কয়েকজন প্রভাবশালী নেতা। হলদিয়া মোড়ের কালী মন্দির এর কাছে এসে গাড়ি যখন পৌঁছায় প্রশাসনের পক্ষ থেকে গাড়ি আটকে দেওয়া হয়। প্রশাসনের পক্ষ থেকে বলা হয় ওই স্থানে জমায়েতের কোনো নির্দেশ সরকারিভাবে নেই, তাই আপনাদের গন্তব্যস্থলে পৌঁছানো যাবে না। প্রশাসনের সঙ্গে বিজেপির রাজ্য নেতাদের বাদানুবাদ চলতে থাকে। কোলাঘাট ব্লক পার্টি অফিসে এই ঘটনা আসার পর দলীয় কর্মীদের সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় জেলা ও ব্লক স্তরের নেতৃত্বরা।

 

 

পথচলতি মানুষ থেকে দলীয় কর্মীদের উপস্থিতিতে ৪১ নম্বর জাতীয় সড়ক বেশ কিছুক্ষণের জন্য অবরুদ্ধ হয়ে পড়ে। দলীয় কর্মীরা প্রশাসনের সামনেই স্লোগানের পর স্লোগানে এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ জানাতে থাকে। পরিস্থিতি যখন সংকট ময় তৈরি হচ্ছে, কোলাঘাট থানার পুলিশ সহ এলাকায় কমব্যাট ফোর্স মোতায়েন করা হয় জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে। বেশ কিছুক্ষণ পর প্রশাসনের আশ্বাস পেলে রাজ্য নেতারা কলকাতার অভিমুখে রওনা দেন। ঘটনাস্থলে জেলার বিজেপি সম্পাদক দেবব্রত পট্টনায়েক ও কোলাঘাট মন্ডলের তরুণ তুর্কি নেতা বিবেক চক্রবর্তী বলেন বিজেপির আন্দোলনকে স্তব্ধ করার জন্যই প্রশাসন সবরকম চেষ্টা করে যাচ্ছে। এটা করা হচ্ছে শাসক তৃণমূলের অঙ্গুলিহেলনে। অন্যায়ের বিরুদ্ধে কর্মীরা পথে নামবেই। প্রশাসন যতবার ইচ্ছা নেতা নেত্রীদের পথ আটকে রাখুক না কেন। অন্যদিকে তৃণমূলের প্রাক্তন বিধায়ক বিপ্লব রায় চৌধুরীকে ধরা হলে তিনি বলেন শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষার জন্য প্রশাসনের যা কাজ তাই করেছে, এতে অন্যায়ের কিছু নেই।

Related Articles

Back to top button
Close