fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রশাসন প্লাস্টিক মুক্ত এলাকার কথা বলছে, সরকারের কর্তারা ত্রাণ বিলি করছে প্লাস্টিকের ক্যারি ব্যাগে

বাবলু ব্যানার্জি , কোলাঘাট: সময়টা বেশী নয়, করোনাভাইরাস হওয়ার আগে প্রশাসনের পক্ষ থেকে জেলা জুড়ে প্লাস্টিক ব্যবহার না করার জন্য পঞ্চায়েত এলাকা ভিত্তিক প্রচার করা হয়েছিল। অথচ সেই প্রশাসনের কর্তা ব্যক্তিরা সহ স্বেচ্ছাসেবী প্রতিষ্ঠান সেই সঙ্গে রাজনৈতিক দলের নেতাদের বর্তমানে এান বিলি করতে দেখা যাচ্ছে প্লাস্টিকের ক্যারি ব্যাগে।  প্রশাসনের এই কাজের সমালোচনা করতে শুরু করেছে এলাকার পরিবেশ  বিদরা। কোলাঘাট বিধানসভা এলাকায় নিত্য  এমনই চিত্র লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এলাকার শ্রমিক থেকে দুঃস্থ মানুষদের হাতে  খাদ্য সামগ্রী তুলে দেওযা হচ্ছে ক্যারিব্যাগ এর মাধ্যমে। আর সেই ক্যারিব্যাগ গুলি বাড়িতে নিয়ে গিয়ে জিনিসপত্র রেখে বাইরে ফেলে দেওয়া হচ্ছে।  গ্রাম গঞ্জের আনাচে-কানাচে এই প্লাস্টিকের ক্যারি ব্যাগ গুলি পড়ে থাকতে দেখা যাচ্ছে।  সামান্য বাতাস দিলেই তা জড়ো হচ্ছে এক স্থানে;আর তা বৃষ্টি হলেই মাটি  চাপা পড়ে যাচ্ছে। এই ব্যাগ যে ব্যবহার করা নিষিদ্ধ তা আগেই পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দিঘা পর্যটন কেন্দ্রে ঘোষণা করা হয়েছিল।   জেলার পৌরসভা গুলিতেও ঘোষণা করা হয়েছে। উল্লেখ করা যায় একশ্রেণীর দোকানদাররা দেদার বিক্রি করে চলেছে এই প্লাস্টিক ব্যাগ।   সদ্য শান্তিপুর ১ নম্বর পঞ্চায়েত এর পক্ষ থেকে প্রত্যেকটি দোকানদারদের প্লাস্টিকের ব্যাগ বর্জন করে পাটের তৈরি ব্যাগ ব্যবহারের করার কথা বলা হযেছিল;প্রায় ১০০০পাটের তৈরি ব্যাগ বিলি ও করা হয় ।

আরও পড়ুন: দেড়মাস চাকদায় আটকে ভিন রাজ্যের লরির চালকেরা, অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন ৩০ জন

এলাকার পরিবেশ প্রেমী বিমল দত্ত বলেন আমরা নিজেরাই নিজেদের মরণ ডেকে আনছি। মানুষ সচেতন না হলে প্লাস্টিক বর্জন থেকে বিরত থাকা খুব কঠিন। তিনি প্রশাসনের কাছে  দাবি করেন অবিলম্বে বিষয়টি দেখার জন্য। অন্যদিকে কোলাঘাট ব্লকের বিডিও মদনমোহন মন্ডল কে ধরা হলে তিনি বলেন মানুষকে সচেতন করার জন্য আগেই প্রচেষ্টা নেওয়া হয়েছে। হঠাৎ করোনাভাইরাস এসে যাওয়ায় এই প্রচার থমকে গেছে। এলাকা স্বাভাবিক পরিস্থিতিতে ফিরে এলে পুনরায় এই সচেতনার  দিকটি  গুরুত্বসহকারে দেখা হবে।

Related Articles

Back to top button
Close